হুইল চেয়ার ছেড়ে বাস্কেটবল নিয়ে দৌড়ালেন বিজেপি সাংসদ প্রজ্ঞা ঠাকুর, সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল

২০০৮ সালে মালেগাঁও বিস্ফোরণে অভিযুক্ত এই বিজেপি সাংসদ। NIA আদালত তাঁর শারীরিক অসুস্থতার কারণে সশরীরে আদালতে উপস্থিতি থেকে রেহাই দিয়েছে।
হুইল চেয়ার ছেড়ে বাস্কেটবল নিয়ে দৌড়ালেন বিজেপি সাংসদ প্রজ্ঞা ঠাকুর, সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল
প্রজ্ঞা ঠাকুর ফাইল চিত্র

তাঁকে সবাই হুইল চেয়ারে দেখতেই অভ্যস্ত। নিজের পায়ে হাঁটাচলা করতে তাঁকে ইদানিং কেউই দেখেননি। রাজনৈতিক সভা-সমাবেশ সর্বত্রই ভোপালের বিজেপি সাংসদ প্রজ্ঞা ঠাকুরের সঙ্গী হুইল চেয়ার। সর্বত্রই হুইল চেয়ারেই বিচরণ করেছেন সাংসদ। তাই তাঁর বাস্কেটবল খেলার ভিডিও যখন প্রকাশ্যে এল, চক্ষু কপালে উঠল নেটাগরিকদের।

ভোপালের সাংসদ শুধু বাস্কেটবল খেললেন না, রীতিমতো ড্রিবল করলেন। বলও জড়ালেন জালে। সেই ভিডিও এই মুহূর্তে ভাইরাল। আর আসরে নেমে পড়েছে কংগ্রেস। কংগ্রেস নেতা নরেন্দ্র সিং সালুজা সাধ্বী প্রজ্ঞার সুস্থতা কামনা করে বলেন, ‘আমি সাংসদকে হুইল চেয়ারে ঘুরতে দেখেছি। আমরা জানতাম চোটের জন্য তিনি হাঁটাচলা করতে পারেন না। কিন্তু স্টেডিয়ামে তাঁকে বাস্কেটবল খেলতে দেখে বেশ ভালোই লাগছে। দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠুন সাধ্বী প্রজ্ঞা।‘

জানা গিয়েছে, ভোপালের সাকেত নগরে এক বৃক্ষরোপণ কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছিলেন সাধ্বী প্রজ্ঞা। সেখানে স্থানীয় স্টেডিয়ামে বাস্কেটবল খেলেন তিনি। এই ভিডিও প্রসঙ্গে প্রজ্ঞা ঠাকুর কিছু না বললেও তাঁর দিদি উপমা সিং বলেন, ‘এটা ছোট ঘটনা। আপনারা জানেন না প্রজ্ঞা ঠাকুর শারীরশিক্ষায় সার্টিফিকেট কোর্সের সঙ্গে স্নাতক। জেলে যাওয়ার আগে ও শারীরিকভাবেই সক্ষম ছিল। কিন্তু জেলবন্দি অবস্থায় প্রজ্ঞার উপর অত্যাচার হয়েছে।‘

প্রসঙ্গত, ২০০৮ সালে মালেগাঁও বিস্ফোরণে অভিযুক্ত এই বিজেপি সাংসদ। NIA আদালত তাঁর শারীরিক অসুস্থতার কারণে সশরীরে আদালতে উপস্থিতি থেকে রেহাই দিয়েছে।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in