নতুন কৃষি আইনে “বন অধিকার আইন” লঙ্ঘনে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন আদিবাসীরা - মত কৃষি বিশেষজ্ঞদের

আদিবাসী কৃষকরা মূলত জঙ্গল ও কৃষিজাত দ্রব্যাদির উপরই নির্ভর করে জীবন-জীবিকা চালায়। কিন্তু নতুন এই কৃষি আইনগুলোর ফলে তারাও সমানভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হতে চলেছে।
নতুন কৃষি আইনে “বন অধিকার আইন” লঙ্ঘনে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন আদিবাসীরা - মত কৃষি বিশেষজ্ঞদের
ছবি- Wikimedia Commons

কেন্দ্রের লাগু করা নতুন তিন কৃষি আইনের ফলে ক্ষতিগ্রস্ত দেশের আদিবাসীরাও। প্রত্যন্ত অঞ্চলের আদিবাসীরাও এই তিন কৃষি আইনের ফলে বন অধিকার আইন লঙ্ঘন করা হচ্ছে। এই আইনের ফলে কৃষি বাজারের উপর প্রভাব পড়তে চলেছে, যার প্রভাব পরোক্ষভাবে গিয়ে পড়ছে এইসব আদিবাসী কৃষকদের উপর।

কৃষি বিশেষজ্ঞদের মতে, এইসব আদিবাসী কৃষকদের স্বার্থে সরাসরি আঘাত হানতে চলেছে এই তিন কৃষি আইন। পঞ্চম তপসিল অনুসারে, আদিবাসী জনগোষ্ঠী মূলত ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের নিয়ে গঠিত। এই আদিবাসীদের এমনিতেই নিজেদের ফসল নিয়ে দর কষাকষির ক্ষমতা কম থাকে। তারওপর এই নতুন তিনটি আইন তাদের ক্ষমতা আরও কমিয়ে দেবে।

নতুন কৃষি আইনে “বন অধিকার আইন” লঙ্ঘনে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন আদিবাসীরা - মত কৃষি বিশেষজ্ঞদের
ভারতের ইতিহাসে প্রথম আদিবাসী মহিলা উপাচার্য সোনাঝরিয়া মিনজ

অল ইন্ডিয়া ইউনিয়ন অফ ফরেস্ট ওয়ার্কিং পিপল-এর রজনীশ গম্ভীর জানিয়েছেন, আদিবাসী কৃষকরা মূলত জঙ্গল ও কৃষিজাত দ্রব্যাদির উপরই নির্ভর করে জীবন-জীবিকা চালায়। কিন্তু নতুন এই কৃষি আইনগুলোর ফলে তারাও সমানভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হতে চলেছে। তাই আদিবাসী সম্প্রদায়ের মধ্যেও এই তিন বিতর্কিত কৃষি আইনের বিরুদ্ধে ক্ষোভ জমতে শুরু করেছে।

তাঁদের মতে এটি দ্বিমুখী আক্রমণ শানানো হচ্ছে। প্রথমত, জমি অধিকার তাদের কাছে থেকে কেড়ে নেওয়া হচ্ছে, এবং দ্বিতীয়ত, কৃষকদের আরও দরিদ্রতার দিকে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে। তাদের ফসল উৎপাদনের ধারা বদল হওয়ার কারণে ঋণের পরিমাণও বৃদ্ধি পাচ্ছে। এমনিতেই তারা ঋণে জর্জরিত, তারওপর এই নতুন আইন তাদের আরও অসহায় করে দিয়েছে।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in