Karnal: এখনও অধরা সমাধান - গতকালের পর আজ ফের কৃষক ইউনিয়নের সঙ্গে বৈঠকে হরিয়ানা প্রশাসন
কার্নালে কৃষকদের অবস্থানে রাকেশ টিকায়েতছবি রাকেশ টিকায়েতের ট্যুইটার হ্যান্ডেলের সৌজন্যে

Karnal: এখনও অধরা সমাধান - গতকালের পর আজ ফের কৃষক ইউনিয়নের সঙ্গে বৈঠকে হরিয়ানা প্রশাসন

দোষী সরকারি আধিকারিকের শাস্তির দাবীতে এখনও অনড় কৃষক সংগঠনের নেতৃত্ব। শুক্রবার গভীর রাত পর্যন্ত কার্নালে মিনি সেক্রেটারিয়েটে বৈঠক চলার পরেও মীমাংসাসূত্র না বেরোনোয় আজ ফের বৈঠকে বসবে দুই পক্ষ।

আন্দোলনরত কৃষক ইউনিয়নের সঙ্গে হরিয়ানা সরকারের প্রতিনিধির বৈঠকে এখনও কোনো সমাধানসূত্র মেলেনি। দোষী সরকারি আধিকারিকের শাস্তির দাবীতে এখনও অনড় কৃষক সংগঠনের নেতৃত্ব। শুক্রবার গভীর রাত পর্যন্ত কার্নালে মিনি সেক্রেটারিয়েটে বৈঠক চলার পরেও মীমাংসাসূত্র না বেরোনোয় আজ ফের বৈঠকে বসবে দুই পক্ষ।

গতকাল তিন ঘণ্টা ধরে চলা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন হরিয়ানার অতিরিক্ত মুখ্যসচিব দেবেন্দ্র সিং এবং অন্যান্য প্রশাসনিক আধিকারিকরা। উপস্থিত ছিলেন কার্নালের ডেপুটি কমিশনার নিশান্ত যাদব। কৃষক সংগঠনগুলোর পক্ষ থেকে গুরনাম সিং চাঁদুনি ছাড়াও অন্যান্য নেতৃত্ব উপস্থিত ছিলেন। ওই বৈঠকে কোনো রফাসূত্র না বেরোনো শনিবার সকাল ৯ টায় আবারও আন্দোলনরত কৃষক ইউনিয়নগুলোর প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকে বসা হবে জানিয়েছে দুই পক্ষ।

কৃষক নেতৃত্বের পক্ষ থেকে আশা করা হয়েছে, শনিবারের বৈঠকে কৃষকদের দাবি মানা হতে পারে। ভারতীয় কিষাণ ইউনিয়নের প্রেসিডেন্ট গুরনাম সিং চাঁদুনি শুক্রবার রাতে বৈঠকের পর জানিয়েছেন, এখনও পর্যন্ত বৈঠকের গতিপ্রকৃতিতে তাঁরা আশাবাদী। তিনি বলেন, আমরা আগামীকাল আবার বৈঠকে বসছি এবং আমাদের আশা এদিনই সরকারের পক্ষ থেকে আমাদের দাবি মানার বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে।

ভারতীয় কিষাণ ইউনিয়নের হরিয়ানা ইউনিটের প্রধান রতন মান সিং জানিয়েছেন, আমরা আমাদের মূল দাবিগুলো নিয়ে সরকারের প্রতিনিধিদের সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছি। আলোচনা যথেষ্ট ইতিবাচক জায়গায় আছে এবং আমাদের আশা আগামীকাল শনিবার এই বিষয়ে সমাধানসূত্র পাওয়া যাবে।

কার্নালে কৃষকদের অবস্থানে রাকেশ টিকায়েত
Karnal: কৃষকদের অবস্থান বিক্ষোভ চতুর্থ দিনে - ইন্টারনেট সংযোগ চালু করলো হরিয়ানা প্রশাসন

যদিও এই বৈঠকের ফলাফলের ওপর নির্ভর করছে আজ বিকেলের কৃষক সংগঠনের নেতৃত্বের বৈঠক। যদি সরকারের পক্ষ থেকে কৃষকদের দাবি না মানা হয় সেক্ষেত্রে আজ বিকেলের আন্দোলনের পরবর্তী পর্যায় প্রসঙ্গে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

সংযুক্ত কিষাণ মোর্চার বক্তব্য, এস ডি এম আয়ুষ সিনহা সেদিন সরাসরি আন্দোলনরত কৃষকদের মাথা ভেঙে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন। সরকার তাকে বরখাস্ত করার পরিবর্তে পদোন্নতি ঘটায়।

আন্দোলনকারী নেতাদের দাবি আয়ুষ সিনহাকে বরখাস্ত করতে হবে এবং তার বিরুদ্ধে মামলা করতে হবে। অন্য দাবিগুলি হল, সেদিনের ঘটনায় মৃত কৃষককে ২৫লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ এবং পরিবারের একজনকে চাকরি দিতে হবে। আহত কৃষকদের দিতে হবে দু লক্ষ টাকা করে।

- with inputs from IANS

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in