Pragya Thakur: অবশেষে আদালতে হাজিরা, 'এখুনি হাসপাতালে ভর্তি হতে হবে' বলেই চলে গেলেন প্রজ্ঞা ঠাকুর

আদালতে এই বিজেপি সাংসদ বলেন, "আমাকে এখুনি কোকিলাবেন হাসপাতালে ভর্তি করতে হবে।" আচমকা এই কথায় হকচকিয়ে যান উপস্থিত ব‍্যক্তিরা। আদালত বলে. গতবারও তো আপনি বলেছিলেন আপনার স্বাস্থ্যের সমস্যা আছে, তাই না?"
Pragya Thakur: অবশেষে আদালতে হাজিরা, 'এখুনি হাসপাতালে ভর্তি হতে হবে' বলেই চলে গেলেন প্রজ্ঞা ঠাকুর
বিজেপি সাংসদ প্রজ্ঞা ঠাকুরফাইল ছবি সংগৃহীত

অবশেষে আদালতে হাজিরা দিলেন মালেগাঁও বিস্ফোরণ মামলার প্রধান অভিযুক্ত তথা বিজেপি সাংসদ প্রজ্ঞা ঠাকুর। যদিও এসেই 'এখুনি আমাকে হাসপাতালে ভর্তি হতে হবে' বলেই চলে যান তিনি। শারীরিক অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে ২০১৭ সালে জামিন পেয়েছিলেন প্রজ্ঞা ঠাকুর।

মুম্বাইয়ে এনআইএ'র বিশেষ আদালতে উপস্থিত হয়েই বিজেপি সাংসদ বলেন, "আমাকে এখুনি কোকিলাবেন হাসপাতালে ভর্তি করতে হবে।" আচমকা এই কথায় হকচকিয়ে যান আদালতে উপস্থিত ব‍্যক্তিরা। তাঁর আইনজীবী তখন জানান, বিজেপি সাংসদ বিমানবন্দর থেকে সরাসরি আদালতে এসেছেন এবং এখান থেকে হাসপাতালে যাবেন তিনি।

এরপর আদালত প্রজ্ঞা ঠাকুরকে প্রশ্ন করে, "আপনি কি এখন ঠিক আছেন? গতবারও তো আপনি বলেছিলেন আপনার স্বাস্থ্যের সমস্যা আছে, তাই না?" এর উত্তরে তিনি বলেন, "আমার চিকিৎসকরা আমাকে যতক্ষণ হাসপাতাল থাকতে বলবেন ততক্ষণ আমি হাসপাতালে থাকব।"

এরপর তিনি আদালত চত্বর ছাড়ার উদ‍্যোগ নিতেই বিচারপতি তাঁকে ধমকের সুরে বলেন, "এরপর যখনই ডাকা হবে তখনই আদালতে উপস্থিত থাকবেন এবং নিজের আইনজীবীর কাছ থেকে মামলার বিশদ বিবরণ সংগ্রহ করবেন।"

২০০৮ সালে মহারাষ্ট্রের মালেগাঁওয়ে হওয়া বিস্ফোরণের মূল অভিযুক্ত প্রজ্ঞা ঠাকুর। এই হামলায় ছ'জনের মৃত্যু হয়েছিল এবং একশো জনেরও বেশি লোক আহত হয়েছিলেন। নয় বছর জেলে কাটানোর পর ২০১৭ সালে মেডিক্যাল গ্রাউন্ডে জামিন পেয়েছিলেন তিনি।

এরপর তাঁকে একাধিকবার আদালতে হাজিরা দিতে বলা হলে শারীরিক অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে তা এড়িয়ে গিয়েছেন তিনি। যদিও এই সময়ের মধ্যে স্বতঃস্ফূর্তভাবে তাঁকে কাবাডি, বাস্কেটবল খেলতে দেখা গেছে। বিয়েবাড়িতে জোরকদমে নাচতে দেখা গেছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁর এই ভিডিওগুলো ভাইরাল হয়েছিল, সমালোচনার ঝড়ও উঠেছিল।

বিজেপি সাংসদ প্রজ্ঞা ঠাকুর
হুইল চেয়ার ছেড়ে বাস্কেটবল নিয়ে দৌড়ালেন বিজেপি সাংসদ প্রজ্ঞা ঠাকুর, সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in