নেপালের মসনদে দুই 'কমিউনিস্ট' দলের জোট সরকার - উদ্বেগ বাড়ছে মোদী সরকারের

তৃতীয় বারের জন্য নেপালের প্রধানমন্ত্রী হলেন সিপিএন (মাওবাদী) নেতা পুষ্পকমল দহল 'প্রচণ্ড'
পুষ্পকমল দহল প্রচণ্ড, কে পি শর্মা ওলি
পুষ্পকমল দহল প্রচণ্ড, কে পি শর্মা ওলিগ্রাফিক্স - সুমিত্রা নন্দন

নেপালের নতুন প্রধানমন্ত্রী হলেন সিপিএন (মাওবাদী) নেতা পুষ্পকমল দহল 'প্রচণ্ড'। নেপালি কংগ্রেসের সভাপতি ও বিদায়ী প্রধানমন্ত্রী শের বাহাদুর দেউবাকে সরিয়ে তৃতীয় বারের জন্য নেপালের মসনদে বসলেন তিনি। শের বাহাদুর দেউবার নেতৃত্বে প্রাক-নির্বাচনমূলক পাঁচ-দলীয় জোট থেকে বেরিয়ে যাওয়ার কয়েক ঘণ্টা পর, নেপালের কমিউনিস্ট পার্টি (মাওবাদী) চেয়ারম্যান পুষ্প কমল দহল 'প্রচণ্ড' তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী কে পি শর্মা অলির সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন। যা নিয়ে ইতিমধ্যেই উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ভারত।

সোমবার প্রচণ্ডকে শুভেচ্ছা বার্তা জানান ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। শুভেচ্ছা বার্তার মাধ্যমে তাঁকে ভারত-নেপাল সুদূর অতীতের ঐতিহ্যবাহী সাংস্কৃতিক সংযোগের কথা স্মরণ করান মোদী। তিনি বলেন, দ্বিপক্ষিক মৈত্রীকে আরও পোক্ত করার জন্য আমি প্রচণ্ডর সঙ্গে কাজ করতে উন্মুখ। তবে, শুভেচ্ছা বার্তা পাঠালেও নেপালের দুই বড় কমিউনিস্ট দলের এই নতুন জোট নিয়ে ইতিমধ্যেই চিন্তায় রয়েছে ভারত।

তবে কূটনৈতিক শিবিরের দাবি, এই ঘটনায় প্রতিবেশী দেশের প্রশ্নে সাউথ ব্লকের জন্য আরও একটি কাঁটা তৈরি হল। তাঁর প্রধান কারণ, বর্তমান নেপাল সরকার তৈরির পিছনে যার সবচেয়ে বেশি ভূমিকা রয়েছে। ওলির সঙ্গে প্রচন্ডর চুক্তি ভারতের জন্য যথেষ্ট বেগের কারণ হতে পারে।

চীনকে নিয়ে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় যখন জেরবার ভারত, সেই সময় প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী কে পি শর্মা ওলির দলের সঙ্গে চুক্তি হয়েছে প্রচণ্ডের দলের। দুই দল থেকেই ভাগাভাগি করে হবেন প্রধানমন্ত্রী। প্রচণ্ডের দাবি মেনে তাঁকে প্রথম দফায় প্রধানমন্ত্রী করার ক্ষেত্রে সায় দিয়েছেন ওলি। তাই এখন প্রচণ্ডই হচ্ছেন নেপালের নতুন প্রধানমন্ত্রী। ২০২৫ সালে প্রধানমন্ত্রী হবেন ওলি।

এই অবস্থায় সীমান্ত নিয়েও যথেষ্ট আশঙ্কা প্রকাশ করেছে ভারত সরকার। নয়া দিল্লির আশঙ্কা অনুযায়ী, রাজনৈতিক ক্ষেত্রে ওলি যা ধুরন্ধর তাতে ২০২৫ সালের আগেই তাঁর নেপালের মসনদে বসার সম্ভাবনা প্রবল। ২০২০ সালের জুনেই ভারতের আপত্তি উড়িয়ে দেশের নতুন মানচিত্রে সিলমোহর লাগানোর উদ্দেশ্যে সংবিধান সংশোধনের বিল পাশ করিয়েছিল ওলি সরকার।

মোদী সরকারের দাবি, নতুন মানচিত্রে ভারতের প্রায় ৪০০ বর্গ কিলোমিটার জায়গা নিজেদের বলে দাবি করছে নেপাল। প্রসঙ্গত, চীনের সাথেও ওলির যথেষ্ট ভালো সম্পর্ক।

পুষ্পকমল দহল প্রচণ্ড, কে পি শর্মা ওলি
Nepal: আবারও ক্ষমতায় বামজোট - তৃতীয়বার নেপালের প্রধানমন্ত্রী হলেন মাওবাদী নেতা ‘প্রচন্ড’

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in