FCRA: জামিয়া, অক্সফাম সহ ১২ হাজারের বেশি এনজিও আর বিদেশী অনুদান নিতে পারবে না

এনজিওগুলি, যার মধ্যে ইন্ডিয়ান মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন এবং লেপ্রসি মিশনও রয়েছে, যাদের লাইসেন্সের মেয়াদ গত কয়েক মাস আগেই শেষ হয়ে গেছে এবং আজ শনিবার এইসব সংস্থার কাছে আর এফসিআরএ লাইসেন্স নেই।
FCRA: জামিয়া, অক্সফাম সহ ১২ হাজারের বেশি এনজিও আর বিদেশী অনুদান নিতে পারবে না
ফাইল ছবিছবি সংগৃহীত

অক্সফাম এবং জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া সহ ১২ হাজারের বেশি এনজিও আর কোনও বিদেশী অনুদান গ্রহণ করতে পারবে না। কারণ হিসেবে জানা গেছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক তাদের ফরেন কন্ট্রিবিউশন (রেগুলেশন) অ্যাক্ট (এফসিআরএ) এর লাইসেন্স পুনর্নবীকরণ করেনি৷

এনজিওগুলি, যার মধ্যে ইন্ডিয়ান মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন এবং লেপ্রসি মিশনও রয়েছে, যাদের লাইসেন্সের মেয়াদ গত কয়েক মাস আগেই শেষ হয়ে গেছে এবং আজ শনিবার এইসব সংস্থার কাছে আর এফসিআরএ লাইসেন্স নেই।

এই এনজিও-র তালিকায় আছে অক্সফাম ইন্ডিয়ার মত সংস্থা। যাদের এফসিআরএ শংসাপত্রের মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে এবং যাদের নিবন্ধন বাতিল করা হয়েছে তাদের নয়।

২৫ ডিসেম্বর মাদার টেরেসার মিশনারিজ অফ চ্যারিটির এফসিআরএ লাইসেন্স পুনর্নবীকরণ করতে অস্বীকার করার কয়েকদিন পরেই কেন্দ্রের পক্ষ থেকে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। প্রসঙ্গত মাদার টেরেসার সংস্থা ভারত জুড়ে দরিদ্র, অসুস্থ এবং নিঃস্বদের জন্য অনাথ আশ্রম এবং আশ্রয়কেন্দ্র পরিচালনা করে। এফসিআর আইনের অধীনে যোগ্যতার শর্ত পূরণ না করার জন্য এবং "কিছু প্রতিকূল ইনপুট"-এর কারণে বিদেশী অবদান নিয়ন্ত্রণ বিধি বাতিল হয়ে যায়।

মন্ত্রক শুক্রবার এনজিওগুলির এফসিআরএ নিবন্ধনের বৈধতার জন্য ৩১ ডিসেম্বরের পরিবর্তে সময়সীমা বাড়িয়েছে ৩১ মার্চ, ২০২২ পর্যন্ত বা পুনর্নবীকরণ আবেদন নিষ্পত্তির তারিখ পর্যন্ত, যেটি আগে হয় সেই ভিত্তিতে। এই নিয়ম "শুধুমাত্র সেই সংস্থাগুলির ক্ষেত্রে যারা নির্দিষ্ট মানদণ্ড পূরণ করে" তাদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য।

মন্ত্রণালয় সূত্র অনুসারে, প্রায় ৬ হাজার এনজিও এফসিআরএ লাইসেন্স পুনর্নবীকরণের জন্য আবেদন করেনি।

একটি সূত্র অনুসারে, এখন ভারতে মাত্র ১৬,৮২৯টি এনজিও আছে, যাদের এখনও এফসিআরএ লাইসেন্স রয়েছে। যেখানে মোট ২২,৭৬২টি এনজিও এখন পর্যন্ত ফরেন কন্ট্রিবিউশন রেগুলেশনস অ্যাক্ট অধীনে নিবন্ধিত।

(Except for the headline, this story has not been edited by People's Reporter and is translated and published from a syndicated feed.)

ফাইল ছবি
Mother Teresa: মিশনারিজ অফ চ্যারিটির অ্যাকাউন্ট ফ্রিজ বা সাসপেন্ড হয়নি - বিবৃতিতে জানালো সংস্থা

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in