ঝাড়খন্ডে সরকার ফেলতে কংগ্রেস বিধায়কদের ১০ কোটি! নাম জড়ালো হিমন্ত বিশ্ব শর্মার

ঝাড়খণ্ডের তিন কংগ্রেস বিধায়ককে বিপুল অর্থ সহ পশ্চিমবঙ্গে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এরপরই কংগ্রেস অভিযোগ করেছে ঝাড়খন্ডে কংগ্রেস-JMM জোট সরকারকে ফেলতে প্রত্যেক বিধায়ককে ১০ কোটি করে টাকা দিয়েছে বিজেপি।
ঝাড়খন্ডে সরকার ফেলার চেষ্টা হিমন্ত বিশ্ব শর্মার
ঝাড়খন্ডে সরকার ফেলার চেষ্টা হিমন্ত বিশ্ব শর্মারগ্রাফিক্স - সুমিত্রা নন্দন

ঝাড়খণ্ড সরকারকে ফেলার চেষ্টা করছে বিজেপি। এই অভিযোগে লোকসভায় অধিবেশন মুলতুবির নোটিশ দিলেন কংগ্রেস সাংসদ কে. সুরেশ। ঝাড়খণ্ডের তিন কংগ্রেস বিধায়ককে বিপুল অর্থ সহ পশ্চিমবঙ্গের হাওড়া জেলাতে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এরপরই কংগ্রেস অভিযোগ করেছে ঝাড়খন্ডে কংগ্রেস-জেএমএম জোট সরকারকে ফেলতে প্রত্যেক বিধায়ককে ১০ কোটি করে টাকা দিয়েছে বিজেপি। আসামের বিজেপি মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত বিশ্ব শর্মারও নাম জড়িয়েছে এতে।

অভিযুক্ত তিন বিধায়ককে ইতিমধ্যেই দল থেকে সাসপেন্ড করেছে কংগ্রেস। ঝাড়খণ্ড কংগ্রেসের ইনচার্জ ও দলের সাধারণ সম্পাদক অবিনাশ পান্ডে এক সাংবাদিক বৈঠকে বলেন, ডঃ ইরফান আনসারি, রাজেশ কাচ্ছাপ এবং নমন ভিক্সাল কোঙ্গাদি নামের ওই তিন বিধায়কের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে দলের শীর্ষ নেতৃত্ব এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

ইতিমধ্যেই এই তিন বিধায়কের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অপর এক দলীয় বিধায়ক কুমার জয়মঙ্গল তিন বিধায়কের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, "রাজেশ কাচ্ছাপ এবং নমন ভিক্সাল কোঙ্গাদি আমাকে কলকাতায় আসতে বলেছিলেন। বিধায়ক প্রতি ১০ কোটি টাকা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। ইরফান আনসারি এবং রাজেশ কাচ্ছাপ আমাকে কলকাতা থেকে গুয়াহাটি নিয়ে যাবেন বলছিলেন, সেখানে আসামের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত বিশ্বশর্মার আগে থেকেই বৈঠক ঠিক করা ছিল।"

বৈঠকের কথা কার্যত স্বীকার করে নিয়েছেন আসামের মুখ্যমন্ত্রী। সাফাইয়ের সুরে তিনি জানিয়েছেন, নিজের রাজনৈতিক জীবনের একটা দীর্ঘ সময় তিনি কংগ্রেসের সাথে যুক্ত ছিলেন। তাই বহু কংগ্রেস নেতার সাথে তাঁর এখনও যোগাযোগ রয়েছে। সময় ও সুযোগ পেলেই তিনি কংগ্রেস নেতাদের সাথে বৈঠক করেন।

ঝাড়খন্ডে সরকার ফেলার চেষ্টা হিমন্ত বিশ্ব শর্মার
Jharkhand: মহারাষ্ট্রের পর এবার ঝাড়খন্ড, রাজনৈতিক সমীকরণ বদলের চেষ্টায় BJP

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in