'ফ্যাসিস্ট বাহিনীর হামলা' - বলসোনারো সমর্থকদের উগ্র তাণ্ডবের নিন্দায় সরব প্রেসিডেন্ট লুলা

পুলিশি বাধা অমান্য করে প্রেসিডেন্টের প্রাসাদ ও সুপ্রিম কোর্ট ভবনে ঢুকে ব্যাপক ভাঙচুর চালায় বলসোনারোর উগ্র সমর্থকেরা। এ সময় তাদের পরনে ছিল ব্রাজিলের জাতীয় রঙের পোশাক। তিন ঘণ্টা ধরে চলে এই তাণ্ডব।
প্রেসিডেন্ট লুলা
প্রেসিডেন্ট লুলাগ্রাফিক্স - সুমিত্রা নন্দন

আবার উত্তপ্ত ব্রাজিল। পুলিশ ব্যারিকেড ভেঙ্গে কংগ্রেস (সংসদ ভবন), রাষ্ট্রপতি ভবন এবং সুপ্রিম কোর্টে ঢুকে তান্ডব চালিয়েছে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি বলসোনারোর সমর্থকরা। রবিবারের এই ঘটনাকে 'ফ্যাসিস্ট বাহিনীর হামলা' বলে নিন্দা জানিয়েছেন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট লুইজ ইনাসিও লুলা দা সিলভা

তিনি জানান, 'ধ্বংস যজ্ঞ চালানো এই বর্বরদের, যাদের আমরা বলতে পারি ধর্মান্ধ ফ্যাসিস্ট, তারা এমন কাজ করেছে যা এই দেশের ইতিহাসে আগে কখনো হয়নি।'

একইসঙ্গে, স্পষ্ট ভাষায় তিনি জানিয়েছেন, 'এই সমস্ত লোকজন, যারা এটি করেছে, তাদের খুঁজে বের করা হবে। এবং, তাদের আইনের আওতায় এনে শাস্তি দেওয়া হবে।'

প্রায় দুই বছর আগে (২০২১ সালের ৬ জানুয়ারি), মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ক্ষমতার পালাবদলের পর ক্যাপিটালে হামলা ও তাণ্ডব চালিয়েছিল প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমর্থকেরা। রবিবার রাতে সেই একই ঘটনা ঘটেছে ব্রাজিলে।

সংবাদ সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, রবিবার ব্রাজিলের রাজধানী ব্রাসিলিয়ায় পুলিশি বাধা অমান্য করে প্রেসিডেন্টের প্রাসাদ ও সুপ্রিম কোর্ট ভবনে ঢুকে পড়ে এবং ব্যাপক ভাঙচুর ও ধ্বংসযজ্ঞ চালায় বলসোনারোর উগ্র সমর্থকেরা। এ সময় তাদের পরনে ছিল ব্রাজিলের জাতীয় রঙের পোশাক।

প্রায় তিন ঘণ্টা ধরে চলে এই তাণ্ডব। তবে, এই ঘটনায় কোনও প্রাণহানির খবর পাওয়া যায়নি। কংগ্রেস ভবন, প্রেসিডেন্টের প্রাসাদ ও সুপ্রিম কোর্ট ভবন থেকে তাণ্ডবকারীদের সরিয়ে এই ভবনগুলি নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে পুলিশ।

এদিকে, ব্রাজিলের ক্ষমতার পালাবদলের পর বলসোনারোর সমর্থকদের 'বর্বরোচিত' কাণ্ডের নিন্দা জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

এক টুইট বার্তায় তিনি লিখেছেন, 'গণতন্ত্রের উপর হামলা এবং ব্রাজিলকে অশান্ত করার চেষ্টার তীব্র বিরোধীতা করছি আমি। ব্রাজিলের গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলির প্রতি আমাদের পূর্ণ সমর্থন রয়েছে এবং ব্রাজিলের জনগণের ইচ্ছার অবমূল্যায়ন কোন ভাবেই বরদাস্ত করা হবেনা। প্রেসিডেন্ট লুলার সঙ্গে কাজ করার জন্য আমি মুখিয়ে আছি।'

একইসঙ্গে, ব্রাজিলের পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

টুইটারে ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট লুলা ডি সিলভাকে ট্যাগ করে তিনি লিখেছেন, 'রাজধানী ব্রাসিলিয়ায় গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানে দাঙ্গা, নাশকতার এই হিংসাত্মক বিক্ষোভে আমি উদ্বিগ্ন। গণতান্ত্রিক ঐতিহ্যকে সকলের সম্মান করা উচিত। আমরা ব্রাজিল সরকারের প্রতি আমাদের পূর্ণ সমর্থন জানাচ্ছি।'

গত ৩০ অক্টোবর, ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডানপন্থী জাইর বলসোনারোকে হারিয়ে ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন বামপন্থী নেতা লুলা দা সিলভা। তারপর থেকেই দেশজুড়ে রাজনৈতিক অস্থিরতা বিরাজ করছে। বলসোনারোর উগ্র সমর্থকরা নির্বাচনের ফলাফলকে অস্বীকার করে তাণ্ডব চালিয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ।

প্রেসিডেন্ট লুলা
Brazil: তৃতীয়বারের জন্য রাষ্ট্রপতি পদে শপথ নিলেন বাম নেতা লুলা দ্য সিলভা
প্রেসিডেন্ট লুলা
World Economy: ২০২৩ সালে আরও খারাপ হবে বিশ্ব অর্থনীতি! আশঙ্কা বিশেষজ্ঞ মহলের
প্রেসিডেন্ট লুলা
এক বছরে তৃণমূলের আয় বেড়েছে ৭৩৩%, মোট আয়ের ৯৭ শতাংশই নির্বাচনী বন্ড থেকে প্রাপ্ত

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in