বিজেপি বিরোধী ঐক্য প্রধান লক্ষ্য, রাজ্যভিত্তিক পরিস্থিতির উপরেই নির্বাচনী সমঝোতা: CPIM

গত পার্টি কংগ্রেসের কোনও পরিবর্তন না আনার পক্ষেই গত মাসে পলিটবুরোর অধিকাংশ সদস্য মতামত দিয়েছিলেন। সেই খসড়া রিপোর্টই হায়দরাবাদে তিন দিনের কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকে অনুমোদন পায়।
বিজেপি বিরোধী ঐক্য প্রধান লক্ষ্য, রাজ্যভিত্তিক পরিস্থিতির উপরেই নির্বাচনী সমঝোতা: CPIM
হায়দরাবাদে সিপিআই(এম) -র কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠক ছবি - সিপিআই(এম) অফিসিয়াল পেজ

গণতান্ত্রিক ও ধর্মনিরপেক্ষ শক্তির ঐক্য গড়তে হবে। তারপর বিজেপির বিরুদ্ধে লড়তে হবে। সঙ্গে নিতে হবে কংগ্রেসকে। এই লাইনই ফের অনুমোদিত হল সিপিআই(এম)-র কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকে। বৈঠকে জানানো হয়েছে, নির্বাচনী সমঝোতা কোথায় কার সঙ্গে হবে, তা রাজ্যভিত্তিক পরিস্থিতির উপরেই নির্ভর করবে। উত্তরপ্রদেশে সমাজবাদী পার্টির সঙ্গে সমঝোতা করতে চায় বামেরা।

গত পার্টি কংগ্রেসের কোনও পরিবর্তন না আনার পক্ষেই গত মাসে পলিটবুরোয় অধিকাংশ সদস্য ভোট দিয়েছিলেন। সেই খসড়া রিপোর্টই হায়দরাবাদে তিন দিনের কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকে অনুমোদন পায়। তবে সাম্প্রদায়িকতা ইস্যুতে কংগ্রেসের অবস্থান ‘নরম’ হয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ ওঠে। তখন কংগ্রেসকে বাদ রেখেই বিজেপি-বিরোধী ঐক্যের কথা খসড়া রিপোর্টে রাখা হোক, এমন দাবি তোলে কেন্দ্রীয় কমিটির একাংশ। কিন্তু রবিবার তা খারিজ করে দলের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি ব্যাখ্যা দেন, জাতীয় স্তরে একগুচ্ছ বিরোধী দল বিজেপির বিরুদ্ধে আন্দোলন করছে। সেখানে কংগ্রেস নিয়ে বাছ-বিচার করার কোনও মানে নেই।

তৃণমূল কংগ্রেস এখন যে ভাবে কংগ্রেসকে প্রায় বাদ দিয়েই বিজেপির বিরুদ্ধে লড়তে চাইছে, সেই উদাহরণ তুলেছিলেন দক্ষিণ ভারতের রাজ্যগুলির নেতাদের একাংশ। কিন্তু বৈঠকে পাল্টা বলা হয়, এই ‘রেষারেষি’ করতে গিয়ে বিরোধী ঐক্যে ফাটল ধরিয়ে বিজেপির সুবিধা করে লাভ কী?

তাছাড়া, কোথায় কার সঙ্গে ভোটে সমঝোতা হবে, কোনও রাজ্য নেতৃত্বের উপরেই দল তা চাপিয়ে দেয়নি এবং দেবে না। বাংলায় তৃণমূলের সঙ্গে বামেদের সমঝোতা হবে না। উত্তরপ্রদেশে সিপিআই(এম) চায় সমাজবাদী পার্টির সঙ্গে বোঝাপড়া হোক। আবার ত্রিপুরায় বামফ্রন্টের মঞ্চ থেকেই লড়তে চায়।

কেরলের কান্নুরের ইকে নায়নার অ্যাকাডেমিতে আগামী ৬ থেকে ১০ এপ্রিল সিপিএমের ২৩ তম পার্টি কংগ্রেস হবে। কোভিড পরিস্থিতির দরুন বাংলা, মহারাষ্ট্রের হচ্ছে না। ইয়েচুরি এদিন বলেন, অভ্যন্তরীণ গণতন্ত্রের নিয়ম অনুযায়ী এই খসড়া কংগ্রেসের দু’মাস আগে প্রকাশ করতে হবে। বিজেপি এই নির্বাচনপর্বে বড় পরাজয়ের কিনারায় দাঁড়িয়ে আছে।

উত্তর প্রদেশে সিপিআই(এম) সমাজবাদী পার্টিকে সমর্থন করবে বলে জানিয়ে ইয়েচুরি বলেন, পঞ্জাবে কংগ্রেস বড় শক্তি। সিপিআই(এম) প্রথমত বামপন্থী দলগুলির সঙ্গে আলোচনা করবে। তারপর বিজেপিকে হারানোর লক্ষ্যে মাঠে নামবে। মহারাষ্ট্রে শিবসেনা-এনসিপি’র সঙ্গে কংগ্রেসও জোটে রয়েছে। অতীতেও আমরা দেখেছি কেন্দ্রীয় স্তরে জোট হয়েছে নির্বাচনের পরে, আগে নয়।

হায়দরাবাদে সিপিআই(এম) -র কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠক
SFI: লাগামছাড়া সংক্রমণ, করোনা রোগীদের জন্য টেলি-মেডিসিন পরিষেবা চালু করল CPIM-র ছাত্র সংগঠন

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in