“থানার সামনে গিয়ে টেবিলে পায়ের উপর পা দিয়ে বসব” - ওসিকে হুমকি TMC বিধায়ক হুমায়ুন কবীরের

হুমায়ুন কবীরের অভিযোগ, ভরতপুর থানার ওসি তাঁর বিরোধী গোষ্ঠীকে মদত দিচ্ছেন। তৃণমূল বিধায়ককে বলতে শোনা যায়, “আজ ওসিকে বলে যাব, আমি বিধায়ক। আমি এখানে শেষ কথা বলব।…
“থানার সামনে গিয়ে টেবিলে পায়ের উপর পা দিয়ে বসব” - ওসিকে হুমকি TMC বিধায়ক হুমায়ুন কবীরের
ফাইল চিত্রছবি- অফিসিয়াল পেজ

আবারও বিতর্কে ভরতপুরের তৃণমূল বিধায়ক হুমায়ুন কবীর। এবার দলীয় কর্মী সভা থেকে সরাসরি হুমকি দিলেন পুলিশকে। শুধু হুমকিই নয় ভরতপুরের ওসিকে বদলি করে দেবেন বলে হুঁশিয়ারি দিলেন তিনি। ভরতপুর থানার ওসি রাজ মুখোপাধ্যায়ের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন – “যদি ভরতপুরের ওসি থাকার ইচ্ছে থাকে, ওসি-কে বলো দালালি বন্ধ করতে। আর তা না হলে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে এখান থেকে পাততাড়ি গোটাতে বাধ্য করব। থানার সামনে গিয়ে বসব টেবিলে পায়ের উপর পা দিয়ে। তখন ঠিক বুঝতে পারবে হুমায়ুন কবীর কী জিনিস! অটোমেটিক তুমি ছেড়ে চলে যাবে।”

প্রসঙ্গত, ভরতপুরে গোষ্ঠীকোন্দলে জর্জরিত শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। হুমায়ুনের অভিযোগ, ভরতপুর থানার ওসি তাঁর বিরোধী গোষ্ঠীকে মদত দিচ্ছেন। তৃণমূল বিধায়ককে বলতে শোনা যায়, “আজ ওসিকে বলে যাব, আমি বিধায়ক। আমি এখানে শেষ কথা বলব।… যে সমস্ত লোক দলবিরোধী কাজ করেছে, যারা দলের প্রার্থীকে হারানোর চেষ্টা করতে যায়, তার জন্য কেন আমি আপোষ করতে যাব! তার জন্য ওসিকে তোমাকে দালালি বন্ধ করতে বলছি…”

হুময়ায়ুন কবীরের বিতর্কিত মন্তব্য এই প্রথম নয়। এর আগে তিনি রেজিনগরের বিধায়ক রবিউল আলম চৌধুরীকে মেরে হাড়গোড় ভেঙে দেওয়ার হুমকি দিয়েছিলেন।সেই খবর ছড়িয়ে পড়তেই তীব্র অস্বস্তিতে পরেছিল তৃণমূল। পরিস্থিতি সামাল দিতে শোকজও করা হয়েছিল তাঁকে।

উল্লেখ্য, তিনি প্রায় তিন দশক কংগ্রেস করার পর দল ছাড়েন ২০১২ সালে। যোগ দেন তৃণমূলে। তারপর আবার ফেরেন কংগ্রেসে। ২০১৮ সালে বিজেপি-তে যোগ দেন হুমায়ুন। ২০১৯ লোকসভায় বিজেপির টিকিটে লড়ে পরাজিত হন। এরপর ঠিক বিধানসভা ভোটের কয়েক মাস আগে আবার তৃণমূলে চলে আসেন এবং ভরতপুর থেকে লড়ে বিধায়ন হন।

ফাইল চিত্র
Murshidabad: 'হাড়গোড় এক করে দেব' - দলীয় বিধায়ককে হুমকি দিয়ে শোকজের মুখে তৃণমূল বিধায়ক হুমায়ুন কবীর

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in