ভারত-চিন সংঘর্ষ ইস্যুতে উত্তাল সংসদ, সোনিয়া গান্ধীর নেতৃত্বে ওয়াকআউট বিরোধীদের

আলোচনার অনুমতি না দেওয়ার অভিযোগে অধিবেশন ওয়াকআউট করেন সোনিয়া গান্ধী, অধীর রঞ্জন চৌধুরী সহ কংগ্রেসের সাংসদরা।
ভারত-চিন সংঘর্ষ ইস্যুতে উত্তাল সংসদ, সোনিয়া গান্ধীর নেতৃত্বে ওয়াকআউট বিরোধীদের
গ্রাফিক্স - সুমিত্রা নন্দন

ভারত-চীন সীমান্ত ইস্যুতে আবার উত্তাল সংসদ। এ নিয়ে আলোচনা চেয়ে আবার সরব হন বিরোধীরা। তবে, আলোচনার অনুমতি না দেওয়ার অভিযোগে অধিবেশন ওয়াকআউট করেন সোনিয়া গান্ধী, অধীর রঞ্জন চৌধুরী সহ কংগ্রেসের সাংসদরা। ওয়াকআউট করেন তৃণমূল সাংসদরাও।

বুধবার, সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্ব শেষে 'ভারত-চীন সীমান্তের পরিস্থিতি' নিয়ে আলোচনার দাবি তোলেনে কংগ্রেস নেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরী। তিনি বলেন, 'আমরা ভারত-চীন সীমান্ত পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার দাবি জানিয়ে আসছি। ১৯৬২ সালে, যখন ভারত-চীন যুদ্ধ হয়েছিল, তখন জওহরলাল নেহেরু এই হাউসে ১৬৫ জন সাংসদকে কথা বলার সুযোগ দিয়েছিলেন। তারপরেই, এ বিষয়ে কি করতে হবে সেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল।'

তবে, অধীরের এই দাবি উড়িয়ে লোকসভার স্পিকার ওম বিড়লা জানান, 'ব্যবসায়িক উপদেষ্টা কমিটির বৈঠকে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।'

কিন্তু, তারপরেও নাছোড় বান্দা বিরোধীরা। 'ভারত-চীন সীমান্ত পরিস্থিতি' নিয়ে আলোচনার দাবি তোলেন তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ও। কিন্তু, শেষমেশ সেই দাবি না মানায়, 'সরকারের মনোভাব' নিয়ে প্রশ্ন তুলে ওয়াকআউট করেন বিরোধীরা। নেতৃত্ব দেন সোনিয়া গান্ধী।

মঙ্গলবারই, অরুণাচল প্রদেশের সীমান্তে (তাওয়াং-এ) ভারত-চীন সেনা সংঘর্ষ নিয়ে সংসদে আলোচনার দাবি তোলে কংগ্রেস। এ ব্যাপারে সংসদের উভয় কক্ষেই নোটিশও দেওয়া হয়েছে কংগ্রেসের তরফে। কিন্তু, সেই দাবি না মেনে একটি লিখিত বিবৃতি জারি করে মোদী সরকার। কিন্তু, তাতে সন্তুষ্ট নন বিরোধীরা। তাঁরা, এ নিয়ে আলোচনার দাবি তুলেছে।

কংগ্রেস সভাপতি মল্লিকার্জুন খাড়গে জানান, 'আমরা ক্রমাগত চিনের সঙ্গে চলমান সংঘাতের বিষয়টি সংসদে উত্থাপন করছি। আজও আমরা আলোচনা করতে চেয়েছিলাম কিন্তু, আমাদের পর্যাপ্ত সুযোগ দেওয়া হচ্ছে না। যা অনভিপ্রেত।'

প্রসঙ্গত, গত সোমবার, একটি বিবৃতি জারি করে ভারতীয় সেনাবাহিনী। যেখানে জানানো হয়, ৯ ডিসেম্বর, ভারতীয় ও চীনা সেনারা তাওয়াং সেক্টরে অরুণাচল প্রদেশ সীমান্ত বরাবর প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখার কাছে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে উভয় পক্ষের সেনারা আহত হয়েছেন। শুক্রবারের এই সংঘর্ষের পর অন্তত ছয়জন আহত ভারতীয় সেনাকে চিকিৎসার জন্য গুয়াহাটিতে স্থানান্তরিত করা হয়েছে।

সেনাবাহিনীর তরফে এই বিবৃতি সামনে আসার পরেই দেশের নিরাপত্তা এবং চীনা আগ্রাসন নিয়ে মোদী সরকারের বিরুদ্ধে সরব হন বিরোধীরা।

ভারত-চিন সংঘর্ষ ইস্যুতে উত্তাল সংসদ, সোনিয়া গান্ধীর নেতৃত্বে ওয়াকআউট বিরোধীদের
'ভারত জোড়ো যাত্রা'য় বিরাট চমক, রাহুলের সঙ্গে পা মেলালেন প্রাক্তন RBI গভর্নর রঘুরাম রাজন

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
logo
People's Reporter
www.peoplesreporter.in