পার্থ-ঘনিষ্ঠ মোনালিসাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের পদ থেকে অপসারণের দাবিতে বিক্ষোভ CPIM-র

নিয়োগ দুর্নীতি প্রসঙ্গে মীনাক্ষী মুখার্জি বলেছেন, "চাকরির ক্ষেত্রে দুর্নীতি, স্বজনপোষণ এবং ঘুষ দেওয়াকে প্রশ্রয় দেওয়া হয়েছে। এর পিছনে বড় চক্রান্ত আছে।
কাজি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় ঘেরাও অভিযান সিপিআইএমের
কাজি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় ঘেরাও অভিযান সিপিআইএমেরছবি সৌজন্যে ফেসবুক

শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি নিয়ে উত্তাল রাজ্য। বুধবার আন্দোলনরত চাকরিপ্রার্থীদের ধর্না ৫০০ দিন পেরিয়েছে। এই এসএসসি দুর্নীতিকে সামনে রেখেই বৃহস্পতিবার আসানসোলের কাজি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় ঘেরাও অভিযান করল সিপিআই(এম)।

আন্দোলনকারীদের অভিযোগ, ওই বিশ্ববিদ্যালয়ে বেআইনিভাবে নিয়োগ করা হয়েছে। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে অনেকগুলি দাবি পেশ করেছে সিপিআই(এম)। কলেজ শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতিতে নাম জড়িয়েছে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগীয় প্রধান মোনালিসা দাসের। পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠ মোনালিসা দাসকে বেআইনিভাবে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়োগ করা হয়েছে বলে অভিযোগ আন্দোলনকারীদের। এর আগে এই একই অভিযোগ করেছিলেন একাধিক কলেজ চাকরিপ্রার্থীরা। এ বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে চিঠিও দিয়েছিলেন তাঁরা।

বৃহস্পতিবার মিছিল করে বিশ্ববিদ্যালয়ে পৌঁছান আন্দোলনকারীরা। নেতৃত্বে ছিলেন ডিওয়াইএফআই রাজ্য সম্পাদক মীনাক্ষী মুখার্জী সহ অন্যান্যরা। পুলিশের সামনেই বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল গেট ধাক্কা দিয়ে খুলে ভিতরে প্রবেশ করেন বিক্ষোভকারীরা। এরপর আরও একটি গেট খোলার চেষ্টা করেন তাঁরা। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ে পরীক্ষা চলার ফলে ওই গেট খুলতে তাঁদের বাধা দেওয়া হয়। এর ফলে চরম উত্তেজনার সৃষ্টি হয় বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে।

নিয়োগ দুর্নীতি প্রসঙ্গে মীনাক্ষী মুখার্জি বলেছেন, "চাকরির ক্ষেত্রে দুর্নীতি, স্বজনপোষণ এবং ঘুষ দেওয়াকে প্রশ্রয় দেওয়া হয়েছে। এর পিছনে বড় চক্রান্ত আছে। বড় চক্রান্তের খেই কিছুটা ধরা গিয়েছে। সেই খেই ধরে টান দিলে সরকারটা পড়ে যাবে। মোনালিসা ম্যাডাম কিসের ভিত্তিতে বিশ্ববিদ্যালয়ে আসছেন না? এই বিশ্ববিদ্যালয়কে চোরের বাসা করতে দেব না। পশ্চিমবঙ্গে জঙ্গলরাজ চলছে।"

বিশ্ববিদ্যালয়ে চত্বর থেকেই আগামীদিনে 'পরিচ্ছন্ন বিশ্ববিদ্যালয়' গড়ার ডাক দিয়েছেন সিপিআই(এম) নেতা-নেত্রীরা। এমনকি কোদাল-বেলচা নিয়ে 'আগাছা সাফাই' অভিযানের কথাও ঘোষণা করেছে তাঁরা।

এদিন বিশ্ববিদ্যালয়ে উপস্থিত ছিলেন না উপাচার্য। সেই কারণেই বিশ্ববিদ্যালয়ের এক আধিকারিকের সাথে দেখা করে দুর্নীতির তদন্তের দাবি তুলেছেন বিক্ষোভকারীরা। এমনকি উপাচার্যকে অপসারণের দাবিও তোলা হয়েছে। এর পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের প্রধান মোনালিসা দাস সহ বেশ কিছুজন অধ্যাপকের শিক্ষাগত যোগ্যতা প্রকাশ্যে আনার দাবি জানানো হয়েছে।

কাজি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় ঘেরাও অভিযান সিপিআইএমের
WB CSC: কলেজে নিয়োগ দুর্নীতিতে পার্থ-ঘনিষ্ঠ মোনালিসা! সরকারকে ১২২ জনের তথ্য দিল চাকরি প্রার্থীরা

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in