NASA: ১৩ বিলিয়ন বছর আগের মহাকাশের ছবি প্রকাশ নাসার! নেপথ্যে তিন ভারতীয় বিজ্ঞানী

মহাকাশের এই ছবিগুলি তুলেছে NASA-র জেমস ওয়েব স্পেস টেলিস্কোপ। সেগুলির মধ্যে কয়েকটি ছবি প্রকাশ করেছে নাসা। এখন তা ইন্টারনেটে ভাইরাল।
কার্তিক শেঠ, কল্যাণী সুখাত্মে, ডা. হাশিমা হাসান
কার্তিক শেঠ, কল্যাণী সুখাত্মে, ডা. হাশিমা হাসানছবি - সংগৃহীত

ন্যাশনাল অ্যারোনটিক্স অ্যান্ড স্পেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (NASA) দ্বারা প্রকাশ করা হয়েছে মহাকাশের গভীরতম চিত্র। যা ১৩ বিলিয়ন বছর আগের ছবি। মহাকাশের এই ছবিগুলি তুলেছে NASA-র জেমস ওয়েব স্পেস টেলিস্কোপ। সেগুলির মধ্যে কয়েকটি ছবি প্রকাশ করেছে নাসা। এখন তা ইন্টারনেটে ভাইরাল। NASA-র এই চিত্রগ্রহণের নেপথ্যে রয়েছে ভারতীয় বংশোদ্ভূত তিন আমেরিকানের।

নাসা সূত্রের খবর, জেমস ওয়েব টেলিস্কোপের ডেপুটি প্রজেক্ট বিজ্ঞানী ডঃ হাশিমা হাসান, টেলিস্কোপের ‘মিড ইনফ্রারেড ইনস্ট্রুমেন্ট’-এর দায়িত্বে ছিলেন কল্যাণী সুখাত্মে ও প্রোগ্রাম বিজ্ঞানী কার্তিক শেঠও এই টেলিস্কোপের সঙ্গে যুক্ত।

ডঃ হাশিমা হাসান, উপ-প্রকল্প বিজ্ঞানী, জেমস ওয়েব স্পেস টেলিস্কোপ
ডঃ হাশিমা হাসান, উপ-প্রকল্প বিজ্ঞানী, জেমস ওয়েব স্পেস টেলিস্কোপছবি সংগৃহীত

ডা. হাশিমা হাসান :

লখনৌতে জন্মগ্রহণকারী ডা. হাশিমা হাসান (Dr Hashima Hasan) হলেন জেমস ওয়েব স্পেস টেলিস্কোপের ডেপুটি প্রজেক্ট সায়েন্টিস্ট। জেমস ওয়েব স্পেস টেলিস্কোপের ওয়েবসাইট অনুযায়ী, ডেপুটি প্রোগ্রাম সায়েন্টিস্ট হিসাবে, হাশিমা টেলিস্কোপের জন্য বিজ্ঞান প্রোগ্রাম পর্যবেক্ষণ এবং পরিচালনার কাজ করেছেন।

NASA-র প্রকাশ করা একটি ভিডিওতে, ডাঃ হাসান কীভাবে মহাকাশের বিষয়ে আগ্রহী হয়েছিলেন, তা আলোচনা করেছেন। তিনি বলেছেন, “আমি ভারতে বড় হয়েছি। আমি প্রথম মহাকাশ বিষয়ে আগ্রহী হয়েছিলাম যখন আমার দিদা আমাদের সবাইকে, স্পুটনিক দেখতে বাড়ির উঠোনে নিয়ে গিয়েছিলেন। তখন আমার বয়স ছিল মাত্র পাঁচ। তখনই আমি একজন মহাকাশ বিজ্ঞানী হতে চেয়েছিলাম,” বলেন হাসান।

আলীগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক এবং মুম্বাইয়ের টাটা ইনস্টিটিউট অফ ফান্ডামেন্টাল রিসার্চ (TIFR) থেকে পড়াশোনা করেছেন হাশিমা। তিনি ভাবা অ্যাটমিক রিসার্চ সেন্টারেও (BARC) কাজ করেছেন। পরে অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি থেকে নিউক্লিয়ার ফিজিক্সে ডক্টরেট পান হাশিমা হাসান। ডঃ হাসান ১৯৯৪ সালে নাসায় যোগদান করেন ও বেশ কয়েকটি মিশনে প্রজেক্ট বিজ্ঞানী হিসাবে কাজ করেছেন তিনি।

