নরেন্দ্র মোদী ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়
নরেন্দ্র মোদী ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ফাইল চিত্র - ডি ডি নিউজ

দিল্লি সফরে মমতা, শুক্রবার গোপন বৈঠকের সম্ভাবনা প্রধানমন্ত্রীর সাথে! কটাক্ষ বাম-কংগ্রেসের

শুক্রবার বিকেল সাড়ে চারটের সময় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সাথে বৈঠক এবং সন্ধ্যা ৬'টায় রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুর সাথে সাক্ষাৎ করার কথা আছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের।

বৃহস্পতিবার দিল্লি সফরে যাচ্ছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দিল্লি সফরের মাঝেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সাথে দেখা করার সম্ভাবনা রয়েছে তাঁর।

সূত্রের খবর, তিন-চার দিন রাজধানীতেই থাকবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুক্রবার বিকেল সাড়ে চারটের সময় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী-র সাথে তাঁর বৈঠক এবং সন্ধ্যা ৬'টায় রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মু-র সাথে সাক্ষাৎ করার কথা আছে। মূলত রবিবার, কেন্দ্রের থিঙ্ক ট্যাঙ্ক নীতি আয়োগ সংক্রান্ত বৈঠকের কারণেই দিল্লি সফরে যাচ্ছেন মমতা। কিন্তু, শনিবার উপরাষ্ট্রপতি নির্বাচনের দিন শহরেই থাকবেন তিনি।

যদিও উপরাষ্ট্রপতি নির্বাচনে ভোটদান থেকে বিরত থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তৃণমূল। উপরাষ্ট্রপতি নির্বাচনে এনডিএ পদপ্রার্থী বাংলার রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় এবং বিরোধীদের প্রার্থী হয়েছেন মার্গারেট আলভা। এ বিষয়ে তৃণমূলের বক্তব্য, মার্গারেট আলভাকে প্রার্থী করার ব্যাপারে বিরোধী দলগুলি তৃণমূলের সাথে পরামর্শ করেনি। মমতা ব্যানার্জী জানান, বেশিরভাগ তৃণমূল সাংসদ উপরাষ্ট্রপতি নির্বাচনে বিরোধীদের প্রার্থীকে সমর্থন করার বিরুদ্ধে ছিলেন।

এর আগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কেন্দ্রের নীতি আয়োগের সভাগুলি এড়িয়ে গেছেন। তাঁর অভিযোগ, কেন্দ্রীয় সংস্থাগুলি রাজ্যগুলির জন্য উপকারী কোনও পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি।

অন্যদিকে, মমতার দিল্লি সফর প্রসঙ্গে রাজ্য বিজেপির সভাপতি সুকান্ত মজুমদার এবং বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী অমিত শাহ এবং জে পি নাড্ডাকে জানান, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী যদি দিল্লিতে তৃণমূল নেত্রীর সাথে আলাদা বৈঠক করেন, সেক্ষেত্রে পশ্চিমবঙ্গের বিজেপি নেতা-কর্মীদের মনোবল আঘাত পাবে। সারা রাজ্যজুড়ে শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি নিয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে বিজেপি যে লড়ছে তা গুরুত্বহীন হয়ে যাবে। তাই তাঁদের দাবি, নরেন্দ্র মোদী যেন মমতার সাথে আলাদাভাবে দেখা না করেন।

কিন্তু রবিবার দিল্লিতে নীতি আয়োগের বৈঠকে একইমঞ্চে দেখা যেতে পারে মোদী-মমতাকে। যদিও সেই বিষয়ে কোনও বক্তব্য নেই রাজ্য বিজেপি নেতৃত্বের। সূত্রের খবর, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ জানান, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে প্রধানমন্ত্রীর কাছে সময় চেয়েছেন সে বিষয়ে উনি অবগত নন।

রাজনৈতিক সূত্র মারফত জানা গেছে, প্রথমে কথা ছিল সাংসদ সুখেন্দুশেখর রায়ের বাড়িতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শুক্রবার সন্ধ্যায় সাংবাদিকদের মুখোমুখি হবেন। সেই অনুযায়ী শুরু হয় প্রস্তুতি। কিন্তু সেই পরিকল্পনা বাতিল করে স্থির হয় যে শুক্রবার সংসদে যাবেন মমতা।

পাশাপাশি, দিল্লি সফরের মাঝেই তৃণমূল সুপ্রিমো তাঁর দলের সাংসদদের সাথে দেখা করতে পারেন। এর পাশাপাশি সংসদের কেন্দ্রীয় হল পরিদর্শন করার সম্ভাবনা আছে তাঁর। সেক্ষেত্রে বিরোধী দলগুলির সাথে সম্পর্ক মেরামত করার কোনও প্রচেষ্টা তিনি করবেন কিনা সেই নিয়ে জল্পনা বাড়ছে।

মমতার প্রধানমন্ত্রীর সাথে দেখা করার বিষয়ে ইতিমধ্যেই সরব হয়েছেন বাম-কংগ্রেস নেতৃত্ব। সারদা-নারদা কেলেঙ্কারির উদাহরণ তুলে তৃণমূল-বিজেপির আঁতাত আছে বলে আগে থেকেই অভিযোগ তুলেছে বিরোধীরা।

নরেন্দ্র মোদী ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়
Malda: তৃণমূল-বিজেপির সমঝোতাই পঞ্চায়েত স্তরের লাগামহীন দুর্নীতিতে মদত দিচ্ছে - সূর্যকান্ত মিশ্র

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in