স্ত্রীর উপর দেড় বছর ধরে যৌন নির্যাতন - লিঙ্গায়েত ধর্মগুরুর বিরুদ্ধে অভিযোগ আনল স্বামী

শনিবার, শিবমোগা থেকে চন্দ্রশেখর অভিযোগ করেন যে তাঁর স্ত্রীকে অভিযুক্ত স্বামীজি আশ্রমের ভিতর যৌন নির্যাতন করেছেন। চন্দ্রশেখরের দাবি, তিনি তাঁর স্ত্রীকে অভিযুক্ত স্বামীজির হাত থেকে বের করে আনতে পেরেছেন।
নির্যাতিতার স্বামী ধর্মগুরুর একটি অডিও ক্লিপ প্রকাশ্যে এনেছেন
নির্যাতিতার স্বামী ধর্মগুরুর একটি অডিও ক্লিপ প্রকাশ্যে এনেছেনছবি - সংগৃহীত

লিঙ্গায়েত ধর্মগুরুর বিরুদ্ধে এক মহিলার উপর যৌন নির্যাতনের অভিযোগ তুললেন তাঁর স্বামী। ধর্মগুরুর নাম ওমকারা শিবাচার্য স্বামী। তিনি আভারগোলার রেণুকাশ্রমের লিঙ্গায়ত দ্রষ্টা। নির্যাতিতার স্বামীর অভিযোগ, গত দেড় বছর ধরে বারংবার সেই ধর্মগুরু তাঁর স্ত্রীকে যৌন নির্যাতন করেছেন।

শনিবার, চন্দ্রশেখর অভিযোগ করেন যে তাঁর স্ত্রীকে স্বামীজি আশ্রমের ভিতর যৌন নির্যাতন করেছেন। চন্দ্রশেখরের দাবি, তিনি তাঁর স্ত্রীকে স্বামীজির হাত থেকে বের করে আনতে পেরেছেন। এই ঘটনার যদি প্রকাশ্যে আসে তাহলে তাঁর স্ত্রী আত্মহত্যা করবেন বলেও জানিয়েছেন তিনি।

ইতিমধ্যেই, নির্যাতিতার স্বামী তাঁর সাথে অভিযুক্ত ধর্মগুরুর একটি অডিও ক্লিপ প্রকাশ্যে এনেছেন। অডিও ক্লিপে শোনা গেছে, চন্দ্রশেখর তাঁর স্ত্রীকে ফেরত পাওয়ার জন্য লিঙ্গায়েত ধর্মগুরুকে অনুরোধ করছেন। তাঁকে বলতে শোনা যায় যে তাঁর স্ত্রীকে ধর্মগুরু দীর্ঘদিন ধরে ব্ল্যাকমেল করছেন।

চন্দ্রশেখর ধর্মগুরুকে বলেন, তাঁর কাছে প্রমাণ হিসেবে সেই ভিডিওটি রয়েছে। তাই তিনি যদি কোনো সমস্যা না চান তাহলে অবিলম্বে স্ত্রীকে ফেরত পাঠান।

চন্দ্রশেখরের কথায়, বিয়ের ৫ বছর পেরিয়ে গেলেও সন্তান না হওয়ার কারণে তাঁর স্ত্রী মঠে যাওয়া শুরু করেন। এরপর তিনি ঘন ঘন মঠ পরিদর্শন শুরু করেন। একটি বিশেষ উৎসবের সময় ধর্মগুরুকে হাতেনাতে ধরেন বলে জানান নির্যাতিতার স্বামী।

তবে সেই মহিলা তাঁর স্বামীর অভিযোগ অস্বীকার করায় এই ঘটনাটি নতুন মোড় নেয়। মহিলা দাবি করেন, তার স্বামী একজন মাতাল এবং স্বামীজিকে ৩০ লক্ষ টাকা দিতে চাপ দিচ্ছেন। এমনকি অর্থের জন্য তাঁর স্বামী যেকোনও স্তরে নেমে যেতে পারেন বলেও অভিযোগ করেন ওই মহিলা।

মহিলার অভিযোগ, "ভিডিওটি প্রকাশ্যে আনার জন্য আমি আমার স্বামীকে চ্যালেঞ্জ করছি। এমনকি সেটা আমি নিজেও দেখতে চাই। স্বামীজি আমাকে আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত থেকে বেরিয়ে আসতে সাহায্য করেছেন। আমি আমার স্বামীর নির্যাতন এবং আমার প্রতি দুর্ব্যবহার সহ্য করতে পারিনি। আমার বাবার এক একর জমি এবং আমার সমস্ত সোনার গয়না আমি তাঁকে দিয়েছি।"

মহিলা আরও জানান, স্বামীজির প্রতি আমাদের বিশেষ শ্রদ্ধা আছে কারণ আমাদের পরিবার তাঁর মঠকে অনুসরণ করে। এই ঘটনার জেরে ওই মহিলা তাঁর স্বামীর নামে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

নির্যাতিতার স্বামী ধর্মগুরুর একটি অডিও ক্লিপ প্রকাশ্যে এনেছেন
শহরজুড়ে তল্লাশি অভিযান ইডির, গার্ডেনরিচে পরিবহণ ব্যবসায়ীর বাড়ি থেকে কোটি কোটি টাকা উদ্ধার

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in