Mumbai Drug Case: বলিউড ব্যক্তিত্বদের থেকে হাজার কোটি টাকা আদায় - ওয়াংখেড়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ মালিকের

মন্ত্রী জানিয়েছেন যে, তিনি যে চিঠি পেয়েছেন তা মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে, রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দিলীপ পাতিল, পুলিশ কর্তা সঞ্জয় পান্ডে, কংগ্রেস সভাপতি সোনিয়া গান্ধী, রাহুল গান্ধীর কাছে পাঠিয়েছেন।
Mumbai Drug Case: বলিউড ব্যক্তিত্বদের থেকে হাজার কোটি টাকা আদায় - ওয়াংখেড়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ মালিকের
মন্ত্রী নবাব মালিক ও সমীর ওয়াংখেড়েফাইল ছবি

ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টির (এনসিপি) জাতীয় মুখপাত্র এবং মন্ত্রী নবাব মালিক মঙ্গলবার ফের এক চাঞ্চল্যকর অভিযোগে জানিয়েছেন যে, বলিউড ব্যক্তিত্বদের কাছ থেকে মুম্বাই এবং মালদ্বীপে অন্তত ১ হাজার কোটি টাকা ‘আদায়' করা হয়েছে।

নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো (এনসিবি) জোনাল ডিরেক্টর সমীর ওয়াংখেড়ের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তুলে, নবাব মালিক এজেন্সির মধ্যে একজন হুইসেল ব্লোয়ারের কাছ থেকে প্রাপ্ত একটি ৪ পৃষ্ঠার কথিত চিঠি প্রকাশ করেছেন।

মন্ত্রী জানিয়েছেন যে, তিনি যে চিঠিটি পেয়েছেন তা মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে, রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দিলীপ ওয়ালসে-পাতিল, পুলিশ মহাপরিচালক সঞ্জয় পান্ডে, কংগ্রেস সভাপতি সোনিয়া গান্ধী এবং সাংসদ রাহুল গান্ধীর কাছেও পাঠিয়েছেন।

মালিক এদিন স্পষ্ট করে জানান, "আমার লড়াই NCB-এর বিরুদ্ধে নয়... তারা গত ৩৫ বছরে ভালো কাজ করেছে... আমি এমন একজনের বিরুদ্ধে লড়ছি যে মানুষের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নিয়েছে... আমার অনুমান ১ হাজার কোটি টাকার বেশি। এনসিবি ইতিমধ্যে একটি তদন্ত শুরু করেছে এবং তাদের অবশ্যই ৪-পৃষ্ঠার চিঠিতে উত্থাপিত বিষয়গুলি খতিয়ে দেখা উচিৎ।"

কথিত চিঠিতে অবিলম্বে প্রতিক্রিয়া জানিয়ে, NCB দক্ষিণ পশ্চিম অঞ্চলের ডেপুটি ডিরেক্টর-জেনারেল, মুথা অশোক জৈন বলেছেন: "আমি চিঠিটি দেখেছি। আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।"

সোমবার সমীর ওয়াংখেড়ে জন্ম শংসাপত্র এবং তাঁর পরিবারের আনা অভিযোগগুলি খারিজ করে, মালিক তাঁর বিরুদ্ধে যে কোনও মামলা বা ফৌজদারি মানহানি দায়ের করার জন্য তাদের কাছে "খোলা চ্যালেঞ্জ" দিয়েছেন। তিনি আরও জানিয়েছেন তিনি গ্রেপ্তারের মুখোমুখি হবেন এবং বিষয়টি আদালতে উপস্থাপন করবেন।

পাল্টা আঘাত করে, ভারতীয় জনতা পার্টির একজন কর্মী মোহিত (কম্বোজ) ভারতীয় মালিকের সমালোচনা করে জানিয়েছেন, ৪ পৃষ্ঠার চিঠিটি একটি জাল, এমনকি এনসিবি সাক্ষী প্রভাকর সাইলের জমা দেওয়া হলফনামাটিও জাল। এই দুই নথি অপব্যবহারের জন্য অবিলম্বে তিনি মন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করেছেন।

