BJP: গরহাজির ৬ মন্ত্রী সাংসদ - রাজ্য বিজেপির প্রশিক্ষণ শিবির ঘিরে নতুন জল্পনা

জাহাজ প্রতিমন্ত্রী শান্তনু ঠাকুর সংবাদমাধ্যমে জানান, ‘‘আমি এখন ব্যক্তিগত কাজে গুজরাতে রয়েছি। শিবিরে যাইনি। এই কাজটা আমার কাছে খুব দরকারি।’’
ছবি প্রতীকী
ছবি প্রতীকীছবি সংগৃহীত

সোমবার থেকে কলকাতার বৈদিক ভিলেজে শুরু হয়েছে রাজ্য বিজেপির প্রশিক্ষণ শিবির। তিনদিন ধরে চলবে এই প্রশিক্ষণ শিবির। যেখানে ডাকা হয়েছে দলের সব সাংসদ, বিধায়ক ও রাজ্য নেতাদের। কিন্তু শিবিরের প্রথম ও দ্বিতীয় দিনে গরহাজির বিজেপির ৬ সাংসদ, যাঁর মধ্যে তিন জন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী।

বিজেপি সূত্রের খবর, প্রশিক্ষণ শিবিরের প্রথম ও দ্বিতীয় দিনে অনুপস্থিত - বনগাঁর সাংসদ ও কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী শান্তনু ঠাকুর, কোচবিহারের সাংসদ ও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী নিশীথ প্রামাণিক, আলিপুরদুয়ারের সাংসদ ও কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী জন বার্লা, দার্জিলিংয়ের সাংসদ রাজু বিস্ত, বর্ধমান-দুর্গাপুরের সাংসদ এস এস অহলুওয়ালিয়া এবং ঝাড়গ্রামের সাংসদ কুনার হেমব্রম। শুধুমাত্র মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত শিবিরে উপস্থিত থেকেছেন কেন্দ্রীয় শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী সুভাষ সরকার।

শিবিরে অনুপস্থিত তিন প্রতিমন্ত্রীর মধ্যে জন বার্লা এবং নিশীথ প্রামাণিকের সাথে যোগাযোগ করা যায়নি। তবে জাহাজ প্রতিমন্ত্রী শান্তনু ঠাকুর সংবাদমাধ্যমে জানান, ‘‘আমি এখন ব্যক্তিগত কাজে গুজরাতে রয়েছি। তাই শিবিরে যাইনি। এই কাজটা আমার কাছে খুব দরকারি।’’

তিনি কী আমন্ত্রণ পাননি? নাকি তাঁর কাছে এই শিবির গুরুত্বপূর্ণ নয়? সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে শান্তনু বলেন, ‘‘আমন্ত্রণ পেয়েছি। কিন্তু ওখানে গিয়ে কী হবে? যাঁরা দায়িত্বে আছেন তাঁরাই করুন। আমরা তো আর পার্টির দায়িত্বে নেই। যাঁরা দায়িত্বে আছেন, তাঁরাই চালান না। তাঁরাই তো সব চালাচ্ছেন।’’ জানা গেছে, শিবিরে যোগ না দেওয়ার কথাও দলের নেতৃত্বকে জানাননি শান্তনু।

বাকি দুজন প্রতিমন্ত্রীর অনুপস্থিতি প্রসঙ্গে জিজ্ঞাসা করা হলে শান্তনু জানান, ‘‘কেউই আসবেন না। কেন আসবেন না, আমি বলতে পারব না। তবে আসবেন না।’’

প্রসঙ্গত, অতীতেও বেশ কয়েকবার 'বিতর্কিত মুখ' হতে দেখা গেছে বনগাঁর সাংসদ শান্তনু ঠাকুরকে। মন্ত্রী হওয়ার পর কলকাতার সরকারি গেস্ট হাউসে রাজ্য বিজেপির 'বিদ্রোহী' নেতাদের নিয়ে বৈঠকও করেছিলেন তিনি।

অন্যদিকে একাধিকবার 'উত্তরবঙ্গকে পৃথক রাজ্য' ঘোষণা করার দাবি তুলেছেন জন বার্লা, যে দাবির সাথে সহমত নন কলকাতার বিজেপি নেতারা। আবার সরাসরি বিতর্কে না জড়ালেও রাজ্য বিজেপির বিদ্রোহী নেতাদের সাথে দিল্লিতে বৈঠক করতে দেখা গেছে নিশীথ প্রামাণিককে। এইসব ঘটনার জেরে কার্যত অস্বস্তিতে গেরুয়া শিবির।

যদিও মন্ত্রী এবং সাংসদদের অনুপস্থিতি প্রসঙ্গে রাজ্যের শীর্ষ নেতৃত্বের কোনও মন্তব্য পাওয়া যায়নি। কারণ, শিবিরের নিয়মানুযায়ী উপস্থিত সকলেই বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া বাইরের কারোর সাথে কোনওরকম যোগাযোগ রাখছেন না।

ছবি প্রতীকী
সাভারকার ও বুলবুল পাখির প্রসঙ্গ নিয়ে তীব্র ব্যঙ্গ-বিদ্রূপ নেটিজেনদের, মিমে ছয়লাপ সোশ্যাল মিডিয়া

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in