Qatar World Cup: কাতার বিশ্বকাপ থেকে নিষিদ্ধ হতে পারে ইকুয়েডর!

চিলির ফুটবল সংস্থা ফিফার কাছে অভিযোগ করেন, ইকুয়েডরের হয়ে খেলা বায়রন ডেভিড কাস্তিয়োর জন্ম আদতে কলম্বিয়ায়। ইকুয়েডর ফুটবল ফেডারেশন অবৈধভাবে বিশ্বকাপের বাছাইপর্বে খেলিয়েছে কাস্তিয়োকে।
বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দু বায়রন ডেভিড
বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দু বায়রন ডেভিডছবি - সংগৃহীত

২০ ই নভেম্বর আয়োজক কাতার বনাম ইকুয়েডরের ম্যাচ দিয়ে পর্দা ওঠার কথা রয়েছে 'ফিফা বিশ্বকাপ-২০২২' - এর। তবে ইকুয়েডর আদৌ বিশ্বকাপে খেলতে পারবে কিনা তা নিয়ে তৈরি হয়েছে জল্পনা। কনমেবল অঞ্চলে বিশ্বকাপের বাছাইপর্বে নিয়ম ভেঙে অন্য দেশের খেলোয়াড় মাঠে নামিয়েছে ইকুয়েডর - ফিফার কাছে এই অভিযোগ করেছিল অ্যালেক্সিস স্যাঞ্চেজ, আর্তুরো ভিদালের দেশ চিলি। তখন অবশ্য (জুন মাসে) চিলির অভিযোগ নাকচ করে রায় দেয় ফিফা। এবার ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম 'ডেইলি মেইল' এক চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ করলো। যার ফলে ইকুয়েডরের বিশ্বকাপ খেলার রাস্তা একপ্রকার বন্ধ হওয়ার উপক্রম।

বিশ্বকাপের দু'মাস আগে এতো জলঘোলা যাকে নিয়ে তিনি হলেন বায়রন কাস্তিয়ো। চিলির ফুটবল সংস্থা ফিফার কাছে অভিযোগ করেন, ইকুয়েডরের হয়ে খেলা বায়রন ডেভিড কাস্তিয়োর জন্ম আদতে কলম্বিয়ায়। ইকুয়েডর ফুটবল ফেডারেশন সত্যকে ধামাচাপা দিয়ে অবৈধভাবে বিশ্বকাপের বাছাইপর্বে খেলিয়েছে কাস্তিয়োকে। ইকুয়েডরের এই রাইটব্যাক নিজের জন্ম প্রমাণপত্র নিয়ে জালিয়াতি করেছেন।

বৃহস্পতিবার এবিষয়ে রায় দেবে ফিফার আপিল কমিটি। তার আগেই ফিফার তদন্তে উঠে আসা জালিয়াতির বিষয়টি প্রকাশ্যে এনেছে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংবাদসংস্থা ডেইলি মেইল। এছাড়াও স্প্যানিশ সংবাদ মাধ্যম মার্কা কাস্তিয়োর কলম্বিয়ান জন্ম প্রমাণপত্রও সামনে এনেছে।

মেইল একটি অডিও প্রকাশ করেছে ২০১৮ সালের। যেখানে ইকুয়েডর ফুটবল ফেডারেশনের (এফইএফ) তদন্ত কমিশন দ্বারা পরিচালিত একটি সাক্ষাৎকারে কাস্তিয়োর বয়ান উঠে এসেছে। অডিওতে শোনা যাচ্ছে কাস্তিয়ো নিজেই স্বীকার করছেন জন্ম প্রমাণপত্র জালিয়াতির কথা।

ওই অডিও থেকে জানা গিয়েছে, কাস্তিয়ো কলম্বিয়ার নাগরিক। তাঁর কলম্বিয়ান জন্ম প্রমাণপত্রে নাম বায়ারন হাভিয়ের কাস্তিয়ো সেগুরা। ইকুয়েডরের প্রমাণপত্রে তাঁর নাম বায়ারন ডেভিড কাস্তিয়ো সেগুরা। ফুটবল ক্যারিয়ার গড়তে কলম্বিয়া ছেড়ে ইকুয়েডরের সান লরেঞ্জোতে আসেন তিনি। ২০১৯ সালে ইকুয়েডরের ফুটবল ফেডারেশন তাঁকে ইকুয়েডরিয়ন নাগরিক হিসেবে ঘোষণা করে।

ইকুয়েডর যদি কাতার বিশ্বকাপ থেকে বাদ পড়ে তবে কপাল খুলবে চিলির। কারণ কাস্তিয়োর খেলা ইকুয়েডরের ৮ ম্যাচের সম্পূর্ণ পয়েন্ট পেত বিপক্ষ দল। সেক্ষেত্রে পয়েন্ট তালিকার সেরা চারে ঢুকে যেত চিলি। তাই সাত নম্বরে থেকে বিশ্বকাপে যোগ্যতা অর্জন না করতে পারলেও শেষ বেলায় অ্যালেক্সিস স্যাঞ্চেজরা আশার আলো দেখছেন।

বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দু বায়রন ডেভিড
'আমি নির্বাচক কমিটির প্রধান হলে হার্ষালের জায়গায় শামিকে দলে রাখতাম' - শ্রীকান্ত

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in