পরিচারিকার নামেও ফ্ল্যাট! একাধিক বিলাসবহুল বাড়ি ও কোটি কোটি টাকার জমির মালিক 'দেহরক্ষী' সায়গল

বোলপুর ও নিউটাউনে সায়গলের স্ত্রী ও পরিচারিকার নামে রয়েছে ফ্ল্যাট ও জমি। এছাড়াও আরও সম্পত্তি থাকতে পারে বলে মনে করছে সিবিআই।
পরিচারিকার নামেও ফ্ল্যাট! একাধিক বিলাসবহুল বাড়ি ও কোটি কোটি টাকার জমির মালিক  'দেহরক্ষী' সায়গল
ডোমকলে সায়গলের সবুজ অট্টালিকা

গতকাল রাতে সিবিআইয়ের হাতে গ্রেফতার হয়েছেন অনুব্রত মণ্ডলের দেহরক্ষী সায়গল হোসেন। গরু পাচার মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকা হয়েছিল তাঁকে। জেরার সময় তাঁর বয়ানে অসঙ্গতি মেলে। সিবিআই সূত্রে খবর আয়ের সাথে সম্পত্তির হিসেব দেখাতে পারেননি সায়গল। এরপরই গ্রেফতার করা হয় তাঁকে।

সায়গল গ্রেফতার হতেই আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে তাঁর সম্পত্তি। কত সম্পত্তি রয়েছে দেহরক্ষী সায়গলের? সূত্রের খবর, তিনটি বিলাসবহুল বাড়ি, কোলকাতা-বোলপুরে একাধিক ফ্ল্যাট ছাড়াও কয়েক কোটি টাকার জমি রয়েছে তাঁর নামে। এই লাগামহীন সম্পত্তির সাথে গরুপাচার কাণ্ডের যোগ থাকতে পারে বলে মনে করছে সি.বি.আই।

মুর্শিদাবাদ জেলার ডোমকল থানার অন্তর্গত মালিথাপাড়ায় সায়গল হোসেনের আসল বাড়ি। সায়গল ওরফে ববিনকে সেখানে একডাকে চেনেন সবাই। বাড়িতে খুব বেশি থাকা হত না সায়গলের। তবে গ্রামের মাঝে ববিনের ‘সবুজ অট্টালিকা’ সবাই চেনেন। এলাকাবাসী মারফত খবর, সবুজ অট্টালিকা ছাড়াও এই ডোমকলেই আরও দুটি বাড়ি রয়েছে তাঁর। ৫ লক্ষ টাকা শতক প্রতি দামে প্রায় ৬ কোটি টাকার সম্পত্তি রয়েছে সেহেগালের নামে। এই সবই হয়েছে গত ৮ মাসের মধ্যে। রয়েছে কয়েক কোটি টাকার সোনা। কনস্টেবলের চাকরি করা ববিনের এই পরিমাণ সম্পত্তি দেখে অবাকই হন এলাকাবাসী, কিন্তু তা নিয়ে কৌতূহল প্রকাশ করেনি তাঁরা।

সম্প্রতি সায়গলের এই সবুজ অট্টালিকাতে তল্লাশি চালায় সিবিআই আধিকারিকরা। সূত্রের খবর, সেখানে সায়গলের নামে একাধিক অ্যাকাউন্ট, একাধিক জমির দলিল পাওয়া গিয়েছে, যার সঙ্গে তাঁর বেতনের কোনও সামঞ্জস্য নেই। প্রায় ৭০ কেজি সোনার গহনাও পাওয়া গেছে বলে জানা গেছে। এরপরই তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করা হয়। সেখানে বয়ানে অসঙ্গতি থাকায় গ্রেফতার করা হয় তাঁকে।

আরও জানা গেছে, বোলপুর ও নিউটাউনে সায়গলের স্ত্রী ও পরিচারিকার নামে রয়েছে ফ্ল্যাট ও জমি। এছাড়াও আরও সম্পত্তি থাকতে পারে বলে মনে করছে সিবিআই। সিবিআই সূত্রের খবর, গরুপাচার কাণ্ডের মূল অভিযুক্ত এনামুল হক অফিসারদের জানিয়েছেন, এই পাচার কাণ্ডে বীরভূমকে ব্যবহার করতে সায়গলকে মোটা পরিমাণের টাকা দিতে হত।

সায়গল আপাতত সিবিআই হেফাজতে। এবার তদন্তের পর কী তথ্য উঠে আসে সেটাই দেখার।

উল্লেখ্য, গরু পাচার মামলায় অনুব্রত মণ্ডলকেও একাধিকবার তলব করেছে সিবিআই। তাঁর দেহরক্ষী সাইগল হোসেনকে এর আগেও জিজ্ঞাসাবাদ করেছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। সায়গলের বিরুদ্ধে অভিযোগ, অনুব্রত মণ্ডলের কালো টাকার একটা বড় অংশ গচ্ছিত আছে তাঁর কাছে।

ডোমকলে সায়গলের সবুজ অট্টালিকা
দুর্ঘটনার কবলে CBI-এর মুখোমুখি হওয়া অনুব্রতর দেহরক্ষীর গাড়ী, মৃত ২, উঠছে চক্রান্ত তত্ত্ব

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in