দেশের এই রাজ্যে সরকারি সমস্ত নথিতে মায়ের নাম বাধ্যতামূলক করা হল

People's Reporter: আবেদনকারীকে নিজের নামের পরই লিখতে হবে মায়ের নাম। তারপর থাকবে বাবার নাম লেখার জায়গা।
দেশের এই রাজ্যে সরকারি সমস্ত নথিতে মায়ের নাম বাধ্যতামূলক করা হল
প্রতীকী ছবি

অভিনব পদক্ষেপ মহারাষ্ট্র সরকারের। এবার থেকে সমস্ত নথিতে মায়ের নাম উল্লেখ করা বাধ্যতামূলক করল সে রাজ্যের সরকার। আবেদনকারীকে নিজের নামের পরই লিখতে হবে মায়ের নাম। তারপর থাকবে বাবার নাম লেখার জায়গা। মুখ্যমন্ত্রী একনাথ শিন্ডের উপস্থিতিতে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

২০১৪ সালের ১ মে বা তার পরে যারা জন্মগ্রহণ করেছে, তাদের জন্য প্রযোজ্য হবে এই নিয়মটি। আবেদনকারীদের সমস্ত সরকারী নথি যেমন জন্ম শংসাপত্র, স্কুল নথি, সম্পত্তি নথি, আধার কার্ড, প্যান কার্ড ইত্যাদির জন্য নতুন নিয়ম অনুসারে তাদের নাম নিবন্ধন করতে হবে৷ অনাথ বাচ্চাদের জন্য এই নিয়ম প্রযোজ্য নয়।

তবে বিবাহিত মহিলাদের ক্ষেত্রে এখনই নিয়ম বদল হচ্ছে না। সেক্ষেত্রে মহিলার নাম, তারপর তার স্বামীর নাম এবং তারপর পদবী রাখতে হবে।

নারী ও শিশু উন্নয়ন বিভাগ এর আগে জানানো হয়েছিল, এই সিদ্ধান্তকে মায়েদের সম্মান ও স্বীকৃতি দেওয়ার একটি গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ হিসাবে দেখা যেতে পারে। তবে রাজ্যের জনস্বাস্থ্য বিভাগকে কেন্দ্রের সঙ্গে পরামর্শ করতে বলা হয়েছে। মায়ের নাম জন্ম বা মৃত্যু নিবন্ধনে অন্তর্ভুক্ত করা যেতে পারে কিনা এ বিষয়ে কথা বলার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

এছাড়াও মহারাষ্ট্র মন্ত্রিসভায় আরও বেশ কিছু নয়া সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। মন্ত্রিসভা ৫৮ টি টেক্সটাইল মিলের শ্রমিকদের পরিবারের জন্য স্থায়ী বাড়ির একটি পরিকল্পনা অনুমোদন করেছে। যা একসময় শহরে চালু ছিল। বাড়িগুলি প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার অধীনে তৈরি করা হবে, যার জন্য রাজ্যের আবাসন বিভাগ তিন হাজার কোটি অর্থ বরাদ্দ করবে।

রাজ্য মন্ত্রিসভা ট্রান্সজেন্ডার নীতি ২০২৪ অনুমোদন করেছে। যোগ্যতার মানদণ্ড অনুযায়ী বিভিন্ন সরকারি প্রকল্পের সুবিধা পাওয়ার জন্য এই সম্প্রদায়কে সরকারী স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে।

দেশের এই রাজ্যে সরকারি সমস্ত নথিতে মায়ের নাম বাধ্যতামূলক করা হল
Electoral Bonds: পাঁচ বছরে ইলেক্টোরাল বন্ড থেকে আয়ে দ্বিতীয় তৃণমূল, কত পেয়েছে জানেন?
দেশের এই রাজ্যে সরকারি সমস্ত নথিতে মায়ের নাম বাধ্যতামূলক করা হল
Electoral Bonds: পাঁচ বছরে ইলেক্টোরাল বন্ড থেকে আয়ে দ্বিতীয় তৃণমূল, কত পেয়েছে জানেন?

GOOGLE NEWS-এ Telegram-এ আমাদের ফলো করুন। YouTube -এ আমাদের চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন।

Related Stories

No stories found.
logo
People's Reporter
www.peoplesreporter.in