শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে মিথ্যা প্রচার করলে কঠোর ব্যবস্থা - আদালত অবমাননাকারীদের কড়া হুঁশিয়ারি গাঙ্গুলির

তিনি সাফ জানিয়ে দিলেন এবার থেকে যাঁরা নিয়োগ সংক্রান্ত বিষয় বিচারব্যবস্থাকে অবমাননা করবেন বা মিথ্যা দোষ দেবেন তাঁদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া হবে।
বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়
বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়গ্রাফিক্স - সুমিত্রা গাঙ্গুলি

নিন্দুকদের কড়া হুঁশিয়ারি দিলেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। তিনি বলেন, যাঁরা শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে আদালতের নামে মিথ্যা দোষারোপ করছেন, তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

রাজ্যের একাধিক প্রভাবশালী ব্যক্তিরা শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে বারবার আঙুল তুলেছেন আদালতের দিকে। বিচারপতি অভিজিৎ গাঙ্গুলির সমালোচনাও করেছেন। অনেকে বলেছেন, আদালতের জন্যই নিয়োগ বন্ধ হয়ে আছে। সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানকে এইভাবে কলুষিত হতে দেখে বেজার ক্ষুব্ধ হয়েছেন বিচারপতি। তিনি সাফ জানিয়ে দিলেন, এবার থেকে যাঁরা নিয়োগ সংক্রান্ত বিষয় বিচারব্যবস্থাকে অবমাননা করবেন বা মিথ্যা দোষ দেবেন তাঁদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

অভিজিৎ গাঙ্গুলি আদালতের বিরুদ্ধে মিথ্যা প্রচারের জন্য স্বতঃপ্রণোদিত মামলা দায়ের করেছেন। এর পাশাপাশি তিনি শিক্ষ দপ্তরকে শূন্যপদের সংখ্যা জানাতে বলেছিলেন। শুক্রবার শিক্ষা দপ্তর আদালতে নবম-দশম, একাদশ-দ্বাদশ, প্রধান শিক্ষক, প্রাথমিকের সমস্ত শূন্যপদের তালিকা প্রকাশ করে। যাতে দেখা যাচ্ছে মোট ২৫,৬৩০ টি শূন্যপদ রয়েছে। নবম-দশমে আছে ১৩,৮৪২ টি, একাদশ-দ্বাদশে ৫৫২৭ টি শূন্যপদ। প্রধান শিক্ষক পদ আছে মোট ২৩২৫ টি এবং প্রাথমিকে ৩৯৩৬ টি পদ খালি আছে।

উল্লেখ্য, শুক্রবার চাকরিপ্রার্থীদেরই করা একটি মামলার শুনানি চলছিল আদালতে। শুনানি চলাকালীন অভিজিৎ গাঙ্গুলি বলেন, একদিন মোমবাতি মিছিল করে বাকি দিনগুলি সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রতিবাদ করলে হয় না। তাকে আন্দোলন বলে না। আন্দোলন করবে একাংশ আর ফল পাবেন সবাই তা হয় না। যাঁরা বাড়িতে বসে থাকবেন তাঁদের কথা আদালত কেন ভাববে?

বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়
SSC Scam: রাজ্যে ফের শিক্ষক নিয়োগে দুর্নীতি! মামলার অনুমতি বিচারপতি অভিজিৎ গাঙ্গুলির

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in