WB Election 21: এ রাজ্যকে বিজেপি-তৃণমূলের হাতে ছাড়া যাবে না - সূর্যকান্ত মিশ্র

WB Election 21: এ রাজ্যকে বিজেপি-তৃণমূলের হাতে ছাড়া যাবে না - সূর্যকান্ত মিশ্র
খেজুরীতে কর্মীসভায় সূর্যকান্ত মিশ্র, আব্বাস সিদ্দিকিছবি সংগৃহীত

গত ২৮ ফেব্রুয়ারি ব্রিগেড সমাবেশ এবারে বিধানসভা নির্বাচনে এক অন্য বিকল্প তুলে ধরেছে। নাম সংযুক্ত মোর্চা। এই আত্মবিশ্বাসকে সঙ্গী করেই লড়তে হবে। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ তার জন্য চাই হিম্মত বা সাহস। ভোটের দিন শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত সেই সাহসী কর্মীদের বুথ রক্ষার লড়াই করতে হবে। সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র এবং আইএসএফ নেতা আব্বাস সিদ্দিকি নন্দীগ্রাম সংলগ্ন খেজুরি থেকে বৃহস্পতিবার যৌথভাবে এমনই আহ্বান জানালেন সংযুক্ত কর্মী-সমর্থকদের কাছে।

এদিন সূর্যকান্ত মিশ্র বলেন, ‘মানুষ মাত্রেই ভুল করে। যাঁরা ভুল করে তৃণমূল-বিজেপিকে ভোট দিয়েছিলেন, তাঁরা আমাদের শত্রু নন। ফেরত আসতে চাইলে আসতে দিন। হিম্মতওয়ালাদের বুথ রক্ষার দায়িত্ব নিতে হবে। মোদ্দা কথা, এরাজ্যকে বিজেপি-তৃণমূলের হাতে ছাড়া যাবে না।’

খেজুরির একাধিক পঞ্চায়েত এলাকার মানুষ তৃণমূল-বিজেপির হুমকি শোনেন, সিপিএমের হয়ে ভোটে কাজ করলে দু’টাকা কেজি দরের চাল বন্ধ হবে। সেই খেজুরির টিকাশি পঞ্চায়েতের পূর্বচড়ার মাঠে আব্বাস সিদ্দিকী বলেন, ‘শুনুন মমতা বন্দোপাধ্যায় দশ বছরের টেন্ডার নিয়ে জমি তৈরি করে এখন মোদির হাতে তুলে দিতে চাইছেন। ওরা ভয় পেয়েছে। যে মিডিয়া, যে কাগজ আমাদের হিসাবেই ধরছিল না, তারাই ব্রিগেডের পরে বুঝতে পেরেছে, এত সহজ না।'

এদিনের সভা থেকে আব্বাস সিদ্দিকির প্রশ্ন, বিজেপি-কে হারাতে চান? তাহলে সংযুক্ত মোর্চার পক্ষে দাঁড়ান। তিনি বলেন, ‘দশ বছর আগে এরাজ্যে ৩৪ বছরের যে সরকার ছিল, তাদের আমলে বিজেপি মাথাচাড়া দিতে পারেনি। পেরেছে দিদির আমলে।’

সিদ্দিকি আরও বলেন, ‘‘যারা বন্দুক-বোমা দেখাবে বলে প্রস্তুতি নিচ্ছে, তারাই বলছে — আমরা দুশো পার করব কিংবা আমার আড়াইশো পাব। আমরা বলছি না এরকম। আমরা মানুষকে নিয়েই আছি লড়াইয়ে।'

সভা থেকে সিদ্দিকির কটাক্ষ – 'যাঁরা ভাবছেন বিজেপিকে আটকাতে মমতাকে ভোট দেবেন, আপনি নিশ্চিত তো যে, বিজেপিতে যাবেন না উনি! শুভেন্দুর কথায় যাঁরা বিশ্বাস করছেন, তাঁরা নিশ্চিত তো যে ওটা ‘জুমলা’ নয়?'

বৃহস্পতিবার দুপুরে কাঁথি উত্তর কেন্দ্রের সিপিআই(এম) প্রার্থী সুতনু মাইতি ও কাঁথি দক্ষিণ কেন্দ্রের সিপিআই প্রার্থী অনুরূপ পন্ডার সমর্থনে অযোধ্যাপুর বাজার সংলগ্ন মাঠে সংযুক্ত মোর্চার কর্মিসভা হয়। সেখানে সূর্যকান্ত বলেন, তৃণমূল-বিজেপি দুই দলের ভাষ্যকেই মিডিয়ায় সাজানো হচ্ছে। বাস্তবের মাটিতে মানুষের সমস্যা, আকাঙ্ক্ষার কথা বলছে সংযুক্ত মোর্চাই। মানুষকে সঙ্ঘবদ্ধ করতে রাস্তার লড়াইয়ে মোর্চাই আছে।' তাঁর কথায়, 'জ্যোতি বসু বারবার বলতেন, তৃণমূলের সব থেকে বড় অপরাধ— ওরা হাত ধরে বিজেপিকে নিয়ে এসেছে। আসলে দুই দলই এখন সংযুক্ত মোর্চার শক্তিবৃদ্ধিতে ভয় পাচ্ছে।'

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in