Prayagraj: নিয়মিত দেওয়া হত ট্যাক্স, নির্ভুল নথি - তবুও 'জাভেদের বাড়ি' ভাঙল বুলডোজার

তবে বাড়িটি মহম্মদ জাভেদের নামে নয়। বরং ওনার স্ত্রী পারভীন ফতিমার নামে ছিল। এখন প্রশ্ন উঠছে, তাহলে জাভেদের নামে কীভাবে নোটিশ পাঠিয়ে পারভীনের বাড়ি ভাঙতে পারে প্রশাসন?
Prayagraj: নিয়মিত দেওয়া হত ট্যাক্স, নির্ভুল নথি - তবুও 'জাভেদের বাড়ি' ভাঙল বুলডোজার
গ্রাফিক্স - সুমিত্রা নন্দন

রবিবার প্রয়াগরাজে বুলডোজার দিয়ে ভেঙে ফেলা হল মহম্মদ জাভেদের বাড়ি। প্রশাসন জানিয়েছিল যে, বাড়িটি অবৈধভাবে নির্মাণ করা হয়েছিল। তাই জন্যই বাড়িটি ভেঙে ফেলার জন্য আগেই প্রশাসনের তরফে নোটিশ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু মহম্মদ জাভেদ কোনও বন্দোবস্ত না করায় প্রশাসনের তরফে ভেঙে দেওয়া হল বাড়িটি। বাড়ির গেটে সাঁটানো নোটিশে বলা হয়েছে, "নিচুতলায় ও দোতলায় অনুমতি ছাড়াই ২৫ x ৬০ ফুট নির্মাণ করা হয়েছে।"

এই ঘটনার দুদিনের মধ্যেই বড়সড় বিতর্কে নাম জড়ালো যোগী সরকার। ইংরেজি দৈনিক পত্রিকা 'দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস'-এ প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন মারফত জানা গেছে, বাড়িটির জলের বিল, বিদ্যুৎ বিল এবং কর নিয়মিত দেওয়া হত। সবচেয়ে আশ্চর্যজনক বিষয় হল, বাড়িটি মহম্মদ জাভেদের নামে নয় বরং ওনার স্ত্রী পারভীন ফতিমার নামে ছিল। এখন প্রশ্ন উঠছে, তাহলে জাভেদের নামে কীভাবে নোটিশ পাঠিয়ে পারভীনের বাড়ি ভাঙতে পারে প্রশাসন?

ইংরেজি দৈনিকে দেওয়া প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, প্রয়াগরাজের জলকল বিভাগের তরফে ফেব্রুয়ারী মাসের ৪ তারিখের দেওয়া রসিদ অনুযায়ী পারভীন ফতিমা জলের বিল হিসেবে ৪,৫৭৮ টাকা মিটিয়ে দিয়েছিলেন। ২৮ জানুয়ারী প্রয়াগরাজ নগর নিগম একটি শংসাপত্র জারি করে দেখায় যে, ৩৯সি/২এ/১ বাড়িটি পারভীন ফাতিমার নামে। এবং ২০২০-২০২১ আর্থিক বছরে গৃহ করও দেওয়া হয়েছে। এরপরেও যোগী প্রশাসন নির্মাণটি উত্তর প্রদেশ নগর পরিকল্পনা ও উন্নয়ন আইন, ১৯৭৩ এর বিধান লঙ্ঘন করেছে বলে মাত্র একদিনের নোটিশ দেওয়ার পরে রবিবার বাড়িটি ভেঙে দিয়েছে।

প্রসঙ্গত, বিজেপি নেত্রীর মন্তব্যের প্রতিবাদে বিক্ষোভ দেখাতে গিয়ে শনিবার গ্রেপ্তার হয়েছেন ব্যবসায়ী তথা সমাজকর্মী জাভেদ।'দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস'-এ ফতিমা এবং জাভেদের কন্যা সুমাইয়া জানিয়েছে, "পিডিএ (প্রয়াগরাজ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ) আমার বাবাকে একটি নোটিশ জারি করেছে এবং আমার মায়ের বাসভবন ভেঙে দিয়েছে। বাড়িটি আমার দাদু কলিমউদ্দিন সিদ্দিকীর মালিকানাধীন। দুই দশক আগে তিনি এটি আমার মাকে উপহার দিয়েছিলেন। প্রাথমিকভাবে, আমরা নিচতলা এবং পরে আরও দুটি তলা তৈরি করেছি।"

সুমাইয়া আরও বলে, "তারপর থেকে, কোন সরকারী সংস্থা আমাদের জানায়নি যে এটি অবৈধভাবে নির্মিত হয়েছিল। বাড়ির ট্যাক্স, জলের ট্যাক্স ও বিদ্যুৎ সংযোগ আমার মায়ের নামে। সব কর সময়মতো পরিশোধ করা হয়েছে। রবিবারের আগে, কোনও কর্মকর্তা আমাদের বলেননি যে আমাদের বাড়িটি অবৈধভাবে তৈরি করা হয়েছে।"

জাভেদদের আইনজীবী অ্যাডভোকেট কে কে রায় 'দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস'-কে জানিয়েছেন, "রবিবার যে বাড়িটি ভেঙে ফেলা হয়েছে তা পারভীন ফাতিমার নামে। শনিবার জাভেদ মহম্মদকে নোটিশ পাঠানো হয়েছে। মুসলিম আইন অনুযায়ী, স্ত্রীর নামে থাকা সম্পত্তি স্বামীর নামে গণ্য করা হয় না।"

এ প্রসঙ্গে পিডিএ-র তরফে কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি বলেই জানিয়েছে ওই সংবাদসংস্থা। সচিব অজিত সিংহ এবং জোনাল আধিকারিক অজয় কুমার ও জেলাশাসক সঞ্জয়কুমার খাত্রির কোনও মন্তব্য করতে চাননি। তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক উচ্চপদস্থ পিডিএ আধিকারিক জানান, "ওই জমিতে যে ব্যক্তি নির্মাণকাজ চালিয়েছিলেন, আমরা তাঁকেই নোটিস পাঠিয়েছি। বাড়ির মালিকানা কার নামে, তা দিয়ে আমাদের কিছু যায়-আসে না।"

তবে বিশেষভাবে জিজ্ঞাসা করা হলে সেই কর্মকর্তা জানান, "সীমানা প্রাচীরের উপর একটি পাথরের ফলক ছিল যার উপর 'জাভেদ এম' লেখা ছিল। স্থানীয়রা আমাদের বলেছে যে বাড়িটি মোহাম্মদ জাভেদের এবং সেই অনুযায়ী তাকে নোটিশ দেওয়া হয়েছিল।"

Prayagraj: নিয়মিত দেওয়া হত ট্যাক্স, নির্ভুল নথি - তবুও 'জাভেদের বাড়ি' ভাঙল বুলডোজার
UP: এইভাবে বুলডোজার দিয়ে বাড়ি ভাঙা 'বেআইনি' - মন্তব্য এলাহাবাদ হাইকোর্টের প্রাক্তন বিচারপতির

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in