দলিত নিগ্রহের প্রতিবাদে পুলিশের অনুমতি ছাড়া মিছিল, তিন মাসের জেল হেফাজত জিগনেশ মেভানীর

এর আগে নাথুরাম গডসে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং গুজরাট হিংসা নিয়ে টুইট করার অপরাধে গত ২০ এপ্রিল গুজরাট থেকে মেভানীকে গ্রেপ্তার করেছিল আসাম পুলিশ।
দলিত নিগ্রহের প্রতিবাদে পুলিশের অনুমতি ছাড়া মিছিল, তিন মাসের জেল হেফাজত জিগনেশ মেভানীর
জিগনেশ মেভানীফাইল চিত্র - সংগৃহীত

২০১৭ সালে গুজরাটের উনায় দলিতদের উপর অত্যাচারের প্রতিবাদে সহযোগীদের নিয়ে পুলিশি অনুমতি ছাড়াই "আজাদি মিছিল" করেছিলেন জিগনেশ মেভানী। বৃহস্পতিবার সেই অপরাধেই তাঁকে গ্রেপ্তার করল গুজরাট পুলিশ। তিন মাসের জেল হেফাজত দেওয়া হয়েছে গুজরাটের এই দলিত বিধায়ককে।

আরও জানা গেছে, পুলিশের অনুমতি ছাড়া মিছিল করার অপরাধে কংগ্রেস নেতা জিগনেশের সহযোগী সৌরভ পারমার, রেশমা পটেল-সহ আরও ন’জনকেও একই অপরাধের জন্য শাস্তি দিয়েছে গুজরাতের মেহসানা আদালত। দোষীদের প্রত্যেকের এক হাজার টাকা করে জরিমানাও করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এর আগে নাথুরাম গডসে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং গুজরাট হিংসা নিয়ে টুইট করার অপরাধে গত ২০ এপ্রিল গুজরাট থেকে মেভানীকে গ্রেপ্তার করেছিল আসাম পুলিশ। অসম পুলিশের এক মহিলা কনস্টেবলের সঙ্গে অশালীন আচরণ করেছেন বলেও অভিযোগ আনা হয়েছিল। কিন্তু জিগনেশের জামিন মঞ্জুর করে বরপেটার দায়রা আদালত। বিচারপতি অপরেশ চক্রবর্তী বলেছিলেন ওই মামলা মিথ্যা।

গুজরাতের উনায় দলিতদের উপর অত্যাচারের ঘটনার বর্ষপূর্তি উপলক্ষে ২০১৭ সালে মেহসানা থেকে বানসকাঁটা পর্যন্ত ‘আজাদি মিছিল’ করেছিল ‘রাষ্ট্রীয় দলিত অধিকার মঞ্চ’। সংগঠনের নেতা হিসেবে ওই কর্মসূচিতে হাজির ছিলেন জিগনেশ। কংগ্রেস নেতাদের অভিযোগ, এসব করে সুপরিকল্পিত ভাবেই ‘রাজনৈতিক প্রতিহিংসা’ মেটাতে চাইছে বিজেপি।

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার জিগনেশ অভিযোগ করেছিলেন, গুজরাটের বিধানসভা নির্বাচন এগিয়ে আসছে বলে প্রধানমন্ত্রীর দফতর, গুজরাত ও অসমের বিজেপির সরকার তাঁর বিরুদ্ধে ‘মিলিত ষড়যন্ত্র’ করছে।

জিগনেশ মেভানী
Jignesh Mevani: দলিতদের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার না হলে গুজরাট অচল করার হুঁশিয়ারি জিগনেশের

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.