Meghalaya: বিধায়ক পদ থেকে ইস্তফা - বিজেপির পথে মেঘালয়ের তৃণমূল বিধায়ক, সঙ্গী আরও দু'জন

সোমবার মেঘালয়ের বিধানসভা থেকে পদত্যাগ করলেন ক্ষমতাসীন ন্যাশনাল পিপলস পার্টি (এনপিপি)-র ২ বিধায়ক এবং তৃণমূলের ১ বিধায়ক।
তৃণমূল বিধায়ক এইচএম সাংপ্লিয়াং
তৃণমূল বিধায়ক এইচএম সাংপ্লিয়াংগ্রাফিক্স - সুমিত্রা নন্দন

সোমবার মেঘালয়ের বিধানসভা থেকে পদত্যাগ করলেন ক্ষমতাসীন ন্যাশনাল পিপলস পার্টি (এনপিপি)-র ২ বিধায়ক এবং তৃণমূলের ১ বিধায়ক। আর মাত্র তিন মাস বাদেই মেঘালয়ে বিধানসভা নির্বাচন। তার আগে বিধায়কদের পদত্যাগ যথেষ্ট ইঙ্গিতপূর্ণ। এই তিন বিধায়কই অতি শীঘ্র বিজেপিতে যোগ দেবেন বলে জানিয়েছেন।

মেঘালয়ের বিধানসভা কমিশনার অ্যান্ড্রু সাইমন জানান, এনপিপি বিধায়ক ফেরলিন সাংমা, বেনেডিক মারাক এবং তৃণমূল বিধায়ক এইচএম সাংপ্লিয়াং সোমবার সকালে বিধানসভার স্পিকার মেটবাহ লিংডোহের কাছে তাঁদের পদত্যাগ পত্র জমা দিয়েছেন। পদত্যাগ পত্রটি প্রায় ২ ঘণ্টা পর গৃহীত হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০২১ সালের নভেম্বরে ১১ জন বিধায়ককে নিয়ে কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিয়েছিলেন মেঘালয়ের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা বিরোধী দলনেতা মুকুল সাংমা। সেই তালিকাতেই ছিলেন মৌসিনরামের বিধায়ক সাংপ্লিয়াং। পদত্যাগী তিন বিধায়কই জানিয়েছেন, খুব শীঘ্রই বিজেপিতে যোগ দিতে তাঁরা দিল্লি সফরে যাবেন।

সাংপ্লিয়াং-র কথায়, "বিজেপিতে যোগ দেওয়ার জন্য আমরা আজ পদত্যাগ করেছি। রাজ্যের উন্নয়নের জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সাথে হাতে হাত মিলিয়ে কাজ করতে হবে। এখানকার মানুষ, বিশেষ করে কৃষক এবং যুবকদেরও উচিত প্রধানমন্ত্রীকে উন্নয়নের জন্য তাঁর প্রচেষ্টায় সমর্থন করা।"

প্রসঙ্গত, মেঘালয়ে জোট বেঁধে সরকারে রয়েছে এনপিপি ও বিজেপি। সেই পরিস্থিতিতে জোটসঙ্গীর বিধায়ক ভাঙিয়ে নিজেদের দিকে কেন টানতে চাইছে বিজেপি? বিতর্ক তুঙ্গে মেঘালয়ের রাজনৈতিক মহলে।

তৃণমূল বিধায়ক এইচএম সাংপ্লিয়াং
মহিলাদের বিরুদ্ধে অশ্লীল মন্তব্যের ৭২ ঘণ্টা পর ক্ষমা চাইলেন রামদেব
তৃণমূল বিধায়ক এইচএম সাংপ্লিয়াং
নির্বাচনী বন্ড ছাপানোর খরচ ৯.৫ কোটি, জনগণের করের টাকায় মোদী সরকারের নয়া কীর্তি!

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in