Sonia Gandhi: স্বাধীনতা আন্দোলনে নিজেদের ভূমিকা যোগ করতে ইতিহাসের পুনর্লিখন করছে BJP - সোনিয়া গান্ধী
কংগ্রেসের ১৩৭তম প্রতিষ্ঠা দিবসের অনুষ্ঠানে সোনিয়া গান্ধী ছবি আইএনসি ট্যুইটার হ্যান্ডেলের সৌজন্যে

Sonia Gandhi: স্বাধীনতা আন্দোলনে নিজেদের ভূমিকা যোগ করতে ইতিহাসের পুনর্লিখন করছে BJP - সোনিয়া গান্ধী

এদিন সোনিয়া বলেন, "বিভাজনকারী মতাদর্শগুলি ঘৃণা ও কুসংস্কারে আবদ্ধ এবং আমাদের স্বাধীনতা আন্দোলনে যার কোন ভূমিকা ছিল না, তা এখন আমাদের সমাজের ধর্মনিরপেক্ষতা বোধকে ধ্বংস করে দিচ্ছে।

স্বাধীনতা আন্দোলনে নিজেদের ভূমিকা যুক্ত করতে বিজেপি নতুন করে ইতিহাস লিখছে। কংগ্রেসের ১৩৭তম প্রতিষ্ঠা দিবসের অনুষ্ঠানে দলের অন্তর্বর্তীকালীন সভাপতি সোনিয়া গান্ধী মঙ্গলবার এই অভিযোগ করেন।

এদিন সোনিয়া বলেন, "বিভাজনকারী মতাদর্শগুলি ঘৃণা ও কুসংস্কারে আবদ্ধ এবং আমাদের স্বাধীনতা আন্দোলনে যার কোন ভূমিকা ছিল না, তা এখন আমাদের সমাজের ধর্মনিরপেক্ষতা বোধকে ধ্বংস করে দিচ্ছে। তারা নিজেদের প্রাপ্য নয় এমন একটি ভূমিকা নেবার জন্য ইতিহাসকে পুনর্লিখন করছে। তারা আবেগকে উদ্দীপ্ত করে, ভয় জাগিয়ে তুলে শত্রুতা ছড়িয়ে দিচ্ছে। আমাদের সংসদীয় গণতন্ত্রের সর্বোত্তম ঐতিহ্যকে ইচ্ছাকৃতভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করা হচ্ছে। ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস তার সর্বশক্তি দিয়ে এই ধ্বংসাত্মক শক্তির বিরুদ্ধে লড়াই চালাবে।"

যদিও সাম্প্রতিক সময়ে কংগ্রেস নির্বাচনী ক্ষতির মুখে পড়েছে কিন্তু কংগ্রেস লড়াই ছাড়বে না বলে জানিয়েছেন সোনিয়া গান্ধী। তিনি আরও বলেন, নির্বাচনী উত্থান-পতন অনিবার্য। তবে যা স্থায়ী, তা হল, বৈচিত্র্যময় সমাজের সব মানুষের সেবায় কংগ্রেস দলের প্রতিশ্রুতি।

তিনি বলেন, "আমাদের দৃঢ় সংকল্পের উপর কোন সন্দেহ থাকা উচিত নয়। আমাদের গৌরবময় উত্তরাধিকারের অংশ, আমাদের মৌলিক বিশ্বাসের সাথে আমরা কখনই আপোষ করিনি এবং করব না।"

তিনি বলেন, আজ থেকে একশত ছত্রিশ বছর আগে ভারতের জাতীয় কংগ্রেস প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। কয়েক দশক ধরে, এটি বেশ কিছু চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়েও এই দল সর্বদা তার স্থিতিস্থাপকতা প্রদর্শন করেছে। কংগ্রেস সংগঠনের আদর্শ, মূল্যবোধ ও নীতির প্রতি আত্মনিবেদন করে, যা বিংশ শতাব্দীর ভারতীয়দের মধ্যে কিছু সর্বশ্রেষ্ঠ এবং সবচেয়ে নিঃস্বার্থ ব্যক্তি দ্বারা নির্দেশিত এবং অনুপ্রাণিত হয়েছে।

এর আগে দলের সদর দপ্তরে দলীয় পতাকা উত্তোলন করেন প্রবীণ এই নেতা। পার্টির ওয়েবসাইট অনুসারে, ২৮ ডিসেম্বর, ১৮৮৫-এ, গোকুলদাস তেজপাল সংস্কৃত কলেজ, বোম্বেতে ভারতীয় জাতীয় ইউনিয়নের প্রথম অধিবেশনের জন্য ৭২ জন সমাজ সংস্কারক, সাংবাদিক এবং আইনজীবী সমবেত হন। সম্মেলনের নাম পরিবর্তন করে রাখা হয় ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস।

কলকাতায় দাদাভাই নওরোজির নেতৃত্বে কংগ্রেসের দ্বিতীয় অধিবেশন হয়। প্রতিনিধির সংখ্যা বেড়ে ৪৩৪-এ পৌঁছেছিল। অধিবেশনের শেষের দিকে, কংগ্রেস সারা দেশে প্রাদেশিক কংগ্রেস কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত নেয়।

কংগ্রেসের ১৩৭তম প্রতিষ্ঠা দিবসের অনুষ্ঠানে সোনিয়া গান্ধী
প্রধানমন্ত্রী ৮০০০ কোটি টাকার বিমানে চড়ছেন আর দেশের কৃষকরা ক্রমশ ঋণগ্রস্ত হচ্ছেন: প্রিয়ঙ্কা গান্ধী

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in