Uttar Pradesh: নাম নিয়ে আপত্তি - মুসলিম মালিকের দোকান ভেঙে বন্ধ করলো হিন্দুত্ববাদীরা

মোরাদাবাদ জেলার মাঝোলা এলাকায় গত ১৫ বছর ধরে চলা 'নিউ সাই জুস সেন্টার' আচমকাই হিন্দুত্ববাদীদের আক্রমণের শিকার। ১৫ বছর ধরে এক মুসলিম ব্যক্তি ওই দোকান চালান। দোকানের নাম নিয়ে আপত্তি দক্ষিণপন্থী সংগঠনের।
Uttar Pradesh: নাম নিয়ে আপত্তি - মুসলিম মালিকের দোকান ভেঙে বন্ধ করলো হিন্দুত্ববাদীরা
মোরাদাবাদের নিউ সাঁই জুস সেন্টারছবি ট্যুইটারের সৌজন্যে

মোরাদাবাদ জেলার মাঝোলা এলাকায় গত ১৫ বছর ধরে চলা 'নিউ সাই জুস সেন্টার' আচমকাই হিন্দুত্ববাদীদের আক্রমণের শিকার হল। গত ১৫ বছর ধরে এক মুসলিম ব্যক্তি ওই দোকান চালান। গতকাল এক উগ্র দক্ষিণপন্থী সংগঠনের সদস্যরা ওই দোকানে ভাংচুর চালিয়ে দোকান বন্ধ করে দিতে বাধ্য করে। দোকানের নাম নিয়ে আপত্তি জানিয়েছে ওই দক্ষিণপন্থী সংগঠন

হিন্দুত্ববাদী ওই সংগঠনের দাবি, "সাই বাবা একজন হিন্দু দেবতা" এবং মুসলিম মালিককে তাই দোকানের নাম পরিবর্তন করতে হবে। সংগঠনের পক্ষ থেকে এলাকার হিন্দু দেবদেবীর নামে নামকরণ করা মুসলিমদের দ্বারা পরিচালিত সমস্ত দোকান বন্ধ করার হুমকিও দিয়েছে বলে অভিযোগ।

ঘটনাটি ঘটেছে গত তিন দিন আগে। যদিও এর অনেক পরে বজরং দলের নেতা নবনীত শর্মা এবং তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে "দাঙ্গা এবং অপরাধমূলক ভয় দেখানোর" অভিযোগে এফআইআর নথিভুক্ত করা হয়।

সূত্র অনুসারে, এমনকি পুলিশও দোকানের মালিক শাব্বু খানকে "আরো ঝামেলা এড়াতে" দোকানের নাম পরিবর্তন করার পরামর্শ দিয়েছে।

স্থানীয়দের দাবি অনুসারে, ভাঙচুর চলার সময় পুলিশ প্রথমে নীরব দর্শক ছিল। পরে জুসের দোকানের মালিক শাব্বু খানকে নাম বদলের পরামর্শ দেয়। ঘটনা প্রসঙ্গে শাব্বু খান জানিয়েছেন, "আমি বৃহস্পতিবার যখন বাড়িতে খেতে যাচ্ছিলাম তখন এই ঘটনার কথা জানতে পারি এবং আমি শুনে হতবাক হয়ে যাই যে, কিছু লোক আমার দোকান ভাঙচুর করছে। তারা আমাকে আমার ধর্মীয় বিশ্বাসের কারণে দোকান বন্ধ করতে বলেছিল। এই দোকানটি আমার জীবনের এবং আমার পরিবারের অংশ।"

ঘটনা প্রসঙ্গে মাঝোলা স্টেশন হাউস অফিসার (এসএইচও) ধনঞ্জয় সিং বলেছেন, "আমরা জানতে পেরেছি যে নবনীত শর্মার নেতৃত্বে প্রায় ২০-২৫ জন লোক জোর করে ওই জুসের দোকান বন্ধ করে দিয়েছে। তারা এর মালিককে চড় মেরেছে। আমরা নবনীত শর্মা এবং তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে আইপিসি ধারা ৩২৩ (সাময়িক আঘাত করা), ৫০৪ (ইচ্ছাকৃত অপমান), ৫০৬ (অপরাধমূলক ভীতি প্রদর্শন) এবং ১৪৭ (দাঙ্গা)-র অধীনে একটি এফআইআর নথিভুক্ত করেছি।"

ঘটনাক্রমে, হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের কর্মীদের পক্ষ থেকে খানের বিরুদ্ধেও একটি অভিযোগও দায়ের করা হয়। যদিও পুলিশ জানিয়েছে, দোকান মালিকের বিরুদ্ধে অভিযোগটি "যথেষ্ট বিশ্বাসযোগ্য নয় কারণ তিনি গত ১৫ বছর ধরে দোকানটি চালাচ্ছেন এবং এখনও পর্যন্ত এই দোকান নিয়ে কোনও সমস্যা হয়নি।" এই ঘটনায় এখনো কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি।

- With IANS inputs

মোরাদাবাদের নিউ সাঁই জুস সেন্টার
Uttar Pradesh: বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির তুরুপের তাস সেই 'রাম মন্দির'ই

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in