বিজেপি থেকে সবাই তৃণমূলে ফিরবেন: সৌগত রায়

সৌগত রায় বলেন, তৃণমূল তাঁদের দলে নেবে কি না তা শীর্ষ নেতৃত্ব ঠিক করবে। কিন্তু আগামীদিনে তৃণমূলেই ফিরবেন সবাই। বিজেপির অন্দরে রক্তক্ষরণ চলছে।
বিজেপি থেকে সবাই তৃণমূলে ফিরবেন: সৌগত রায়
সৌগত রায়ফাইল চিত্র - সংগৃহীত

বিজেপির অন্দরে রক্তক্ষরণ চলছে। তৃণমূল থেকে যাঁরা বিজেপিতে গিয়েছিলেন, ধীরে ধীরে সব নেতাই ফিরে আসবে । নিদান দিয়ে দিলেন তৃণমূলের প্রবীণ নেতা তথা সাংসদ সৌগত রায়। দল এরপর কী করবে? সৌগতর স্পষ্ট জবাব, তৃণমূল তাঁদের দলে নেবে কি না তা শীর্ষ নেতৃত্ব ঠিক করবে। কিন্তু আগামীদিনে তৃণমূলেই ফিরবেন সবাই।

বঙ্গ বিজেপিতে এখন হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ লেফট করার ধারাবাহিক পর্ব শুরু হয়েছে। অনেকেই দলীয় নীতি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন প্রকাশ্যেই। অনেকে আবার নিঃশব্দে হোয়াটস্যাপ গ্রুপ ছেড়ে দিচ্ছেন। রবিবারই দলের হোয়াটস্যাপ গ্রুপ ছাড়লেন শঙ্কুদেব পণ্ডা। প্রসঙ্গত, কোনও পদেই ছিলেন না তৃণমূল থেকে গেরুয়া শিবিরে আসা শঙ্কু। রাজনৈতিক মহলের জল্পনা, অন্য তাবড় ঘর ওয়াপসি নেতাদের মতো শঙ্কুদেবও তৃণমূলে ফিরতে পারেন। আর সেই জল্পনা আরও উস্কে দিলেন সাংসদ।

সৌগতর এই মন্তব্যকে গুরুত্ব না দিয়ে বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, বিজেপির তো তবু রক্তক্ষরণ হচ্ছে, ওঁদের তো রক্তই শুকিয়ে গিয়েছে! তিনি বলেন, 'আমিও মাঝে মাঝে ভাবি গ্রুপ লেফট করি? তাহলে খবর হবে। সংবাদমাধ্যমের নজরে আসব। এর চেয়ে বেশি কিছু হবে না।' দলের অন্দরে কোনও সমস্যা তৈরি হলে সেটা ভিতরেই মিটিয়ে নেওয়া ভালো বলে জানান তিনি।

অন্যদিকে, শঙ্কুদেবের গ্রুপ ত্যাগ নিয়ে প্রশ্ন করতেই শুভেন্দু অধিকারী বলেন, '৩৫ বছর পর্যন্ত যাদের বয়স বিজেপির যুব মোর্চা তাঁরা করবেন। শঙ্কুর ৩৫ হয়ে গিয়েছে। স্বাভাবিকভাবেই যুব মোর্চার যে কমিটি নতুন করে হচ্ছে তাতে বয়স অনুযায়ী হচ্ছে। দল হয়তো শঙ্কুকে অন্য কোথাও কাজে লাগাবে। মিডিয়া বরং কোভিড নিয়ে ভাবুক।

প্রসঙ্গত , বঙ্গ বিজেপির যুব মোর্চার সব হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ থেকে রবিবারই ‘লেফট’ করেন শঙ্কুদেব পণ্ডা। এর আগে এইভাবে গ্রুপ ত্যাগ করেছেন বিজেপির পাঁচ মতুয়া বিধায়ক, খড়গপুরের বিধায়ক হিরণ চট্টোপাধ্যায়। এমনকী খোদ সাংসদ কেন্দ্রের প্রতিমন্ত্রী শান্তনু ঠাকুরও বিজেপির সমস্ত হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ থেকে বেরিয়ে গিয়েছেন।

সৌগত রায়
BJP: শান্তনু ঠাকুরের বাড়িতে গোপন বৈঠক জয়প্রকাশ, সায়ন্তনদের - বিক্ষুব্ধরা সদলবলে তৃণমূলে!

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in