সাভারকার বিতর্কের মাঝেই কংগ্রেসের Bharat Jodo Yatra-য় রাহুলের পাশে গান্ধীজির প্রপৌত্র

রাহুল গান্ধী এবং তুষার গান্ধীর একটি ছবি শেয়ার করে কংগ্রেস জানিয়েছে, ইতিহাস সাক্ষী রয়েছে, গান্ধী-নেহেরু সর্বদা দেশকে সংকটের হাত থেকে রক্ষা করতে একত্রিত হয়েছেন।
রাহুল গান্ধী এবং তুষার গান্ধী
রাহুল গান্ধী এবং তুষার গান্ধীছবি সৌজন্যে কংগ্রেসের টুইটার হ্যান্ডেল

বিনায়ক দামোদর সভারকর সম্পর্কে অবমাননাকর মন্তব্য করার অভিযোগে কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধীর নামে ইতিমধ্যেই মামলা করেছেন সাভারকারের নাতি রঞ্জিত সাভারকার। এরই মাঝে শুক্রবার কংগ্রেসের 'ভারত জোড়ো যাত্রা' কর্মসূচীতে পা মেলালেন মহাত্মা গান্ধীর প্রপৌত্র তথা বিশিষ্ট লেখক এবং সমাজকর্মী তুষার গান্ধী। রাহুল গান্ধী এবং তুষার গান্ধীর একসাথে মিছিলে হাঁটার একটি ছবি কংগ্রেসের অফিসিয়াল টুইটার হ্যান্ডেল থেকে শেয়ার করা হয়েছে। ক্যাপশনে লেখা হয়েছে, "আজ ভারত জোড়ো যাত্রায় মহাত্মা গান্ধীর প্রপৌত্র শ্রী তুষার গান্ধী উপস্থিত ছিলেন। ইতিহাস সাক্ষী রয়েছে, গান্ধী-নেহেরু সর্বদা দেশকে সংকটের হাত থেকে রক্ষা করতে একত্রিত হয়েছেন।"

জনসংযোগ বাড়ানোর উদ্দেশ্যে কন্যাকুমারী থেকে কাশ্মীর পর্যন্ত ভারত জোড়ো যাত্রার ডাক দিয়েছিলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। ইতিমধ্যেই সেই পদযাত্রা মহারাষ্ট্রে পৌঁছেছে। শুক্রবার সকাল ৬ টার সময় আকোলা জেলার বালাপুর থেকে যাত্রাটি শুরু হয়। কয়েক ঘণ্টার মধ্যে শেগাঁও পৌঁছালে সেখানেই যোগদান করেন তুষার গান্ধী।

বৃহস্পতিবার নিজস্ব ট্যুইটার হ্যান্ডেলে তুষার গান্ধী জানান, "আগামীকাল আমি রাহুল গান্ধীর সাথে ভারত জোড়ো যাত্রায় যোগ দেব। শেগাঁওয়ে থেকে পদযাত্রায় পা মেলাব। শেগাঁও আমার জন্মস্থান। ১৯৬০ সালের ১৭ জানুয়ারী আমার মা যে ট্রেনে ভ্রমণ করেছিলেন, সেটি হল ১ ডিএন হাওড়া মেল। নাগপুর হয়ে শেগাঁও স্টেশনে আমার জন্মের সময় থেমেছিল।"

প্রসঙ্গত, কংগ্রেসের ভারত জোড়ো যাত্রা গত ৭ সেপ্টেম্বর তামিলনাড়ুর কন্যাকুমারী থেকে শুরু হয়ে গত ৭ নভেম্বর মহারাষ্ট্রের নাভেদ জেলায় প্রবেশ করেছে। কংগ্রেস নেতৃত্বের কথায়, এখনও পর্যন্ত মহারাষ্ট্রের নান্দেদ, হিঙ্গোলি, ওয়াশিম এবং আকোলা জেলাগুলির উপর দিয়ে এই পদযাত্রা গেছে। আগামী ২০ নভেম্বর রাতে বুলধানা জেলার জলগাঁও জামোদ থেকে যাত্রাটি প্রবেশ করবে মধ্যপ্রদেশের বুরহানপুরে, সেখানে বিরতি নেবে।

উল্লেখ্য, হিন্দুত্ববাদী মতাদর্শে বিশ্বাসী সাভারকরের উদ্দেশ্যে বৃহস্পতিবার রাহুল বলেন, সাভারকর ব্রিটিশদের অনেক সাহায্য করেছিলেন এবং নিজে বাঁচার ভয়ে মুচলেকা দিয়েছিলেন। সাংবাদিকদের সামনে সাভারকারের মুচলেকা তুলে ধরে রাহুল বলেন, "আমি শেষ লাইনটি পড়ব, যেখানে স্পষ্টভাবে বলা আছে - 'আমি আপনাদের একজন সবচেয়ে বাধ্য সেবক হিসেবে থাকার অনুরোধ করছি।' চিঠিতে ডি ভি সাভারকারের স্বাক্ষর রয়েছে এবং দেখা যাচ্ছে যে তিনি ব্রিটিশদের সাহায্য করেছিলেন।"

এই ঘটনার পর রাহুল গান্ধীর বিরুদ্ধে থানে নগর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অভিযোগে বলা হয়, তাঁর মন্তব্য স্থানীয় নাগরিকদের অনুভূতিতে আঘাত করেছে।

রাহুল গান্ধী এবং তুষার গান্ধী
সাংবাদিক সম্মেলনে সাভারকারের মুচলেকা নিয়ে কটাক্ষ রাহুলের, বিরোধিতা 'জোটসঙ্গী' উদ্ধব ঠাকরের
রাহুল গান্ধী এবং তুষার গান্ধী
Rajasthan Congress: গেহলট-পাইলট বিতর্কের জের! ইনচার্জ পদ থেকে ইস্তফা অজয় মাকেনের

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in