১৫ পিওন পদে আবেদন ১১ হাজার, রয়েছেন PHD-MBA ডিগ্রিধারীরাও, কর্মসংস্থানের বেহাল দশা মধ্যপ্রদেশে

আবেদনকারীদের অধিকাংশ স্নাতক, স্নাতকোত্তর ডিগ্রিধারী। পিএইচডি-এমবিএ-ইঞ্জিনিয়ারিং পাশরাও আছেন। আইন পাশ করেছেন এবং বিচারক পদে নিয়োগ হওয়ার অপেক্ষায় আছেন, এমন অনেকেও এই চাকরির জন্য আবেদন করেছেন।
১৫ পিওন পদে আবেদন ১১ হাজার, রয়েছেন PHD-MBA ডিগ্রিধারীরাও, কর্মসংস্থানের বেহাল দশা মধ্যপ্রদেশে
চাকরি প্রার্থীদের ভিড়ছবি সৌজন্যে ট্যুইটার

১৫টি শূন্যপদের জন্য আবেদন জমা পড়েছে প্রায় ১১ হাজার! কর্মসংস্থানের এমনই অসহায় চিত্র উঠে এল বিজেপি শাসিত মধ্যপ্রদেশে। শুধু ওই রাজ্য নয়, প্রতিবেশী রাজ্য উত্তরপ্রদেশ থেকেও জমা পড়েছে আবেদন।

মধ্য প্রদেশের গোয়ালিয়রে সম্প্রতি পিওন, চালক ও নিরাপত্তারক্ষীর পদে নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। যোগ্যতা দশম শ্রেণি পাশ। কিন্তু যাঁরা আবেদন জমা দিয়েছেন, তাঁদের অধিকাংশ স্নাতক, স্নাতকোত্তর ডিগ্রিধারী। পিএইচডি-এমবিএ-ইঞ্জিনিয়ারিং পাশরাও আছেন। শুধু তাই নয়, আইন পাশ করেছেন এবং বিচারক পদে নিয়োগ হওয়ার অপেক্ষায় আছেন, এমন অনেকেও এই চাকরির জন্য আবেদন করেছেন। শনিবার ও রবিবার সেখানে প্রায় ১১ হাজার বেকার ভিড় করে আবেদন জমা দিয়েছেন।

উপস্থিত এক যুবক জানান, তিনি বিজ্ঞানে স্নাতক হলেও পিওন পদের জন্য আবেদন করেছেন। যাদের পিএইচডি ডিগ্রি রয়েছে, তারাও লাইন দিয়েছেন। অন্যদিকে, বিচারক হওয়ার পরীক্ষায় বসার অপেক্ষায় থাকা এক প্রার্থী জানিয়েছেন, 'টাকার এত অভাব যে বই কেনার টাকাও থাকে না। তাই ভাবলাম এখানে চাকরি পেয়ে গেলে অর্থকষ্ট কিছুটা দূর হতে পারে।'

স্বাভাবিকভাবেই এই চিত্রে প্রশ্ন উঠেছে শিবরাজ চৌহান সরকারের ভূমিকা নিয়ে। কয়েকদিন আগে তিনি একটি বক্তৃতায় আশ্বাস দিয়েছিলেন, 'আমরা প্রতি বছর এক লক্ষ বেকারকে চাকরি দেব। দীর্ঘ সময় ধরে ফাঁকা থাকা পদগুলি পূরণ করার চেষ্টা করা হবে। সবাই চায় সরকারি চাকরি করতে। কিন্তু সত্যিটা হল যে প্রত্যেক পড়ুয়াকে সরকারি চাকরি দেওয়া সম্ভব নয়। তবে সকলের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা হবে।'

বাস্তব চিত্রটা কিন্তু সম্পূর্ণ আলাদা। মধ্যপ্রদেশে এমপ্লয়মেন্ট রেজিস্ট্রেশন অফিসের বর্তমান তথ্য বলছে, আবেদনকারীর সংখ্যা হল ৩২ লক্ষ ৫৭ হাজার ১৩৬। রাজ্য স্কুল শিক্ষা দফতরের শূন্যপদ রয়েছে ৩০ হাজার ৬০০, স্বরাষ্ট্র দফতরে ৯ হাজার ৩৮৮, স্বাস্থ্য দফতরে ৮ হাজার ৫৯২ এবং রাজস্ব বিভাগে ৯ হাজার ৫৩০। রাজ্য সরকারের অন‍্যান‍্য বিভিন্ন দফতর মিলিয়ে প্রায় ১ লক্ষ পদ ফাঁকা।

সম্প্রতি ফুটপাথে দোকান চালুর সরকারি প্রকল্পের জন্য আবেদন করেছেন ১৫ লক্ষ জন। আবেদন নেওয়া হয়েছে মাত্র ৯৯ হাজারের। তাৎপর্যের বিষয়, আবেদনকারীদের ৯০ শতাংশই কলেজের পড়াশোনা সম্পূর্ণ করেছেন।

চাকরি প্রার্থীদের ভিড়
PM Modi: প্রধানমন্ত্রীর যাত্রাপথ নিরাপদ করতে এলো ১২ কোটির গাড়ি, জানুন এই গাড়ির বিশেষত্ব

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in