'রাজপথ' এবার 'কর্তব্যপথ' - এবার দিল্লির বুকে নামবদলের সিদ্ধান্ত প্রধানমন্ত্রীর

নয়া দিল্লির ঐতিহ্যশালী 'রাজপথ' এবং 'সেন্ট্রাল ভিস্তা লেন' অর্থাৎ নেতাজী সুভাষচন্দ্রের মূর্তি থেকে দিল্লির রাইসিনা হিলসের উপরে রাষ্ট্রপতি ভবন পর্যন্ত পুরো রাস্তাটির নতুন নামকরণ করা হবে 'কর্তব্য পথ'।
এবার দিল্লির রাজপথের নাম বদলে 'কর্তব্য পথ' রাখার সিদ্ধান্ত প্রধানমন্ত্রীর
এবার দিল্লির রাজপথের নাম বদলে 'কর্তব্য পথ' রাখার সিদ্ধান্ত প্রধানমন্ত্রীরগ্রাফিক্স - নিজস্ব

স্বাধীনতার ৭৫ বছর পূর্তিতে দিল্লির লালকেল্লা থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেছিলেন, কর্তব্য পথই জীবনের পথ হওয়া উচিত। সেইমতই এবার দিল্লির রাজপথ ও সেন্ট্রাল ভিস্তা লনের নাম বদলের সিদ্ধান্ত নিল মোদি সরকার। সোমবার কেন্দ্রের তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, বিখ্যাত এই রাস্তার নাম 'রাজপথ' থেকে বদলে 'কর্তব্য পথ' রাখা হবে।

নয়া দিল্লির ঐতিহ্যশালী 'রাজপথ' এবং 'সেন্ট্রাল ভিস্তা লেন' অর্থাৎ নেতাজী সুভাষচন্দ্রের মূর্তি থেকে দিল্লির রাইসিনা হিলসের উপরে রাষ্ট্রপতি ভবন পর্যন্ত পুরো রাস্তাটির নতুন নামকরণ করা হবে 'কর্তব্য পথ'। পাশাপাশি, ২০৪৭ সালে স্বাধীনতার ১০০ বছর পূর্তি উপলক্ষে ভারতকে 'বিশ্বগুরু' হিসেবে প্রতিষ্ঠা করার জন্য প্রধানমন্ত্রী সকল নাগরিককে নিজেদের কর্তব্য পালনের জন্য আহ্বান জানিয়েছেন। সেই কারণেও এই নতুন নামকরণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে সূত্রের খবর।

কেন্দ্রীয় আবাসন ও নগর বিষয়ক মন্ত্রক জানিয়েছে, আগামী ৮ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় সেন্ট্রাল ভিস্তা পুনর্গঠন প্রকল্পের অংশ হিসাবে বিজয় চক থেকে ইন্ডিয়া গেট পর্যন্ত প্রসারিত এলাকার উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেই জন্য নতুন করে সাজানো হচ্ছে রাজপথ ও তার দু'পাশের এলাকা। তবে রাজপথের নতুন নামকরণ তার আগেই হয়ে যাবে।

সূত্রের খবর, আগামী ৭ সেপ্টেম্বর এনডিএমসি-র তরফে রাজপথের নাম পরিবর্তনের জন্য একটি সভা ডাকা হয়েছে। প্রায় ২০ মাস পর আগামী সপ্তাহ থেকে জনসাধারণের জন্য নতুন রূপে উন্মুক্ত হবে এই রাস্তা। শহরের সবচেয়ে জনপ্রিয় জায়গা হিসেবে বিখ্যাত এই রাস্তাটি লাল গ্রানাইট পাথর দিয়ে প্রসারিত করা হয়েছে। এছাড়াও, প্রায় ১.১ লক্ষ বর্গ কিমি জুড়ে তৈরী এই রাস্তার চারধারে প্রচুর সবুজের চারাও লাগানো হয়েছে।

রাজপথের দুদিকে ১৩৩টিরও বেশি ল্যাম্পপোস্ট, ৪,০৮৭টি গাছ, ১১৪টি আধুনিক সাইনবোর্ড এবং স্টেপড বাগান রয়েছে। সেন্ট্রাল ভিস্তা অ্যাভিনিউকে ডেডিকেটেড ভেন্ডিং জোন দিয়ে নতুন করে সাজানো হয়েছে। ১৬টি রাজ্যের খাবার পাওয়া যাবে এখানে। জনসাধারণের সুবিধার্থে এবং ১০০০ টিরও বেশি গাড়ি পার্কিং-র জন্য থাকবে নতুন ব্লক।

প্রসঙ্গত, স্বাধীনতা দিবসে বক্তব্য রাখার সময় মোদী বলেছিলেন, ঔপনিবেশিক মানসিকতা ত্যাগ করতে হবে। ব্রিটিশ আমলে তৈরী এ দেশের বহু জিনিসের আবরণ, প্রতীক ইত্যাদি পাল্টে ফেলার ইঙ্গিত ছিল তাঁর কথায়। মোদির বক্তব্যের সাথে এই নতুন নামকরণ যথেষ্ট সামঞ্জস্যপূর্ণ বলে জানিয়েছে কেন্দ্রীয় আবাসন ও নগর বিষয়ক মন্ত্রক।

যদিও, দেশের বুকে ব্রিটিশদের বিভিন্ন চিহ্ন সরিয়ে ফেলার ক্ষেত্রে মোদী সরকারের এই পদক্ষেপ প্রথম না। সম্প্রতি, ভারতীয় নৌসেনার পতাকা থেকে সরিয়ে ফেলা হয়েছে সেন্ট জর্জ’স ক্রস।

তারও আগে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনের রাস্তার নাম রেস কোর্স থেকে বদলে 'লোক কল্যাণ মার্গ' করা হয়েছে। এমনকি, প্রজাতন্দ্র দিবসের পরে ‘বিটিং দ্য রিট্রিট’ অনুষ্ঠানে ‘অ্যাবাইড উইথ মি’ গানের সুর বাদ দিয়ে বাজানো হয়েছিল ‘অ্যায় মেরে ওয়াতন কে লোগো’-র সুর।

এবার দিল্লির রাজপথের নাম বদলে 'কর্তব্য পথ' রাখার সিদ্ধান্ত প্রধানমন্ত্রীর
দিনে ৪৫০ আত্মহত্যা, ভারতে ২০২১ সালে এযাবৎকালের সর্বোচ্চ আত্মঘাতী, মোট ১.৬৪ লক্ষ: NCRB রিপোর্ট

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in