‘অনেকেই স্কুলে না গিয়ে বেতন নেন, এটা তুচ্ছ ঘটনা’ - অনুব্রত কন্যা প্রসঙ্গে মন্তব্য সৌগত রায়ের

তিনি দাবি করেন, ‘এমনিতেই যারা অনুব্রতের মেয়ে নয়, তারাও স্কুলে যায় না। এ আর নতুন কি? আমি মনে করি এটা তুচ্ছ ঘটনা।’
সুকন্যা মন্ডল ও সৌগত রায়
সুকন্যা মন্ডল ও সৌগত রায়গ্রাফিক্স - সুমিত্রা নন্দন

টেট (TET) পাস না করে চাকরী পেয়েছেন অনুব্রত কন্যা- সুকন্যা মণ্ডল। স্কুলে না গিয়েও বেতন তুলেছেন তিনি। এই অভিযোগ ঘিরে যে বিতর্কের আগুন জ্বলে উঠেছে, তাতে ঘি ঢেলেছেন তৃণমূলের প্রবীন সাংসদ সৌগত রায়।

অনুব্রত কন্যার স্কুলে না গিয়ে বেতন তোলা-কে ‘তুচ্ছ ঘটনা’ বলে দাবি করেছেন-সৌগত রায়। এক টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে তিনি দাবি করেছেন, ‘It’s a minor Issue’ অর্থাৎ, ‘এটি একটি তুচ্ছ বিষয়।‘ তাঁর মতে, ‘অনেকেই এরকম স্কুলে না গিয়ে বেতন নেন।‘

তৃণমূল সাংসদ বলেন, ‘স্কুলে না গিয়ে শিক্ষক যদি বেতন পেয়ে থাকে, তা অন্যায়। সরকার ব্যবস্থা নিক। কিন্তু, এটা মাইনর ঘটনা।‘ একইসঙ্গে তিনি দাবি করেন, ‘এমনিতেই যারা অনুব্রতের মেয়ে নয়, তারাও স্কুলে যায় না। এ আর নতুন কি? আমি মনে করি এটা তুচ্ছ ঘটনা- ট্রাইফেলিং ম্যাটার (trifling matter)। Should not be taken seriously at all।‘

প্রসঙ্গত, সৌগত রায় শুধুমাত্র একজন তৃণমূল সাংসদ বা রাজনীতিবিদ নন। তিনি একাধারে প্রাক্তন অধ্যাপক। কলকাতার আশুতোষ কলেজের অবসরপ্রাপ্ত পদার্থবিদ্যার অধ্যাপক। তাঁর মুখেই অনুব্রত কন্যা প্রসঙ্গে এহেন মন্তব্য নতুন করে বিতর্কের জন্ম দিয়েছে।

বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ পবিত্র সরকার বলেন, ‘আমি তো অবাক হয়েছি সৌগত বাবুর মুখ থেকে এই কথাটি শুনে। কেননা, আমি জানি সৌগত বাবু খুব ভালো শিক্ষক ছিলেন। এবং তাঁর ছাত্রছাত্রীরা তাঁর পড়ানোর সুনাম করেন।‘

এরপরেই তিনি জানান, ‘তুচ্ছ ঘটনা বলাটা - এখন একটা অভ্যাস হয়ে গেছে, এক বিশেষ দলের নেতানেত্রীদের। তার ফলে শিক্ষাতাকেও তুচ্ছ করে দেওয়া হচ্ছে। এবং শিক্ষার মধ্যে মূল্যবোধগুলিকে ধ্বংস করা হচ্ছে।‘

শিক্ষাবিদ পবিত্র সরকার বলেন, ‘এটা পরিকল্পিত কিনা আমি জানি না। কিন্তু আমি খুব দুঃখিত এবং ব্যাথিত হয়েছি; যখন সৌগত এই ঘটনাকে তুচ্ছ ঘটনা বললেন। এবং তার ফলে মনে হয়, শাসক দলের শিক্ষার প্রতি একটা দৃষ্টিভঙ্গি প্রকাশিত হয়েছে- যেটা খুব বাঞ্ছনীয় দৃষ্টিভঙ্গি নয়।’

সুকন্যা মন্ডল ও সৌগত রায়
Corruption: দুর্নীতি ইস্যুতে বিক্ষোভ যত বাড়ছে, ততই শব্দ ব্যবহারে নিয়ন্ত্রণ হারাচ্ছেন তৃণমূল নেতৃত্ব

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in