Joblessness: ভারতের শহুরে নাগরিকরা সবথেকে উদ্বিগ্ন বেকারত্ব নিয়ে - সমীক্ষা
ছবি প্রতীকীগ্রাফিক্স - সুমিত্রা নন্দন

Joblessness: ভারতের শহুরে নাগরিকরা সবথেকে উদ্বিগ্ন বেকারত্ব নিয়ে - সমীক্ষা

ভারতীয় শহুরে নাগরিকরা বেকারত্ব (৪২ শতাংশ), করোনা (৩৫ শতাংশ), আর্থিক ও রাজনৈতিক দুর্নীতি (৩০ শতাংশ), দারিদ্র্য-সামাজিক বৈষম্য (২৬ শতাংশ), অপরাধ ও সহিংসতা (২৪ শতাংশ), শিক্ষা (২০ শতাংশ) নিয়ে উদ্বিগ্ন।

ভারতের শহুরে জনসাধারণের মধ্যে এই মুহূর্তে সবথেকে উদ্বেগের বিষয় বেকারত্ব। ২০২১ সালের অক্টোবরে যখন বিশ্বব্যাপী নাগরিকরা দারিদ্র্য এবং সামাজিক বৈষম্য নিয়ে বেশি চিন্তিত, সেইসময় ভারতের বিভিন্ন শহরের অধিবাসীরা বেকারত্ব নিয়ে সবথেকে বেশি উদ্বিগ্ন। ইপসস হোয়াট ওয়ারিস-এর দ্য ওয়ার্ল্ড গ্লোবাল মাসিক সমীক্ষায় এই তথ্য উঠে এসেছে।

সমীক্ষা অনুসারে, বিশ্ববাসী এবং শহুরে ভারতীয় উভয়ের জন্যই আগের মত কোভিড-১৯ নিয়ে উদ্বেগ কমে গেছে। গত ১৮ মাস ধরে বিশ্বব্যাপী নাগরিকদের (ভারত সহ ২৮টি বাজার) উদ্বেগের শীর্ষে বসেছিল কোভিড-১৯ নিয়ে উদ্বেগ।

বর্তমানে বিশ্বের অন্য দেশের তুলনায় ভারতীয় শহুরে নাগরিকরা বেকারত্ব (৪২ শতাংশ), করোনাভাইরাস (৩৫ শতাংশ), আর্থিক ও রাজনৈতিক দুর্নীতি (৩০ শতাংশ), দারিদ্র্য এবং সামাজিক বৈষম্য (২৬ শতাংশ), অপরাধ এবং সহিংসতা (২৪ শতাংশ), শিক্ষা (২০ শতাংশ) নিয়ে বেশি উদ্বিগ্ন।

বিশ্বব্যাপী নাগরিকদের মধ্যে শীর্ষ উদ্বেগের মধ্যে আছে, দারিদ্র্য এবং সামাজিক বৈষম্য (৩৩ শতাংশ), বেকারত্ব (৩০ শতাংশ), করোনাভাইরাস (২৯ শতাংশ), আর্থিক ও রাজনৈতিক দুর্নীতি (২৯ শতাংশ), অপরাধ এবং সহিংসতা (২৭ শতাংশ) ইত্যাদি।

ইপসস ইন্ডিয়ার সিইও অমিত আদারকার জানিয়েছেন, "আমাদের সবচেয়ে বড় সমস্যা হল বেকারত্ব এবং এটি বেশিরভাগ শহুরে ভারতীয়দের জন্য উদ্বেগের একটি প্রধান বিষয় হিসাবে তৈরি হয়েছে। নতুন চাকরির সৃষ্টি এবং চাকরির সম্ভাবনা তৈরির প্রত্যাশার সাথে তাল মিলিয়ে চলতে হবে। এই মুহূর্তে, যা সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। যদিও এই পরিস্থিতির মধ্যেই আনন্দের খবর, করোনাভাইরাস কমে আসায় উদ্বেগ কমার ইঙ্গিত পাওয়া গেছে। যা দ্রুত স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরতে সাহায্য করবে। ফলে চাকরির সুযোগ বাড়তে পারে। এছাড়াও দুর্নীতি এবং সামাজিক বৈষম্য দেশের নাগরিকদের জন্য অন্যতম উদ্বেগের বিষয়।"

ছবি প্রতীকী
অক্টোবরেই কাজ হারিয়েছেন ৫৫ লক্ষ শ্রমিক - রিপোর্ট

ইপসসের সমীক্ষা অনুসারে, অধিকাংশ শহুরে ভারতীয় (৬৮ শতাংশ) বিশ্বাস করে যে ভারত সঠিক পথে এগোচ্ছে। আশাবাদের দিক থেকে ভারত সৌদি আরবের পর দ্বিতীয় স্থানে আছে। সৌদি আরব সবচেয়ে বেশি আশাবাদী (৮৩ শতাংশ)।

বিশ্ব নাগরিকরা ৬৪ শতাংশ মনে করেন তাদের দেশ ভুল পথে রয়েছে এবং এই ক্ষেত্রে সবচেয়ে খারাপ দৃষ্টান্ত হল কলম্বিয়া (৯০ শতাংশ), পেরু (৮৩ শতাংশ) এবং আর্জেন্টিনা (৮২ শতাংশ)।

আদারকার জানিয়েছেন, "শহুরে ভারতীয়দের সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য দিক হল তাদের কখনও না হারার মনোভাব। দুশ্চিন্তা এবং কষ্ট সত্ত্বেও, তারা সবসময় বিশ্বাস করে যে কোনো বদল আসবে এবং তা হয়। তাঁরা কখনোই মাঝপথে হাল ছেড়ে দেয় না।"

ইপসস অনলাইন প্যানেল সিস্টেমের মাধ্যমে ‘হোয়াট ওরিস দ্য ওয়ার্ল্ড’ শীর্ষক এই সমীক্ষা চালানো হয় ২৮টি দেশে।

গত ২৪ সেপ্টেম্বর থেকে ৮ অক্টোবর পর্যন্ত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, দক্ষিণ আফ্রিকা, তুরস্ক, ইজরায়েল এবং কানাডায় ১৮-৭৪ বছর বয়সী প্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে এবং অন্যান্য সমস্ত দেশে ১৬-৭৪ বছর বয়সীদের মধ্যে মোট ২১,৫১৬ টি অনলাইন সাক্ষাৎকার নেওয়া হয়েছিল। জনসংখ্যার প্রোফাইলের সাথে মিলিয়ে এই ডেটা তৈরি করা হয়েছিলো।

- with Agency inputs

ছবি প্রতীকী
Joblessness: করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে দেশে কাজ হারিয়েছেন ১ কোটি মানুষ - সমীক্ষা CMIE-র

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in