কোনটা ‘ভুয়ো খবর’ তা নির্ধারণের ক্ষমতা একমাত্র কেন্দ্র বা PIB-র কাছে থাকতে পারে না: এডিটরস গিল্ড

গিল্ড জানিয়েছে, কোনটি ভুয়ো খবর আর কোনটা নয়, তা নির্ধারণ করার ক্ষমতা যদি নিরঙ্কুশভাবে শুধুমাত্র সরকার, সরকারি সংস্থার হাতে থাকে তা সংবাদমাধ্যমের সেন্সরশিপ-এ পরিণত হবে। যা কার্যত সংবাদমাধ্যমের কণ্ঠরোধ।
ছবি প্রতীকী
ছবি প্রতীকী গ্রাফিক্স সুমিত্রা নন্দন

আরওকেন্দ্রীয় সরকারের IT (Information & Technology) Rules -এর নয়া সংশোধনী নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে এডিটরস গিল্ড (Editors Guild of India)।

নয়া IT Rules-র খসড়ায়, কোনটি খবর আসল আর কোনটি ভুয়ো খবর, তা নির্ধারণ করার ক্ষমতা প্রেস ইনফর্মেশন ব্যুরোকে (PIB) দিতে চলেছে কেন্দ্রের তথ্য সম্প্রচার মন্ত্রক। আর, এটি কার্যকর হলে সংবাদমাধ্যমের কণ্ঠরোধ হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে গিল্ড।

বুধবার, এক বিবৃতিতে গিল্ড জানিয়েছে, ‘কোনটি ভুয়ো খবর আর কোনটা নয়, তা নির্ধারণ করার ক্ষমতা যদি নিরঙ্কুশভাবে শুধুমাত্র সরকার অর্থাৎ সরকারি সংস্থার হাতে থাকে তাহলে তা সংবাদমাধ্যমের সেন্সরশিপ-এ পরিণত হবে। যা একরকমভাবে সংবাদমাধ্যমের কণ্ঠরোধ।’

গিল্ড আরও জানিয়েছে, ‘ভুয়ো খবর বা ভুয়ো বিষয় থেকে জনতাকে সুরক্ষা দেওয়ার জন্য একাধিক আইন তৈরি করা হয়েছে। জাল খবর, ভুল খবর প্রমাণিত হলে তাকে নিয়ন্ত্রণের জন্য একাধিক পন্থা আছে। কিন্তু নয়া সংশোধিত প্রক্রিয়ায় নিরঙ্কুশ ক্ষমতা চলে যাবে PIB-এর হাতে। গণতন্ত্রের কণ্ঠরোধ সহজ হয়ে যাবে, একইসঙ্গে খর্ব হবে সংবাদ মাধ্যমের স্বাধীনতা।’

নয়া সংশোধন নিয়ে এডিটরস গিল্ড অফ ইন্ডিয়া আশঙ্কা প্রকাশ করে জানিয়েছে, 'Press Information Bureau অথবা কেন্দ্রীয় সরকারের ক্ষমতা প্রদত্ত যে কোনও এজেন্সি ফ্যাক্ট চেকের নামে সরকারের স্বার্থবিরুদ্ধ বা সরকারবিরোধী খবর মুছে ফেলতে বা তুলে নিতে অনলাইন সংবাদ মাধ্যমগুলির উপর চাপ সৃষ্টি করতে পারে।'

এছাড়াও, নয়া বিধিতে 'কেন্দ্রীয় সরকারের যে কোনো কাজের ক্ষেত্রে' শব্দগুলি সরকারকে কী ভুয়ো বা ভুয়ো নয়, তা নির্ধারণ করার জন্য নিরঙ্কুশ ক্ষমতা বলে মনে হচ্ছে। এটি সরকারের বৈধ সমালোচনাকে দমিয়ে রাখবে এবং সরকারকে জবাবদিহি করার জন্য প্রেসের যে ক্ষমতা, তার উপর বিরূপ প্রভাব পড়বে।'

এই বিবৃতিতে স্পষ্ট করে বলা হয়েছে, এই সংশোধন কার্যকর হলে বিচারবিভাগীয় হস্তক্ষেপ ছাড়া কেন্দ্রের হাতে দেশের যেকোনও প্রান্তে, যেকোনও মাধ্যমে, যেকোনও প্রকাশিত সংবাদকে ব্লক, ডিলিট বা সংশোধন করার ক্ষমতা থাকবে। একইসঙ্গে, প্রয়োজন ছাড়াই ডিজিটাল মিডিয়ার খবরে একাধিক যুক্তিহীন নিষেধাজ্ঞা জারি করার ক্ষমতাও পাবে কেন্দ্র।

তাই, সংবাদপত্রের স্বাধীনতাকে সম্মান জানাতে, নতুন সংশোধনী বাতিল এবং ডিজিটাল মিডিয়ার নিয়ন্ত্রক পরিকাঠামোর নিতে প্রেস সংস্থা, মিডিয়া সংস্থা ও অন্যান্য স্টেকহোল্ডারদের সাথে পরামর্শ শুরু করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছে এডিটরস গিল্ড অফ ইন্ডিয়াা

আরও পড়ুন

ছবি প্রতীকী
Editors Guild: টিভি চ্যানেলগুলির দায়িত্বজ্ঞানহীন আচরণে দেশের মাথা হেঁট হচ্ছে, ক্ষোভ প্রকাশ গিল্ডের
ছবি প্রতীকী
মিডিয়া নিয়ন্ত্রণে কেন্দ্রের নয়া নীতি, তীব্র অসন্তোষ প্রকাশ এডিটর্স গিল্ডের

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in