Kapil Sibal: কংগ্রেসকে জোর ধাক্কা, দল ছাড়লেন বর্ষীয়ান নেতা কপিল সিব্বাল

দুঃসময় কিছুতেই কাটছে না কংগ্রেসের। কংগ্রেসকে জোর ধাক্কা দিয়ে এবার দল ছাড়লেন বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা এবং প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী কপিল সিব্বাল।
Kapil Sibal: কংগ্রেসকে জোর ধাক্কা, দল ছাড়লেন বর্ষীয়ান নেতা কপিল সিব্বাল
কপিল সিব্বলফাইল ছবি- সংগৃহীত

দুঃসময় কিছুতেই কাটছে না কংগ্রেসের। কংগ্রেসকে জোর ধাক্কা দিয়ে এবার দল ছাড়লেন বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা এবং প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী কপিল সিব্বাল। যিনি দীর্ঘদিন ধরে কংগ্রেস দলের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। বুধবার কংগ্রেস ত্যাগের পরেই তিনি সমাজবাদী পার্টির পক্ষে রাজ্যসভা নির্বাচনের জন্য মনোনয়ন জমা দেন।

এর আগেই কপিল সিব্বালের দলবদল নিয়ে গুঞ্জন ছড়িয়েছিলো। শোনা গেছিলো, তিনি সমাজবাদী পার্টির টিকিটে রাজ্যসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারেন। এদিন সেই জল্পনা সত্যি করেই দল ছাড়লেন সিব্বাল।

এদিন কংগ্রেস থেকে জি-২৩ খ্যাত এই নেতা ইস্তফা দেবার পর সাংবাদিকদের বলেন, আমি গত ১৬ মে কংগ্রেস থেকে ইস্তফা দিয়েছি। আমি এখন থেকে আর কংগ্রেস নেতা নই। এর আগে একাধিকবার বর্তমান কংগ্রেস নেতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন কপিল সিবাল। তাঁর অভিযোগের আঙুল মূলত ছিলো রাহুল গান্ধীর দিকে।

কপিল সিব্বালকে নিয়ে গত পাঁচ মাসে পাঁচ হেভিওয়েট নেতার পদত্যাগে দৃশ্যতই বিপাকে কংগ্রেস। কপিল সিব্বালকে নিয়ে গত পাঁচ মাসে পাঁচ প্রভাবশালী কংগ্রেস নেতা দল ছেড়েছেন। কপিল ছাড়া যারা হলেন সুনীল জাখর, হার্দিক প্যাটেল, অশ্বিনী কুমার এবং আর পি সিং।

এদিন কপিল সিবাল জানিয়েছেন, আমি নির্দল প্রার্থী হিসেবে রাজ্যসভা নির্বাচনে মনোনয়ন জমা দিচ্ছি। সংসদে নির্দল কণ্ঠ থাকা প্রয়োজন। যদি এক নির্দল কণ্ঠ সংসদে বিভিন্ন দাবিদাওয়া নিয়ে সরব হয় সেক্ষেত্রে সাধারণ মানুষের কাছে তা বিশ্বাসযোগ্য হবে এবং তাঁরা মনে করবেন এই ব্যক্তি কোনো দলের পক্ষে কথা বলছেন না।

প্রসঙ্গত, গত ২০১৬ সালে রাজ্যসভায় সাংসদ পদের মেয়াদ শেষ হয়ে যায় সিব্বালের। সেবার তিনি উত্তরপ্রদেশ থেকে কংগ্রেস সদস্য হিসেবে রাজ্যসভায় নির্বাচিত হয়েছিলেন। এবার অখিলেশ যাদবের উপস্থিতিতে তিনি মনোনয়ন জমা দিলেন। আগামী মাসের ১১ তারিখ রাজ্যসভায় নির্বাচন।

এদিন অখিলেশ যাদব জানিয়েছেন, কপিল সিব্বালকে রাজ্যসভা নির্বাচনে প্রথম প্রার্থী হিসেবে বেছে নেওয়া হয়েছে। আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই আরও দুই প্রার্থীর নাম ঘোষিত হবে।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in