Sitaram Yechury: ‘লোকসভার ফল নিয়ে খুশি নই, হবে গভীর আত্মসমীক্ষা’ – সীতারাম ইয়েচুরি

People's Reporter: সীতারাম ইয়েচুরি জানান, বামপন্থীদের নেতৃত্বে সংগঠিত সমস্ত লড়াই-আন্দোলন সত্ত্বেও আমরা সত্যিই তা থেকে নির্বাচনী সাফল্যের ফসল তুলতে পারিনি।
সিপিআইএম সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি
সিপিআইএম সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরিফাইল ছবি

সদ্য সমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে ফল নিয়ে খুশি নন সিপিআইএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি। এক সংবাদ মাধ্যমে তিনি জানান, বিভিন্ন গণ আন্দোলনের সঙ্গে বামফ্রন্ট সংগঠনগুলি যুক্ত হলেও, লোকসভার ফলাফলে তার প্রভাব দেখা যায় নি। যা নিয়ে আত্মসমীক্ষার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সিপিআইএম পলিট ব্যুরো।

সম্প্রতি এক সর্বভারতীয় সংবাদ সংস্থায় সীতারাম ইয়েচুরির একটি সাক্ষাৎকার প্রকাশিত হয়। সেখানে ইয়েচুরি জানান, "লোকসভায় বামপন্থীদের উপস্থিতি সামান্য বাড়লেও আমরা এই ফলে খুশি নই। বরং আমরা কিছুটা হতাশ। কারণ, বামপন্থীদের নেতৃত্বে সংগঠিত সমস্ত লড়াই-আন্দোলন সত্ত্বেও আমরা সত্যিই তা থেকে নির্বাচনী সাফল্যের ফসল তুলতে পারিনি।“

এরপরেই তিনি জানান, “গভীর অন্তর্দৃষ্টি দিয়ে বিষয়টি পর্যালোচনা করার দরকার আছে। আমরা সেই কাজ করব এবং প্রয়োজনীয় সংশোধন করব আমাদের ভূমিকা, যাতে আগামী দিনে জনগণের সংগ্রাম সংগঠিত করা ও তাকে জারি রাখার ক্ষেত্রে বামপন্থীদের সক্ষমতা ও সংকল্প এবং তাদের নির্বাচনী সাফল্যের মধ্যে অসঙ্গতিকে কমিয়ে আনা যায়।“

উল্লেখ্য, এবারের লোকসভাতে গোটা দেশজুড়ে মোট ৮ টি আসন পেয়েছে বামপন্থীরা। এর মধ্যে সিপিআইএম ৪ টি, সিপিআই ২টি এবং সিপিআইএমএল ২ টি আসনে জয়ী হয়েছে। ২০১৯ –এর লোকসভাতে বামপন্থীরা পেয়েছিল ­­৫ টি আসন।

এই প্রসঙ্গে সীতারাম ইয়েচুরি আরও জানান, পলিট ব্যুরো জনগণের জীবন-জীবিকার সঙ্গে সম্পর্ক যুক্ত বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আন্দোলনকে তীব্র করবে বলেও ঠিক করেছে। যেমন, কৃষকদের সংগ্রাম, কর্মসংস্থানের জন্য যুবদের সংগ্রাম, দেশের শিক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে আন্দোলন, নিটে কারচুপির অভিযোগ নিয়ে আন্দোলন। সংসদের ভিতরের পাশাপাশি, সংসদের বাইরেও এই সব আন্দোলন চলবে।

লোকসভা নির্বাচনে কেরালার ত্রিশূর আসনে বিজেপির সুরেশ গোপী জয়লাভ করেছেন। সেই প্রসঙ্গে ইয়েচুরি বলেন, ওই আসনে ইউডিএফ'র ভোট, মূলত কংগ্রেস প্রার্থীর ভোট গিয়েছে বিজেপি'র পক্ষে। ইউডিএফ'র ভোটে ভাগ বসিয়েছে বিজেপি। আর যা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন তিনি। ইয়েচুরি জানান, কংগ্রেসের ভোট যদি বিজেপির দিকে যায়, তাহলে সেটা শুধু কেরালার জন্য নয় সারা দেশের জন্য উদ্বেগের কারণ। আর সে কারণে গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখতে হবে।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ –এর নির্বাচনে কেরলে সিপিআইএমের প্রাপ্ত ভোটের হার ছিল ২৫.৯ শতাংশ। ২০২৪ –এর লোকসভাতে যা প্রায় একই আছে। এবারে তাদের ভোটের হার ২৫.৮২ শতাংশ। অন্যদিকে, ২০১৯ -এর নির্বাচনে কেরালায় কংগ্রেস পেয়েছিল ৩৭.৪৫ শতাংশ ভোট। ২০২৪ –এ যা কমে হয়েছে ৩৫ শতাংশ। এছাড়া, বিজেপি'র প্রাপ্ত ভোটের হার ২০১৯ –এর ১২.৯ শতাংশ থেকে ২০২৪-এ বেড়ে হয়েছে ১৬.৬৮ শতাংশ।

সিপিআইএম সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি
Yediyurappa: নাবালিকা যৌন হেনস্থা মামলায় ইয়েদুরাপ্পার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি
সিপিআইএম সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি
‘পুণ্যার্থীদের পরিবারের কান্নাও শুনতে পাচ্ছেন না’ – কাশ্মীরের জঙ্গী হামলা নিয়ে মোদীকে নিশানা রাহুলের

Related Stories

No stories found.
logo
People's Reporter
www.peoplesreporter.in