Tripura: রবি ঠাকুরকে 'ভারতবর্ষের শহীদ বীর সন্তান' উল্লেখ করে পোস্টার বিজেপি শাসিত পৌরসভায়

ত্রিপুরার গোমতী জেলার অন্তর্গত উদয়পুর পৌরসভা বিজেপি শাসিত। উদয়পুর শহরের জগন্নাথ দীঘি এলাকায় 'গুরুদেব' নামের একটি ক্লাবের সামনে এই বিতর্কিত পোস্টারটি দেখা গেছে।
উদয়পুরে ফ্লেক্স
উদয়পুরে ফ্লেক্সছবি সোশ্যাল মিডিয়া থেকে সংগৃহীত

বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে 'ভারতবর্ষের শহীদ বীর সন্তান' লেখা ফ্লেক্স ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়ালো বিজেপি শাসিত ত্রিপুরার উদয়পুর এলাকায়। ঘটনাচক্রে যে পুরসভাও বিজেপি শাসিত। রবি ঠাকুরের ছবি দেওয়া এই পোস্টার নিয়ে ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে জোর বিতর্ক।

ত্রিপুরার গোমতী জেলার অন্তর্গত উদয়পুর পৌরসভাটি বিজেপি শাসিত। উদয়পুর শহরের জগন্নাথ দীঘি এলাকায় 'গুরুদেব' নামের একটি ক্লাবের সামনে এই বিতর্কিত ফ্লেক্স দেখা গেছে। পোস্টারে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ছবির নীচে লেখা রয়েছে 'ভারতবর্ষের শহীদ বীর সন্তান' এবং 'সৌজন্যে: উদয়পুর পৌর পরিষদ'।

এই ঘটনার জেরে রাজ্য জুড়ে তীব্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। বিরোধী রাজনৈতিক শিবির থেকে সাহিত্যিক মহল যথেষ্ট ক্ষোভের সাথে বিজেপি সরকারের তীব্র সমালোচনা করেছে। এমনকি, পোস্টারটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতেই সেখানেও উঠেছে বিতর্কের ঝড়। সাধারণ মানুষের প্রশ্ন, বিশ্বকবির ছবি ব্যবহার করে পৌরসভা কর্তৃপক্ষ কীভাবে এই ধরণের বিভ্রান্তিমূলক পোস্টার লাগাতে পারে? সাধারণ মানুষের রোষের মুখে পড়ে অবশেষে রবিবার পোস্টারটি সরাতে বাধ্য হয় পুর কর্তৃপক্ষ। তবে প্রসাশনের তরফে এই বিষয়ে এখনও পর্যন্ত কোনও প্রতিক্রিয়া মেলেনি।

সিপিআই(এম) ত্রিপুরা রাজ্য কমিটির সদস্য তথা প্রাক্তন পর্যটন মন্ত্রী রতন ভৌমিকের বক্তব্য - "আমি বিশ্বাস করতে পারছি না যে, পৌর কর্তৃপক্ষ রবি ঠাকুরের নামে এমন একটি ফ্লেক্স লাগিয়েছে।" উদয়পুর সাহিত্য এবং সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের শহর হিসেবে পরিচিত। রবি ঠাকুর বেশ কয়েকবার এই শহরে এসেছিলেন।

বিজেপির বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়ে সিপিআই(এম) নেতা আরও জানান, "গুরুদেবের নামে এই ধরনের কথা অত্যন্ত লজ্জাজনক এবং আপত্তিকর। দেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাসকে মুছে ফেলতে চাইছে বিজেপি।"

যদিও পুরো ঘটনার দায় সিপিআইএম-এর ওপরেই চাপিয়ে দিয়েছেন প্রাক্তন রাজ্যপাল তথা বিজেপি নেতা তথাগত রায়। মঙ্গলবার এক ট্যুইট বার্তায় এই ঘটনা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, "তাতে অসুবিধা কিছু নেই। খুবই সম্ভব যে এই মাস্টাররা ২০১৮-র আগে চাকরি পাওয়া ! কম্যুনিস্টরা ঘুষ তেমন নিত না (চন্দনের বিস্কুট কারখানা বাদে) তবে দলের অপদার্থ অশিক্ষিত লোকগুলোকে চাকরিতে ঢোকাত।" যদিও এই ঘটনার সঙ্গে শিক্ষকদের কী সম্পর্ক তা বুঝে উঠতে পারেননি নেটিজেনরা। তথাগত বাবুর ট্যুইটের উত্তরে তাঁরা সে কথাও জানিয়েছেন।

উদয়পুরে ফ্লেক্স
দুর্নীতির পাহাড় সামনে আসছে, তাই উনি 'ওদিকে' তাকাতে বারণ করছেন - মমতার মন্তব্যে প্রতিক্রিয়া সেলিমের

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in