Haryana: প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনা নিস্ফল - কার্নাল সেক্রেটারিয়েট ঘেরাও আন্দোলনরত কৃষকদের

প্রশাসনের সঙ্গে নিস্ফল আলোচনার পর কার্নাল সেক্রেটারিয়েট ঘেরাও করলো আন্দোলনরত কৃষকরা। মিনি সেক্রেটারিয়েট ঘেরাও করে রেখেছেন কৃষকরা। এদিন এম এল খাট্টার প্রশাসনের পক্ষ থেকে কৃষকদের কোনো দাবী মানা হয়নি।
Haryana: প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনা নিস্ফল - কার্নাল সেক্রেটারিয়েট ঘেরাও আন্দোলনরত কৃষকদের
কার্নালে কৃষকদের মহাপঞ্চায়েতছবি ন্যাশনাল হেরাল্ডের সৌজন্যে

হরিয়ানা প্রশাসনের সঙ্গে নিস্ফল আলোচনার পর কার্নাল সেক্রেটারিয়েট ঘেরাও করলো আন্দোলনরত কৃষকরা। এই মুহূর্তে মিনি সেক্রেটারিয়েট ঘেরাও করে রেখেছেন কৃষকরা। এদিন কৃষক প্রতিনিধিদলের সঙ্গে আলোচনায় হরিয়ানার এম এল খাট্টার প্রশাসনের পক্ষ থেকে কৃষকদের কোনো দাবীই মানা হয়নি।

এদিন যোগেন্দ্র যাদব এবং বিকেইউ নেতা রাকেশ টিকায়েত সংবাদমাধ্যমে জানান, কার্নালের ডিসি-র সঙ্গে তাঁদের বৈঠকে কোনো মীমাংসাসূত্র বেরোয়নি। হরিয়ানা প্রশাসন কৃষকদের ওপর লাঠি চালানোর নির্দেশ দেওয়া দোষী আইএএস অফিসারকে সাসপেন্ড করতে বা তাঁর বিরুদ্ধে কোনো তদন্ত কমিশন বসাতে অস্বীকার করেছে। এর পরেই দলে দলে কৃষকরা মহাপঞ্চায়েত স্থল আনাজ মান্ডি ছেড়ে মিনি সেক্রেটারিয়েটের দিকে যেতে শুরু করে।

যোগেন্দ্র যাদব সাংবাদিকদের জানান, আমাদের সঙ্গে ডিসি এবং এসপি-র তিনদফা বৈঠক হয়েছে। আমাদের ১৫ জন প্রতিনিধি এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। আমরা গত ২৮ আগস্ট লাঠিচার্জের ঘটনায় দোষী আইএএস অফিসারের বিরুদ্ধে কড়া শাস্তির দাবি জানিয়েছিলাম। আমরা কোনো ক্ষতিপূরণ চাইনি। যদিও প্রশাসন আমাদের কোনো দাবিই মানতে রাজী হয়নি।

এর আগে কিষাণ মহাপঞ্চায়েত থেকে ১১ জনের কৃষক প্রতিনিধিদল কার্নালের ডেপুটি কমিশনারের কাছে নিজেদের দাবিপত্র পেশ করেন। ওই দাবিপত্রে ২৮ আগস্ট লাঠিচার্জের ঘটনায় দোষী আইএএফ অফিসারের শাস্তির দাবি জানানো হয়েছিলো।

এই প্রতিনিধিদলে ছিলেন যোগেন্দ্র যাদব, রাকেশ টিকায়েত, কার্নাল বিকেইউ নেতা গুরনাম সিং চাদুনি, বিকেইউ প্রেসিডেন্ট বলবীর সিং রাজেওয়াল, বিকেইউ (সিধুপুর) রাজ্য প্রেসিডেন্ট জগজিত সিং ডালেওয়াল, অজয় রানা, ডঃ দর্শন পাল।

গত কয়েকমাস ধরে দিল্লির বিভিন্ন সীমান্তবর্তী অঞ্চলে তিন কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন কৃষকরা। গত সেপ্টেম্বরে এই আইন পাশ হয়। এর আগে প্রজাতন্ত্র দিবসে কৃষকরা দিল্লি অঞ্চলে প্রবেশ করলে আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি হয়। ওই ঘটনার পর গত ২৮ আগস্ট কৃষকদের বিক্ষোভে পুলিশ লাঠিচার্জ করে। এই ঘটনায় আহত এক কৃষকের পরে হাসপাতালে মৃত্যু হয়। আজ তার প্রতিবাদেই কার্নালের সবজি মণ্ডিতে কৃষক মহাপঞ্চায়েতের ডাক দেওয়া হয়েছিলো।

(Except for the headline, this story has not been edited by People's Reporter and is translated and published from a syndicated feed.)

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in