Durgapur: দুর্গাপুর ইস্পাত কারখানায় বিস্ফোরণ! অগ্নিদগ্ধ হয়ে মৃত ১ শ্রমিক, আশঙ্কাজনক আরও ৩

সকাল ১০টা ৪৫মিনিট নাগাদ বিস্ফোরণ ঘটে দুর্গাপুর স্টিলপ্ল্যান্টের ২ নম্বর ব্লাস্ট ফার্নেসে। বিস্ফোরণের পরেই হট ল্যাডেল উলটে গিয়ে গরম লোহা ওই চার শ্রমিকের গায়ে পড়ে।
গরম লোহা (বামদিকে) ও ফার্নেস
গরম লোহা (বামদিকে) ও ফার্নেসগ্রাফিক্স - সুমিত্রা নন্দন

দুর্গাপুর স্টিলপ্ল্যান্টে দুর্ঘটনায় প্রাণ হারালেন এক ঠিকা শ্রমিক। আরও ৩ জন আহত হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। প্রত্যেকের অবস্থাই আশঙ্কাজনক। তাঁদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। মৃত শ্রমিকের নাম পল্টু বাউড়ি বলে জানা গেছে।

বিভিন্ন স্টিলপ্ল্যান্ট কারখানায় ফার্নেসে বিস্ফোরন হয়। কোম্পানিকে যার জেরে ক্ষতির সম্মুখীনও হতে হয়। এবার সেই রকমই এক বিস্ফোরণ সকাল ১০টা ৪৫মিনিট নাগাদ ঘটে দুর্গাপুর স্টিলপ্ল্যান্টের ২ নম্বর ব্লাস্ট ফার্নেসে হয়। বিস্ফোরণের পরেই গরম ল্যাডেল উলটে গিয়ে গরম লোহা ওই চার শ্রমিকের গায়ে পড়ে।

কারখানা সূত্রে খবর, ঠিকা শ্রমিক পল্টু বাউড়ির গোটা শরীরেই গরম লোহা এসে পড়ে। ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান। বাকি তিন শ্রমিক প্রশান্ত গোপ, প্রশান্ত বন্দ্যোপাধ্যায় ও গোপীরাম গুরুতর জখম অবস্থায় এক বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি রয়েছেন।

সকলেই পার্মানেন্ট ওয়ে ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে মর্ডান টেকনোলোজি সংস্থার অধীনে কাজ করছিলেন। দুর্গাপুর স্টিলপ্ল্যান্টের সিটু (CITU) নেতা বলেন, অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা। রেললাইন মেরামতির কাজ করছিলেন শ্রমিকেরা। হঠাৎ এমন ঘটনা ঘটে।

শ্রমিক সংগঠনগুলির পক্ষ থেকে কারখানা কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগ আনা হচ্ছে। শ্রমিকদের নিরাপত্তা নিয়েও একাধিক প্রশ্ন তুলছেন তাঁরা। অন্যদিকে কারখানা সূত্রে জানা যাচ্ছে সমস্ত ঘটনার তদন্ত করা হবে।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালেও ফার্নেস ফেটে গুরুতর আহত হয়েছিলেন ৫জন। ৫ জনের মধ্যে ২ জন স্থায়ী শ্রমিক ও ৩ জন ঠিকা শ্রমিক ছিলেন। ২০১৯ সালেও এই ধরণের দুর্ঘটনা ঘটে। শ্রমিকরা অভিযোগ করেছিলেন মেরামতি ঠিক মতো না হওয়ায় বার বার দুর্ঘটনা ঘটছে।

গরম লোহা (বামদিকে) ও ফার্নেস
কলেজ বন্ধ রেখে দুয়ারে সরকারের ক্যাম্প! জানেই না পড়ুয়ারা, প্রতিবাদে সরব SFI

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in