কাশ্মীর থেকে কন্যাকুমারী - 'ছাত্র বিরোধী নীতি'-র বিরুদ্ধে আগামী দেড় মাস ছাত্র জাঠার ডাক SFI-র

ছাত্র জাঠার মাধ্যমে প্রতিটি কলেজ ক্যাম্পাসে পৌঁছানোর উদ্যোগ নিয়েছে এসএফআই। ক্রমাগত ড্রপ আউট, লিঙ্গবৈষম্য, জাত-পাত-বর্ণের বিরুদ্ধে গিয়েও ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে জনমত গড়ে তুলতে চায় এসএফআই।
কাশ্মীর থেকে কন্যাকুমারী - 'ছাত্র বিরোধী নীতি'-র বিরুদ্ধে আগামী দেড় মাস ছাত্র জাঠার ডাক SFI-র
ছবি - সংগৃহীত

শিক্ষা বাঁচাও, সংবিধান বাঁচাও, দেশ বাঁচাও-এর আহ্বান জানিয়ে এক নতুন উদ্যোগ নিল বামপন্থী ছাত্র সংগঠন এসএফআই। শিক্ষার আলোয় সমাজের সব স্তরের ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে আসার লক্ষ্যে দেশজুড়ে সোমবার থেকে আগামী দেড় মাস ধরে চলবে ছাত্র জাঠা।

সোমবার, ১ আগস্ট কাশ্মীর এবং কন্যাকুমারী থেকে দুটি জাঠার সূচনা হচ্ছে। এরপরে ১২ আগস্ট উত্তর পূর্বাঞ্চল থেকে শুরু হবে আরেকটি ছাত্র জাঠা। পূর্বাঞ্চলের জাঠা শুরু হবে ১৩ আগস্ট পাটনা থেকে এবং পশ্চিমাঞ্চলের জাঠা শুরু হবে ৫ সেপ্টেম্বর।

এসএফআই-র মতে, দেড় মাস ধরে চলা একাধিক জাঠার মাধ্যমে মূলত মোদী সরকারের ছাত্র বিরোধী নীতি, নয়া শিক্ষানীতি, বেসরকারিকরণ, গৈরিকীকরণ, ডিজিটাল ডিভাইড, শিক্ষার বাণিজ্যিকীকরণ এবং সাম্প্রদায়িকীকরণের প্রতিবাদে লড়াই-আন্দোলনের জন্য আরও বৃহত্তর মঞ্চ গড়ে তোলার চেষ্টা করা হবে। এসএফআই-র অভিযোগ - আরএসএস-বিজেপি ক্রমাগত ছাত্রদের উপর অবৈজ্ঞানিক এবং অযৌক্তিক নীতি চাপিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছে। সেই কারণেই শিক্ষার সুযোগ যাতে দেশের সব স্তরের, বিশেষত আর্থিক দিক থেকে দুর্বল যেসব ছাত্র-ছাত্রীরা তাদের কাছে পৌঁছায় সেইজন্যই এই অভিনব প্রয়াস।

এর পাশাপাশি, ছাত্র জাঠার মাধ্যমে প্রতিটি কলেজ ক্যাম্পাসে পৌঁছানোর উদ্যোগ নিয়েছে এসএফআই। ক্রমাগত ড্রপ আউট, লিঙ্গবৈষম্য, জাত-পাত-বর্ণের বিরুদ্ধে গিয়েও ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে জনমত গড়ে তুলতে চায় এসএফআই। এক্ষেত্রে ছাত্র জাঠা বিশেষ ভূমিকা গ্রহণ করবে বলেই মনে করছে বামপন্থী ছাত্র সংগঠন। এর সাথে জাতীয় শিক্ষানীতির পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয়ের অভিন্ন প্রবেশিকা পরীক্ষা (নিট) নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে এসএফআই। তাঁদের বক্তব্য, জাতীয় শিক্ষানীতি অনলাইন পঠনপাঠনকে আগ্রাধিকার দিয়ে দেশের শিক্ষাব্যবস্থায় বিভাজন সৃষ্টি করছে।

অ্যানুয়াল স্টেটাস অব এডুকেশন রিপোর্ট, ২০২১ থেকে জানা যাচ্ছে, দেশের প্রায় অধিকাংশ শিশুই অনলাইন মাধ্যমে পড়াশোনা করতে পারেনি। তাছাড়া করোনা অতিমারীতে লকডাউনের জেরে প্রান্তিক অংশের ছেলেমেয়েদের পড়াশোনায় সামগ্রিকভাবে ভয়াবহ প্রভাব পড়েছে।

এই পরিস্থিতিতেই সোমবার শ্রীনগর থেকে উত্তরের জাঠার সূচনা করবেন মহম্মদ ইউসুফ তারিগামি। জাঠায় উপস্থিত থাকবেন এসএফআই-র সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক ময়ূখ বিশ্বাস, ছাত্রনেতা নীতিশ নারায়ণ, আকিব জারগর প্রমুখ। উত্তরের জাঠার নেতৃত্ব দেবেন সংগঠনের যুগ্ম সম্পাদক দিনিত দেন্তা। পাশাপাশি, একইদিনে তামিলনাড়ুর কন্যাকুমারী থেকে শুরু হবে দক্ষিণের জাঠা। এই জাঠার উদ্বোধন করবেন বিধায়ক এম চিন্নাদুরাই। জাঠায় উপস্থিত থাকবেন সংগঠনের সর্বভারতীয় সভাপতি ভি পি শানু, সহ সভাপতি ভি এ বিনীশ প্রমুখ।

উত্তরপূর্বের জাঠা শুরু হবে ১২ আগস্ট ত্রিপুরার আগরতলা থেকে। সূচনা করবেন ত্রিপুরার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার এবং পূর্বের জাঠা শুরু হবে ১৩ আগস্ট পাটনা থেকে। নেতৃত্বে থাকবেন এসএফআই সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক ময়ূখ বিশ্বাস। পূর্ব ও উত্তরপূর্বের জাঠা ২ সেপ্টেম্বর কলকাতায় এসে মিলিত হবে বিশাল সমাবেশ রূপে। প্রধান বক্তা হিসেবে সেখানে উপস্থিত থাকবেন এসএফআই-র প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক বিমান বসু। সংগঠনের যুগ্ম সম্পাদক দীপ্সিতা ধরের নেতৃত্বে ৫ সেপ্টেম্বর পশ্চিমের জাঠা শুরু হয়ে আমেদাবাদে শেষ হবে।

অন্যদিকে, সোমবার দেশজুড়ে ছাত্র জাঠার উদ্দেশ্যে প্রচার ও অর্থ সংগ্রহের কারণে গুজরাটে আক্রান্ত হয়েছেন ছাত্রনেতা আগমন এবং কাওয়ান। অভিযোগ আরএসএস-র বিরুদ্ধে। প্রায় ৪০ জন দুষ্কৃতি মিলে তাঁদের অপহরণ করে মারধর করেছে বলে অভিযোগ। এর প্রতিবাদে সোমবার দেশজুড়ে প্রতিবাদের ডাক দিয়েছে এসএফআই কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটি।

কাশ্মীর থেকে কন্যাকুমারী - 'ছাত্র বিরোধী নীতি'-র বিরুদ্ধে আগামী দেড় মাস ছাত্র জাঠার ডাক SFI-র
SFI-DYFI: রাজ্যজুড়ে চোরের রাজনীতি! মমতা ব্যানার্জীকে গ্রেপ্তারের দাবি বাম ছাত্র-যুব সংগঠনগুলির

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in