Congress: সোনিয়ার ‘নম্বর টু’ পদের প্রস্তাব ফেরালেন, তবে কী সিব্বলের পথেই গুলাম নবি আজাদ!

উল্লেখ্য, কিছুদিন আগে কংগ্রেসের অন্দরে বিক্ষুব্ধ বলে পরিচিত জি-২৩ গোষ্ঠীর অন্যতম সদস্য কপিল সিব্বল সম্প্রতি তিনি সমাজবাদী পার্টির সমর্থন নিয়ে নির্দল প্রার্থী হিসেবে রাজ্যসভার মনোনয়ন জমা দিয়েছেন।
Congress: সোনিয়ার ‘নম্বর টু’ পদের প্রস্তাব ফেরালেন, তবে কী সিব্বলের পথেই গুলাম নবি আজাদ!
সোনিয়া গান্ধী, গুলাম নবি আজাদফাইল চিত্র

দলে ‘নম্বর টু’ পদে কাজ করার প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছেন কংগ্রেস নেতা গুলাম নবি আজাদ। রাজ্যসভার টিকিট না পাওয়া ক্ষুব্ধ আজাদকে শান্ত করতে আসরে নেমেছিলেন কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী। আজাদকে দলে ‘নম্বর টু’ পদে কাজ করার প্রস্তাব দিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু, সোনিয়ার সেই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছেন জি-২৩ গোষ্ঠীর নেতা আজাদ। যা ঘিরে নতুন করে জল্পনা দেখা দিয়েছে।

সূত্রের খবর, দলের সাংগঠনিক বিষয়ে আলোচনার জন্য গুলাম নবি আজাদকে ফোন করেন সোনিয়া গান্ধী। এরপর সাংগঠিক কাঠামো অনুযায়ী অন্তর্বর্তীকালীন সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীর পরবর্তী পদে কাজ করার প্রস্তাব দেয়া হয় জম্মু-কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী গুলাম নবি আজাদকে। কিন্তু সেই প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছেন তিনি।

দলের দায়িত্ব না নেওয়া প্রসঙ্গে আজাদ এদিন সোনিয়া গান্ধীকে বলেন, 'এখন আমাদের সঙ্গে দলের তরুণের প্রজন্মের ফারাক রয়েছে। আমাদের সঙ্গে তাদের চিন্তাভাবনাও ভিন্ন। সেই কারণে দলের তরুণ প্রজন্মের প্রবীণ নেতাদের সঙ্গে কাজ করতে কোনও আগ্রহ নেই।'

রাজনৈতিক মহলের মতে, কংগ্রেস শীর্ষ নেতৃত্বের তরফে আজাদকে এই প্রস্তাব দেওয়া বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ। কারণ, কংগ্রেসের অন্দরে বিক্ষুব্ধ বলে পরিচিত জি-২৩ গোষ্ঠীর অন্যতম সদস্য কপিল সিব্বল সম্প্রতি তিনি সমাজবাদী পার্টির সমর্থন নিয়ে নির্দল প্রার্থী হিসেবে রাজ্যসভার মনোনয়ন জমা দিয়েছেন। যার জেরে কিছুটা বিপাকে পড়েছে কংগ্রেস। এই পরিস্থিতিতে কংগ্রেসের রাজ্যসভার প্রার্থী তালিকায় নাম নেই জি-২৩ গোষ্ঠীর অন্যতম প্রধান মুখ গুলাম নবি আজাদের। যিনি বিভিন্ন সময় দলে সংস্কার চেয়ে প্রকাশ্যেই সরব হয়েছেন। সেই কারণে গুলামের ক্ষোভ কমাতেই এই প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

দলের সাংগঠনিক শক্তি বৃদ্ধির জন্য প্রতিটি রাজ্যেই ‘চিন্তন শিবির’-এর আয়োজন করেছে কংগ্রেস। তবে, জম্মু- কাশ্মীরে দলের এই চিন্তন শিবির অংশগ্রহণ করেননি গুলাম নবি আজাদ এবং তাঁর সমর্থকেরা। সকলেই দলের কর্ম পদ্ধতি নিয়ে ক্ষুব্ধ। বোঝা যাচ্ছে, জম্মু-কাশ্মীরে কংগ্রেসের অবস্থা মোটেও ঠিকঠাক নেই। তবে, আজাদ সমর্থকেরা এই পরিস্থিতিতে তাঁকে উপত্যকায় দলের মুখ হিসাবে চাইছেন।

কয়েকদিন আগে থেকেই রাজ্যসভার আসন বন্টনের জায়গা নিয়েও ক্ষোভ দেখা দিয়েছে কংগ্রেসে। উত্তরপ্রদেশের বাসিন্দা কংগ্রেস নেতা ইমরান প্রতাপগড়ীকে প্রার্থী করা হয়েছে মহারাষ্ট্র থেকে। এনিয়ে ট্যুইটারে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন নাগমা। তিনি লেখেন, ‘ইমরান ভাইয়ের কাছে আমার ১৮ বছরের তপস্যা অনেক ছোট হয়ে গেল!’

অন্যদিকে, রাজ্যসভার টিকিট ‘না পাওয়া’ নিয়ে নিজের খেদ উগরে দিয়েছে কংগ্রেসের জাতীয় মুখপাত্র পবন খেরা। তাঁর দাবি, 'তিনি রাজস্থানের বাসিন্দা হওয়া সত্ত্বেও সেখানকার রাজ্যসভার আসনের জন্য টিকিট দেওয়া হয়েছে রণদীপ সূরযেওয়ালা, মুকুল ওয়াসনিক, প্রমোদ তিওয়ারিকে। যাঁরা কেউ রাজস্থানের নন।' এরপরেই তিনি যোগ করেছেন, ‘হয়তো আমার তপস্যায় কোনও কোনও ঘাটতি ছিল।’

সোনিয়া গান্ধী, গুলাম নবি আজাদ
Kapil Sibal: কংগ্রেসকে জোর ধাক্কা, দল ছাড়লেন বর্ষীয়ান নেতা কপিল সিব্বাল

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in