পঞ্চায়েত ভোটের আগে তৃণমূল ছেড়ে CPIM এবং কংগ্রেসে যোগদানের হিড়িক

যোগদানকারীদের বক্তব্য, 'বাড়ি বাড়ি গিয়ে তৃণমূলের হয়ে আর ভোট চাইতে পারবো না। কারণ তৃণমূল দুর্নীতিগ্রস্তদের দলে পরিণত হয়েছে। বিজেপির বিরুদ্ধে তৃণমূল লড়াই করতে পারবে না। তাই সিপিআইএমে যোগদান করলাম।'
তৃণমূল ছেড়ে সিপিআইএমে যোগদান
তৃণমূল ছেড়ে সিপিআইএমে যোগদানছবি সিপিআইএম নদীয়ার ফেসবুক পেজ

গ্রামে গ্রামে তৃণমূল ছেড়ে বাম-কংগ্রেসে যোগদান বাড়ছে। নদীয়ার তেহট্টে যেমন শাসক দল ছেড়ে ৩০০ জন সিপিআইএম-এ যোগদান করলেন, তেমনই মালদহেও ফের তৃণমূলে ভাঙন ধরালো কংগ্রেস। পঞ্চায়েত ভোটের আগে এই ঘটনায় অস্বস্তিতে শাসকদল।

সাগরদিঘি উপনির্বাচন যেন অক্সিজেন যুগিয়েছে বিরোধি শিবিরে। যার প্রমাণ মিলছে মালদা, তেহট্টে। তেহট্টে তৃণমূলের পঞ্চায়েত সদস্য সহ প্রায় ৬০টি পরিবারের কর্মী সমর্থক সিপিআইএমের পতাকা হাতে তুলে নিলেন। উপস্থিত ছিলেন তেহট্টের প্রাক্তন সিপিআইএম বিধায়ক রঞ্জিত মণ্ডল।

এই ঘটনা প্রসঙ্গে সিপিআইএম নেতৃত্বের দাবি, মানুষ এখন বুঝতে পারছে তৃণমূলকে ভোট দিয়ে তারা ভুল করেছে। এত দুর্নীতি তৃণমূলে, যে ভালো মানুষদের সম্মান নেই। সাড়া বছর লড়াই করছে সিপিআইএম। তাই তেহট্টের শ্যামনগর গ্রামপঞ্চায়েত এলাকার মানুষরা সিপিআইএমে যোগদান করেছে।

যোগদানকারীদের বক্তব্য, 'বাড়ি বাড়ি গিয়ে মানুষের কাছে আর তৃণমূলের হয়ে ভোট চাইতে পারবো না। কারণ তৃণমূল দুর্নীতিগ্রস্তদের দলে পরিণত হয়েছে। বিজেপির বিরুদ্ধে তৃণমূল লড়াই করতে পারবে না। তাই সিপিআইএমে যোগদান করলাম'।

অন্যদিকে মালদহে ফের তৃণমূলের ঘর ভাঙলো কংগ্রেস। মালদহের কালিয়াচক ১ নম্বর ব্লকের নওদা যদুপুরে বহু তৃণমূল কর্মী সমর্থক কংগ্রেসের পতাকা হাতে তুলে নিলেন। যোগদান সভায় উপস্থিত ছিলেন প্রদেশ কংগ্রেস মুখপাত্র তথা আইনজীবী কৌস্তভ বাগচী। তিনি কৌস্তুভ বাগচী বলেন, "তৃণমূলের তাসের ঘর ভাঙতে শুরু করেছে। এছাড়া পশ্চিমবঙ্গ সরকারের দুজন ক্যাবিনেট মন্ত্রী আমার সাথে যোগাযোগ করেছেন। তাঁরা কংগ্রেসে আসার কথা জানাচ্ছে। বিষয়টি প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীরবাবুর কাছে এখনও পৌঁছায়নি। আমরা সেই বিষয়টা তুলে ধরবো। আর শুধু দুজন মন্ত্রীই নন, আরও দুজন সাংসদ ও বেশকিছু বিধায়ক কংগ্রেসে যোগদানের ইচ্ছা প্রকাশ করছেন। একটু সময় লাগবে শুধু।"

তিনি আরও বলেন, "পশ্চিমবঙ্গের মানুষ কিছুটা সময় বিভ্রান্ত হয়েছিল। বিজেপি এবং তৃণমূলের নকল লড়াই তারা বুঝতে পারছে। কংগ্রেস কর্মীদের মার খেতে খেতে দেওয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে। এবারে পাল্টা দেওয়ার পর্ব। আমরা হিংসার রাজনীতিতে বিশ্বাস করি না। আমাদেরকে মারলা তার পাল্টা মার কংগ্রেস কর্মীরা দেবে। রাজ্যে কংগ্রেস আবার শক্তিশালী হয়ে উঠছে।"

এর আগে গত মাসে মালদার চাঁচল ১ নং ব্লকের চন্ডীগাছি ও মতিহারপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের ছয় শতাধিক তৃণমূল কর্মী কংগ্রেসে যোগ দিয়েছিলেন। 

তৃণমূল ছেড়ে সিপিআইএমে যোগদান
উত্তর থেকে দক্ষিণ, একের পর এক সমবায় সমিতির নির্বাচনে বামেদের জয়জয়কার; তৃণমূল শূন্য
তৃণমূল ছেড়ে সিপিআইএমে যোগদান
নজরে লোকসভা ভোট, নজরদারি চালাতে আরও স্পাইওয়্যার কিনছে মোদী সরকার! সমালোচনায় সরব বাম-কংগ্রেস

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
logo
People's Reporter
www.peoplesreporter.in