মৃত্যু বেড়েছে প্রায় ৬ গুণ, কোভিডে মৃত্যুসংখ্যা গোপন করেছে কেন্দ্র! চাঞ্চল্যকর তথ্য সমীক্ষায়

সরকারি নথি অনুযায়ী অতিমারীতে প্রাণ হারিয়েছেন ৪ লক্ষ ১৪ হাজার মানুষ।এদিকে সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে আসলে মৃত ও নথিভুক্তের পার্থক্য প্রায় ৩০ লাখ থেকে ৪৭ লাখের কাছাকাছি।
মৃত্যু বেড়েছে প্রায় ৬ গুণ, কোভিডে মৃত্যুসংখ্যা গোপন করেছে কেন্দ্র! চাঞ্চল্যকর তথ্য সমীক্ষায়
ছবি প্রতীকী সংগৃহীত

ভারতে কোভিডকালীন সময়ে মৃতের সংখ্যা বেড়েছে গত বছরের তুলনায় প্রায় ৬ গুণ। এমনই তথ্য উঠে এসেছে একটি সমীক্ষার রিপোর্টে। ২০২০ সালে দেশে মোট মৃত্যু হয়েছে ৮১.১৬ লাখ মানুষের। নতুন তথ্যে এমনটাই দেখা যাচ্ছে।

CRS (সিভিল রেজিস্ট্রেশন সিস্টেম) -র তথ্যে দেখা যাচ্ছে ২০২০ সালে নিবন্ধিত জন্মের সংখ্যা ২.৪৮ কোটি থেকে কমে ২.৪২ কোটিতে দাঁড়িয়েছে। মৃতের সংখ্যা ২০১৯ সালে রেকর্ড করা ৭৬.৪১ লাখ থেকে বেড়ে ২০২০ সালে ৮১.১৬ লাখে পৌঁছেছে। ২০২০ সালে কোভিডের কারণে প্রাণ হারিয়েছেন ১.৪৯ লাখ মানুষ এবং মোট মৃতের সংখ্যা প্রায় ৫.২৩ লাখ। এক সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে সরকারি তথ্যের প্রায় ১০ গুণ বেশী হতে পারে আমাদের দেশের করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা।

অনেক বিশেষজ্ঞের মতে কেন্দ্রীয় সরকার করোনায় মৃতের সংখ্যা অনেক কমিয়ে বলছে। সরকারি নথি অনুযায়ী অতিমারীতে প্রাণ হারিয়েছেন ৪ লক্ষ ১৪ হাজার মানুষ।এদিকে সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে আসলে মৃত ও নথিভুক্তের পার্থক্য প্রায় ৩০ লাখ থেকে ৪৭ লাখের কাছাকাছি।

কোভিড টাস্ক ফোর্সের প্রধান ভি কে পল বলেছেন, “সি আর এস ডেটা একটি ইঙ্গিত দেয় যে ২০২০ সালে দেশে কোভিডে মৃত্যুর প্রকৃত সংখ্যা সম্ভবত সরকারী পরিসংখ্যান থেকে খুব বেশি আলাদা ছিল না। তিনি বলেন,বিভিন্ন কারণে নিবন্ধিত মৃত্যুর বৃদ্ধি হতে পারে”।

এই প্রসঙ্গে কেউ কেউ বলছেন সমস্ত মৃত্যু অতিমারীর জন্য হয়নি। এই দুই বছরে ভারতের জনসংখ্যা প্রায় ১.৬ কোটি বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে সেই অনুপাতে মৃত্যুর সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়াটাই স্বাভাবিক। এই মৃত্যু বৃদ্ধির পেছনে অন্য কারণও আছে, বর্তমানে জন্ম-মৃত্যু রেজিস্ট্রেশনের প্রক্রিয়া অনেক সহজ হওয়ায় ডেথ রেজিস্ট্রেশনের প্রবণতাও বাড়ছে।

মৃত্যু বেড়েছে প্রায় ৬ গুণ, কোভিডে মৃত্যুসংখ্যা গোপন করেছে কেন্দ্র! চাঞ্চল্যকর তথ্য সমীক্ষায়
Kerala: কেন্দ্র কেরালার কোভিড পরিসংখ্যান বিষয়ে মিথ্যা প্রচার করছে - বীণা জর্জ

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.