BJP: ‘পিকে-র টিমের দালাল অমিতাভ চক্রবর্তী হঠাও’ - পোস্টার পড়ল বনগাঁ লোকাল থেকে খাস কলকাতায়

দলীয় কর্মীদের একটা বড় অংশ মনে করছেন – অমিতাভ চক্রবর্তীর সঙ্গে ভোট কুশলী প্রশান্ত কিশোরের সখ্যতা আছে। পোস্টারে লেখা হয়েছে, ‘পিকে-র টিমের দালাল অমিতাভ চক্রবর্তী হঠাও, বিজেপি বাঁচাও।’
BJP: ‘পিকে-র টিমের দালাল অমিতাভ চক্রবর্তী হঠাও’ - পোস্টার পড়ল বনগাঁ লোকাল থেকে খাস কলকাতায়
অমিতাভ চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে পোস্টারছবি - সংগৃহীত

কিছুতেই থামছে না বঙ্গ বিজেপির অন্দরে ডামাডোল। এবার খোদ সাধারণ সম্পাদক (সংগঠন) অমিতাভ চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে পোস্টারে পোস্টারে ছয়লাপ বনগাঁ লোকাল থেকে খাস কলকাতা। এমনকি রাজ্য বিজেপির দপ্তর শ্যামবাজার এবং সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউ এলাকাতেও পোস্টার দেখা যায়।

দলীয় কর্মীদের একটা বড় অংশ মনে করছেন – অমিতাভ চক্রবর্তীর সঙ্গে ভোট কুশলী প্রশান্ত কিশোরের সখ্যতা আছে। পোস্টারে লেখা হয়েছে, ‘পিকে-র টিমের দালাল অমিতাভ চক্রবর্তী হঠাও, বিজেপি বাঁচাও।’ পোস্টারের নীচে লেখা, ‘সারা রাজ্যের বিজেপি বাঁচাও কর্মী এক হও।’

প্রসঙ্গত কিছুদিন আগে, বিজেপির একটি ভার্চুয়াল বৈঠকের সময় অমিতাভ চক্রবর্তীকে বলতে শোনা গিয়েছিল, পিকের টিমের এক সদস্য তাঁকে ফোনে বলেছে, দলের সংগঠন পোক্ত আছে। কিছু পরিবর্তন সেখানে প্রয়োজন। তাতেই চাঙ্গা হবে রাজ্য বিজেপি। এরপরেই বিজেপির অন্দরেই শুরু হয় বিতর্ক।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্ষোভ উগরে দেন একাধিক বিজেপি কর্মী। কেউ পোস্ট করে লেখেন– 'ভারচুয়াল বৈঠকে WB বিজেপির OGS অমিতাভ চক্রবর্তী স্বীকার করলেন যে ওনার সাথে PK টিমের যোগাযোগ আছে। বিধানসভা ভোটে হারের কারণ বুঝতে পারছেন তো?'

বিজেপির একটা অংশের মতে, এই যোগসাজশই একুশের বিধানসভা ভোটে দলের হারের অন্যতম কারণ। বিজেপির একটা অংশের সঙ্গে আইপ্যাকের যোগাযোগ রয়েছে। রাজনৈতিক মহলে এমন অভিযোগ বহুদিনের। তবে তার সূত্র ছিল, শাসকদলের নেতাদের এই সংক্রান্ত নানা মন্তব্য। কিন্তু বঙ্গ বিজেপির সংগঠন গোছানোর দায়িত্ব যাঁর হাতে, সেই ব্যক্তির মুখে আচমকা এমন বেফাঁস মন্তব্য শোনা যাবে, কে ভেবেছিল?

যদিও পোস্টার বিতর্কে বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য বলেন, এটা বিজেপি-র সংস্কৃতি নয় এবং দলের কেউ এই পোস্টারের সঙ্গে যুক্ত নন।

অমিতাভ চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে পোস্টার
BJP: প্রশান্ত কিশোরের সংস্থার সঙ্গে যোগাযোগ আছে, দলীয় বৈঠকে মুখ ফস্কে বলে ফেললেন সাংগঠনিক নেতা

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.