কল্যাণী সুখাত্মে, প্রজেক্ট ম্যানেজার, মিড-ইনফ্রারেড ইন্সট্রুমেন্ট (MIRI)
কল্যাণী সুখাত্মে, প্রজেক্ট ম্যানেজার, মিড-ইনফ্রারেড ইন্সট্রুমেন্ট (MIRI) ছবি সংগৃহীত
Summary

কল্যাণী সুখাত্মে :

কল্যাণী সুখাত্মে (Kalyani Sukhatme) হলেন মিড-ইনফ্রারেড ইন্সট্রুমেন্ট (MIRI), টেলিস্কোপের অন্যতম যন্ত্রের প্রজেক্ট ম্যানেজার। জেমস ওয়েব স্পেস টেলিস্কোপের চারটি বিজ্ঞান যন্ত্রের মধ্যে একটি। তিনি এখন নাসার জেট প্রপালশন ল্যাবরেটরি, ক্যালিফোর্নিয়া ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজিতে কাজ করেন।

মুম্বাইয়ের বাসিন্দা ছিলেন কল্যাণী। তিনি মুম্বাই IIT থেকে B.Tech পাশ করে, তিনি ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পদার্থবিদ্যায় তার স্নাতকোত্তর ও ডক্টরেট করেছেন। তিনি ১৯৯৮ সালে পোস্টডক্টরাল ফেলো হিসাবে নাসার জেট প্রপালশন ল্যাবরেটরিতে (JPL) যোগদান করেছিলেন। ২০১২ সালে ইউরোপীয় স্পেস এজেন্সি (ESA)-এর জেমস ওয়েব স্পেস টেলিস্কোপ পুরস্কার জিতেছিলেন।

কল্যাণী সুখাত্মা ২০১০ সালের এপ্রিলে JPL-এ, MIRI প্রকল্পের ব্যবস্থাপকের দায়িত্ব গ্রহণ পালন করেন। তিনি ইনফ্রারেড ডিটেক্টরের প্রযুক্তি উন্নয়ন এবং মহাকাশযান মিশনের জন্য তাদের অপারেশনেও অবদান রেখেছেন।

কার্তিক শেঠ, প্রোগ্রাম সায়েন্টিস্ট, অ্যাস্ট্রোফিজিক্স ডিভিশন, NASA
কার্তিক শেঠ, প্রোগ্রাম সায়েন্টিস্ট, অ্যাস্ট্রোফিজিক্স ডিভিশন, NASAছবি সংগৃহীত
Summary

কার্তিক শেঠ :

ভারতীয় বংশোদ্ভূত কার্তিক শেঠ (Kartik Sheth) হলেন NASA-র অ্যাস্ট্রোফিজিক্স দপ্তরের একজন প্রোগ্রাম বিজ্ঞানী। কার্তিকের বর্তমান পোর্টফোলিওতে জেমস ওয়েব স্পেস টেলিস্কোপ, সোফিয়া, স্পিটজার এবং অরিজিন স্পেস টেলিস্কোপ এবং হাবল ইত্যাদি ফেলোশিপ প্রোগ্রাম অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

NASA-র দাবি, গত সাত বছর ধরে, তিনি নাসার অ্যাস্ট্রোফিজিক্স এবং আর্থসায়েন্স উভয় বিভাগেই একজন প্রোগ্রাম সায়েন্টিস্ট, স্পেসমিশন, এবং অত্যাধুনিক প্রযুক্তিতে গবেষণা ও উন্নয়ন কর্মসূচির তদারকি করছে এবং জাতিসংঘের কিছু উন্নতির দিকে লক্ষ্যে রেখেছেন। ইউনিভার্সিটি অফ মেরিল্যান্ড থেকে অ্যাস্ট্রোফিজিক্সে M.Sc এবং PhD করেছেন কার্তিক । নাসাতে যোগ দেওয়ার আগে তিনি ক্যালটেক-এ কাজ করেছিলেন। তিনি শার্লটসভিলের ন্যাশনাল রেডিও অ্যাস্ট্রোনমি অবজারভেটরির একজন স্থায়ী বিজ্ঞানী ছিলেন কার্তিক।

২০২২ সালে, বর্ণবাদ বিরোধী অ্যাকশন গ্রুপে নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য NASA-এর বৈচিত্র্য পুরস্কার পান কার্তিক শেঠ।

কার্তিক শেঠ, কল্যাণী সুখাত্মে, ডা. হাশিমা হাসান
China: মঙ্গল গ্রহের প্রথম পূর্ণাঙ্গ ত্রিমাত্রিক মানচিত্র তৈরির দাবি চীনা মহাকাশ গবেষণা সংস্থার

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in