WB: পঞ্চায়েত ভোটে জিততে মরিয়া BJP, নিয়োগ দুর্নীতির বিরুদ্ধে আন্দোলনকারীদের প্রার্থী করার চেষ্টা

নিয়োগ দুর্নীতির বিরুদ্ধে আন্দোলনের যারা প্রধান মুখ তাঁদের পঞ্চায়েত নির্বাচনে দলের প্রার্থী করার সর্বাত্মক চেষ্টা করছে শুভেন্দু অধিকারীর দল।
ছবি - প্রতীকী
ছবি - প্রতীকীছবি সংগৃহীত

শিক্ষক নিয়োগ কেলেঙ্কারিতে কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎ হোক বা গোরু পাচার, একাধিক মামলায় জেল হেফাজতে রয়েছেন তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা-মন্ত্রীরা। এই পরিস্থিতিকে হাতিয়ার করেই আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে নয়া কৌশল নিতে চলেছে বিজেপি। নিয়োগ দুর্নীতির বিরুদ্ধে আন্দোলনের যারা প্রধান মুখ তাঁদের পঞ্চায়েত নির্বাচনে দলের প্রার্থী করার সর্বাত্মক চেষ্টা করছে শুভেন্দু অধিকারীর দল।

রাজ্য বিজেপির এক সদস্যের কথায়, ইতিমধ্যেই জেলাভিত্তিক আন্দোলনের প্রধান মুখদের চিহ্নিত করার প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গেছে। পঞ্চায়েত নির্বাচনে তাঁদের বিজেপির তরফে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার প্রস্তাব দেওয়া হবে। বেশ কিছু জেলার আন্দোলনকারীদের সাথে কথাও বলা হয়েছে।

বিজেপির লোকসভা সদস্য দেবশ্রী চৌধুরীকে আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তাঁর কথায়, "স্থানীয় এবং বুথ-স্তরের নেতৃত্বের সাথে আলোচনার পরেই প্রার্থী বাছাইয়ের বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। স্থানীয় নেতৃত্ব যদি শিক্ষক নিয়োগ কেলেঙ্কারির বিরুদ্ধে আন্দোলনের বিশ্বাসযোগ্য মুখগুলিকে মাঠে নামানোর সিদ্ধান্ত নেয়, সেক্ষেত্রে দলের হাই-কমান্ড এর বিরোধিতা করবে না।"

বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি এবং লোকসভা সাংসদ দিলীপ ঘোষের কথায়, "শিক্ষক নিয়োগ কেলেঙ্কারির বিরুদ্ধে যুবকদের স্বতঃস্ফূর্ত আন্দোলন রাজ্য জুড়ে তীব্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করেছে। আমাদের দল শুরু থেকেই আন্দোলনের পাশে রয়েছে। এখন যদি তাদের মধ্যে কেউ তৃণমূল কংগ্রেসের দুঃশাসনের বিরুদ্ধে আমাদের সংগ্রামে যোগ দিতে ইচ্ছুক হয়, তবে তাঁকে দলে স্বাগত জানানো হবে।"

অন্যদিকে বিজেপির এই পদক্ষেপকে উপহাস করে তৃণমূল নেতৃত্বের দাবি - আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার মত পর্যাপ্ত প্রার্থী দলের মধ্যে নেই, এই ব্যাপারে নিশ্চিত গেরুয়া শিবির। তাই নিজেদের সাংগঠনিক দুর্বলতাকে আড়াল করার জন্য আন্দোলনকারীদের প্রার্থী করতে মরিয়া হয়ে মাঠে নেমেছে বিজেপি।

উল্লেখ্য, ২০২১ সালে রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়া নেতাদের পাশাপাশি চলচ্চিত্র জগতের বেশ কিছু তারকাকে প্রার্থী করেছিল বিজেপি। যদিও তাদের এই পদক্ষেপ খুব বেশি কার্যকরী হয়নি। কারণ, ২৯৪ আসন বিশিষ্ট রাজ্য বিধানসভায় মাত্র ৭৭টি আসনেই দৌড় থামিয়ে দিতে হয় গেরুয়া শিবিরকে।

ছবি - প্রতীকী
রাষ্ট্রপতির শারীরিক গঠন নিয়ে কুরুচিকর মন্তব্য - তৃণমূল বিধায়কের পাশে নেই দল
ছবি - প্রতীকী
West Bengal: তৃণমূল আমলে রাজ্যের পুঞ্জীভূত ঋণ বেড়েছে ১৮২ শতাংশ

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in