মোহিত দাবি করেছেন, "মন্ত্রী প্রথম দিন থেকেই মিথ্যা বলছেন... মালিকের নির্দেশে সাইলের হলফনামা করা হয়েছিল... এনসিবি এবং বিজেপিকে হেয় করার জন্য এই সব করা হয়েছে।” তিনি সংবাদমাধ্যমের সামনে জানান, আমি আমার জীবনের জন্য ভয় পাচ্ছি এবং আমি নিরাপত্তা দাবি করছি। আমি আজ তাঁর বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করছি।

অন্যদিকে মন্ত্রী নবাব মালিক দাবি করেছেন, ওয়াংখেড়ে বেআইনিভাবে দু'জনের ফোন ট্যাপ করছে। যাঁদের একজন মুম্বাইতে এবং আরেকজন থানেতে থাকেন।

মালিক বলেন, "আমার কাছে তাঁদের সম্পূর্ণ বিবরণ আছে... এবং উপযুক্ত সময়ে আমি তা প্রকাশ করব। অফিসার কীভাবে আমার মেয়ে নীলোফার মালিকের সিডিআর বিবরণ মুম্বাই পুলিশের কাছে চেয়েছিলেন? তিনি কি অপরাধী? পুলিশ ওয়াংখেড়ের সেই দাবি প্রত্যাখ্যান করেছে।"

মন্ত্রী আবারও তাঁর অভিযোগে জানান, ওয়াংখেড়ে কেন্দ্রীয় সরকারের চাকরি পাওয়ার জন্য একটি জাল বর্ণের শংসাপত্র জমা দিয়েছেন এবং এই বিষয়ে তিনি আরও তথ্য প্রকাশ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

মালিক বলেন, "বিজেপি এটাকে হিন্দু-মুসলিম লড়াই হিসেবে দেখানোর চেষ্টা করছে... আমার ৪৫ বছরের রাজনৈতিক জীবনে আমি কখনোই ধর্মের নামে রাজনীতি করিনি এবং মানুষ এটা ভালো করেই জানে। কিন্তু ওয়াংখেড়ে জাল নথির ভিত্তিতে সংরক্ষিত কোটায় চাকরি দখল করে একজন দরিদ্র দলিতকে বঞ্চিত করেছে।”

মন্ত্রী আরও বলেন, অক্টোবরের প্রথম দিকে এই সংক্রান্ত তথ্য প্রকাশের পর থেকে, বহু মানুষ তাঁর কাছে এনসিবি সংক্রান্ত তথ্য নিয়ে আসছেন। যার মধ্যে একজন সাক্ষীও ছিলেন। যিনি বলেছিলেন যে এজেন্সি তাকে ৫০টি ফাঁকা কাগজে স্বাক্ষর করতে বাধ্য করেছে।

৪ পৃষ্ঠার চিঠির বিষয়বস্তু সম্পর্কে, মালিক বলেছেন যে এখানে প্রায় ২৬ টি বিভিন্ন মামলার বিবরণ আছে। যেখানে সংস্থাটি ইচ্ছাকৃতভাবে বহু মানুষকে ফাঁসিয়েছে এবং অর্থ আদায় করেছে।

মালিক জানান, "আমি সঠিক তদন্তের জন্য এটিকে NCB ভিজিল্যান্স কমিটির কাছে পাঠাচ্ছি এবং আশা করি প্রকৃত সত্য বেরিয়ে আসবে।"

- With IANS inputs

মন্ত্রী নবাব মালিক ও সমীর ওয়াংখেড়ে
Mumbai Drug Case: 'এখান থেকে জালিয়াতির শুরু' - সমীর ওয়ানখেড়ের জন্ম শংসাপত্র ট্যুইট করে দাবি মালিকের

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in