প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়কের বাড়িতে দিলীপ, জাগো বাংলা'তেও দিলীপের পক্ষে সওয়াল, জল্পনা তুঙ্গে

সম্পাদকীয়তে বলা হয়েছে, ত্রিফলা সামলানো সুকান্ত মজুমদারের মতো সদ্য কৈশোরে পা দেওয়া রাজনীতিবিদের পক্ষে সম্ভব নয়। তবু দিলীপ ঘোষ থাকলে একটা কথা ছিল।
প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়কের বাড়িতে দিলীপ, জাগো বাংলা'তেও দিলীপের পক্ষে সওয়াল, জল্পনা তুঙ্গে
গ্রাফিক্স - নিজস্ব

বিজেপির রাজ্য কমিটি থেকে বাদ পড়া তিন নেতা তৃণমূলের সঙ্গে যোগযোগ রাখছেন। দলের মুখপত্র 'জাগো বাংলা'-য় এমনটাই দাবি করা হয়েছে। সম্পাদকীয়তে আরও বলা হয়েছে, বিজেপির অন্দরে ত্রিমুখী লড়াই সামলাতে পারছেন না সুকান্ত-শুভেন্দু। পাশাপাশি দিলীপের পক্ষেও সওয়াল করা হয়েছে।

সম্পাদকীয়তে বলা হয়েছে, ত্রিফলা সামলানো সুকান্ত মজুমদারের মতো সদ্য কৈশোরে পা দেওয়া রাজনীতিবিদের পক্ষে সম্ভব নয়। তবু দিলীপ ঘোষ থাকলে একটা কথা ছিল। শুভেন্দু অধিকারীকে কটাক্ষ করে লেখা হয়েছে, শুভেন্দুর সমস্যা হচ্ছে শ্যাম রাখি না কুল রাখি। এলাকায় নিজের অস্তিত্ব প্রমাণ করতে গিয়ে নাকানিচোবানি খাচ্ছেন। তৃণমূলের ছত্রছায়ায় থাকার সময়ে বুঝতে পারেননি কত ধানে কত চাল! এখন হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছেন।

সম্প্রতি জয়প্রকাশ মজুমদারের বাড়িতে বিক্ষুব্ধ নেতাদের গোপন বৈঠক হয়। সেপ্রসঙ্গে বলা হয়েছে, দলের দুই বর্ষীয়ান নেতা জয়প্রকাশ ও প্রতাপ গোপন বৈঠক করছেন, স্ট্র্যাটেজি বানাচ্ছেন।

মঙ্গলবার দিনভর বিজেপির অন্দরে আরও নানা ঘটনা ঘটেছে। একদিকে দেখা গেল শান্তনু ঠাকুরকে তাঁর ঘনিষ্ঠদের নিয়ে বৈঠক করতে। অন্যদিকে, জয়প্রকাশ মজুমদারের বাড়িতে হাজির হলেন রাজ্য কমিটি থেকে বাদ পড়া বিক্ষুব্ধ প্রবীণ নেতারা।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা তিনটি দিক উল্লেখ করেছেন। এক, রাজ্য কমিটি থেকে বাদ পড়া তিন নেতা তৃণমূলের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন। দুই, তৃণমূল কংগ্রেসের দিকে ২৫ জন বিজেপি বিধায়ক যোগ দিতে প্রস্তুত হয়ে আছেন। তিন, শুভেন্দু অধিকারী ও সুকান্ত মজুমদারের সাংগঠনিক দক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

এই সম্পাদকীয়কে বিশেষ আমল দিতে চায় না বিজেপি। দলের বর্ষীয়ান নেতা জয়প্রকাশ মজুমদার বলেন, 'এটা ওদের দলীয় মতামত। গণশক্তিতেও সিপিএম তাদের দলীয় মতামত দিত। জাগো বাংলায় কুণাল ঘোষের নেতৃত্বে কল্পনার জাল বোনা চলছে।' এই ধরনের সংবাদপত্রের তো কোনও দায়বদ্ধতা নেই বলে পাল্টা নিশানা করেন।

এদিকে, বিজেপির সর্বভারতীয় সহ–সভাপতি দিলীপ ঘোষের নাম খবরের শিরোনামে উঠে আসছে। যে সরকারের বিরুদ্ধে তিনি দু’‌বেলা গালমন্দ করেন, সেই তিনি কিনা খড়্গপুরে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রাক্তন বিধায়কের বাড়িতে গেলেন!‌ উঠছে প্রশ্ন।

বিজেপির সর্বভারতীয় সহ–সভাপতি মঙ্গলবার দুপুরে খড়গপুরে পুরসভার প্রশাসক তথা প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়ক প্রদীপ সরকারের বাড়ি যান। সদ্য প্রয়াত হয়েছেন তাঁর মা। এদিন নিয়মভঙ্গের অনুষ্ঠানে নিমন্ত্রিতদের তালিকায় দিলীপ ঘোষ না থাকলেও তিনি যান।

এই বিষয়ে দিলীপ ঘোষকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তিনি বলেন, ‘আমি জানতে পারলাম প্রদীপ সরকারের মায়ের শ্রাদ্ধানুষ্ঠান রয়েছে। তাই সমবেদনা জানাতে গিয়েছিলাম।’ আর প্রদীপ সরকার বলেন, ‘খড়গপুর শহর রাজনীতির সৌজন্য দেখে এসেছে বারেবারে।’

প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়কের বাড়িতে দিলীপ, জাগো বাংলা'তেও দিলীপের পক্ষে সওয়াল, জল্পনা তুঙ্গে
WB BJP: শুভেন্দু-দিলীপ কিছুই করেন না, আগামী লোকসভায় ‌৩টি আসন পাবে BJP, ভাইরাল 'সৌমিত্র খাঁ'র অডিও

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in