West Bengal: কৃষক আত্মহত্যা সংক্রান্ত RTI-এর জবাব ‘ভুল’ – নিজেদের দপ্তরেই অনাস্থা রাজ্য সরকারের?

থানা ধরে ধরে আত্মঘাতী কৃষকের সংখ্যা উল্লেখ করার পর জানা গেছে, সব মিলিয়ে ২০২১ সালে আত্মঘাতী হয়েছে ১২২ জন এবং চলতি বছরে আত্মঘাতী হয়েছেন ৩৪ জন কৃষক।
প্রতীকী ছবি
প্রতীকী ছবিছবি - বিসনেস টুডে

সম্প্রতি কৃষক আত্মহত্যা সংক্রান্ত এক আরটিআই-র উত্তরে জানা গিয়েছিল ২০২১ সালে কেবল পশ্চিম মেদিনীপুর জেলাতেই আত্মঘাতী হয়েছেন ১২২ জন কৃষক। চলতি বছরেও ওই জেলাতে আত্মঘাতী কৃষকের সংখ্যা ৩৪। তবে সরকারি দপ্তর থেকে দেওয়া এই তথ্য ভুল বলে দাবি করল খোদ রাজ্য সরকার।

চলতি বছরের আগস্ট মাসে রাজ্যের কৃষক আত্মহত্যা সংক্রান্ত এনসিআরবি ২০২১-র রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে। যেখানে বলা হয়েছিল পশ্চিমবঙ্গের কোনও জেলায় ২০২১ সালে কোনও কৃষক আত্মহত্যা করেননি।

এই ঘটনার পর কৃষকদের আত্মহত্যা সংক্রান্ত তথ্য পেতে গত ৬ জুলাই RTI করেছিলেন বিশ্বনাথ গোস্বামী নামের এক RTI কর্মী। গত ২৯ জুলাই সেই RTI-এর উত্তরে তিনি জানতে পারেন - গত এক বছরে কেবলমাত্র পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় আত্মঘাতী হয়েছেন ১২২ জন কৃষক। যার মধ্যে সর্বাধিক আত্মঘাতী কৃষকের বাড়ি ঘাটালে। যেখানে ২০২১ সালে আত্মঘাতী হয়েছেন ৬৩ জন।

রাজ্য সরকার যে চিঠির মাধ্যমে উত্তর দিয়েছে তার নম্বর - ১২৫৫/ ডি অ্যান্টি/ আরটিআই সেল। চিঠিতে সরকার কৃষক আত্মহত্যার কথা স্বীকার করে নেয়। এমনকি, অশোক স্তম্ভের ছাপ যুক্ত পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার পুলিশ সুপারের প্যাডে স্টেট পাবলিক ইনফরমেশন অফিসার এবং পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার ডেপুটি সুপারের সই আছে।

থানা ধরে ধরে আত্মঘাতী কৃষকের সংখ্যা উল্লেখ করার পর জানা গেছে, সব মিলিয়ে ২০২১ সালে আত্মঘাতী হয়েছে ১২২ জন এবং চলতি বছরে আত্মঘাতী হয়েছেন ৩৪ জন কৃষক।

এই প্রসঙ্গে বৃহস্পতিবার, বিধানসভায় রাজ্যের কৃষি ও পরিষদীয় মন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় দাবি করেন, এমন তথ্য জানতে পারা মাত্রই খোঁজ নিয়েছি। জানা গেছে, এই রিপোর্ট সঠিক না। জেলা শাসককে এই বিষয়ে চিঠি দেওয়া হয়েছে।

শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়ের এই মন্তব্যে ক্ষুব্ধ সমাজ ও আইন গবেষক বিশ্বনাথ গোস্বামী। নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় একাধিক পোস্টে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তিনি। তিনি লেখেন, "দেশের ইতিহাসে এই প্রথম কোনও রাজ্য সরকার বিধানসভা কক্ষে স্বীকার করেছে, কৃষক আত্মহত্যার মতো সংবেদনশীল বিষয় নিয়ে মিথ্যা তথ্য দিয়ে মিথ্যা নথি তৈরি করে RTI আইনের অধীনে তা প্রকাশ করছে। একটা সংগঠিত অপরাধ ধামাচাপা দিতে তড়িঘড়ি আরেকটি সংগঠিত অপরাধ ঘটানো হলো। সরকারি দপ্তরে বসে স্রেফ "জালিয়াতি" করা হলো। তবে জেলার ছোটোখাটো অফিসারের হাত হলেও পেন ও কালি নবান্নের। এর কি আদৌ কোনো দরকার ছিল? হাত পুড়েছে এবার মুখটাও পুড়বে।"

প্রতীকী ছবি
WB: এক বছরে ১২২ কৃষক আত্মঘাতী কেবলমাত্র একটি জেলাতেই: RTI Report, NCRB-তে এরকম তথ্যই নেই
প্রতীকী ছবি
West Bengal: রাজ্যের দুই বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্যবিহীন - ছাত্র ভর্তি, ক্লাশ শুরুর কী হবে?
প্রতীকী ছবি
হিন্দু দেবতার মূর্তি ছোঁয়ায় ৬০০০০ টাকা জরিমানা - এবার শুধু আম্বেদকরের পুজা করব, জানালো দলিত পরিবার

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in