রাজ্যে ক্রমশ চোখ রাঙাচ্ছে ডেঙ্গু, বাড়ছে মৃতের সংখ্যা, দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ৩০০

গত রবিবার ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে কলকাতার এক মহিলার। ওই মহিলার নাম শর্মিলা চ্যাটার্জি (৫৯)। তিনি হরিদেবপুরের বাসিন্দা।
রাজ্যজুড়ে ডেঙ্গুর প্রকোপ
রাজ্যজুড়ে ডেঙ্গুর প্রকোপছবি - রাজ্য সরকারের স্বাস্থ্য দপ্তর

শারদ উৎসবের আগেই রাজ্যে ক্রমশ চোখ রাঙাচ্ছে ডেঙ্গু। প্রতিদিনই আক্রান্ত হচ্ছেন প্রায় শতাধিক মানুষ। সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃতের সংখ্যা। এই পরিস্থিতিতে রাজ্য সরকারের উদাসীন মনোভাবের অভিযোগ তুলে ক্ষোভ প্রকাশ করছে জনসাধারণ। গত ৭ দিনে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন প্রায় ৭০০ জন।

গত রবিবার ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে কলকাতার হরিদেবপুরের বাসিন্দা শর্মিলা চ্যাটার্জি (৫৯)। ডেঙ্গু আক্রান্ত হওয়ার পর প্রথমে তাঁকে টালিগঞ্জ এলাকার একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় ঢাকুরিয়ার একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই রাতে মৃত্যু হয় তাঁর।

স্বাস্থ্য দপ্তরের পরিসংখ্যান থেকে জানা গেছে, দৈনিক রাজ্যে ডেঙ্গু আক্রান্ত হচ্ছেন প্রায় ৩০০ জন। তার মধ্যে শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় অন্তত ৯০-১০০ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করতে হচ্ছে। টেস্টের নিরিখে দিনে প্রায় ১০-১১ শতাংশ ডেঙ্গু ধরা পড়ছে রাজ্যে।

স্বাস্থ্য দপ্তরের তথ্য বলছে, শুধু গত শনিবারেই রাজ্যে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন ২৯২ জন। তার মধ্যে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছে ৯১ জনকে। জলপাইগুড়িতে ১৬ জন, মুর্শিদাবাদে ১৬ জন, উত্তর ২৪ পরগণায় ১৫ জন, হুগলিতে ১২ জন এবং হাওড়ায় ৯ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছে। এছাড়াও ডেঙ্গুর প্রকোপে অন্যান্য জেলাগুলিতেও দু-একজন করে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

অন্যদিকে, শনিবার রাজ্যজুড়ে এলাইজা টেস্ট হয়েছে মোট ২৭৫৮টি। এর মধ্যে সরকারি পরীক্ষাগারে টেস্ট হয়েছে ২১৯১টি। বেসরকারি পরীক্ষাগারে টেস্টের সংখ্যা ৫৬৭টি।

চিকিৎসকদের মতে, গত দু'মাসের মধ্যে ডেঙ্গুর প্রকোপ বেড়েছে সবচেয়ে বেশি। গত দু'সপ্তাহেই প্রায় ২০০০-র ওপর মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন।

জেলাগুলির পাশাপাশি কলকাতাতেও ক্রমশ ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে ডেঙ্গু। পুরসভা সূত্রের খবর, জানুয়ারী-সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত প্রায় ৭০০ জন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছে কলকাতায়। অন্যদিকে, ম্যালেরিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩ হাজারের বেশি। কয়েকদিন আগেই খোদ মেয়রের ওয়ার্ডে ডেঙ্গুতে এক কিশোরের মৃত্যুর খবর প্রকাশ্যে এসেছে। কলকাতা পুরসভার ৮১, ৮২, ১০৬ নম্বর ওয়ার্ডে ডেঙ্গুর প্রকোপ সবচেয়ে বেশি বলে জানানো হয়েছে।

এই পরিস্থিতিতে সরকারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করছে সাধারণ মানুষ। তাঁদের অভিযোগ, সরকার কোনও সুরাহা করছে না। পরিস্থিতির উপর নজর রাখা হচ্ছে বলে দায় সেরেছে স্বাস্থ্য দপ্তর। তাঁদের আরও বক্তব্য, যদি সঠিক ব্যবস্থা নেওয়া যেত তাহলে ডেঙ্গু মোকাবিলায় প্রশাসন সফল হত।

তাঁদের আরও অভিযোগ, রাস্তার পাশের গর্ত, ভাঙা জায়গা, পরিত্যক্ত বাড়ি ও জমা জল থেকে ডেঙ্গুর লার্ভা জন্ম নেয় বলে বারবার জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। তা সত্ত্বেও, এলাকা পরিষ্কার ও নালা-নর্দমা সংস্কারের কোনও উদ্যোগ সরকারের তরফে দেখা যায়নি।

রাজ্যজুড়ে ডেঙ্গুর প্রকোপ
কোনও DA বাকি নেই - পুজো অনুদান মামলায় হাইকোর্টে হলফনামা পেশ রাজ্যের, মামলাকারীর জরিমানার আর্জি

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in