WB Election 21: হেভিওয়েট নন্দীগ্রামে লড়াই জমিয়ে দিতে সংযুক্ত মোর্চার পক্ষে প্রার্থী দিচ্ছে CPIM

শোনা যাচ্ছিল বাম, কংগ্রেস ও আইএসএফ মহাজোটের প্রার্থী হতে পারেন আইএসএফের কেউ। কিন্তু দুই হেভিওয়েট প্রার্থীকে চাপে রাখতে আইএসএফ নয়, প্রার্থী দিতে চলেছেন সিপিআইএম।
WB Election 21: হেভিওয়েট নন্দীগ্রামে লড়াই জমিয়ে দিতে সংযুক্ত মোর্চার পক্ষে প্রার্থী দিচ্ছে CPIM
গ্রাফিক্স সুমিত্রা নন্দন

এবারের বিধানসভা নির্বাচনে রাজ্যের সবথেকে হেভিওয়েট আসনের নাম নন্দীগ্রাম। তৃণমূল এবং বিজেপির দুই হেভিওয়েট প্রার্থী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও শুভেন্দু অধিকারী। তাহলে তৃতীয় প্রার্থী কে হবেন? এই নিয়ে চলছিল জল্পনা। শোনা যাচ্ছিল বাম, কংগ্রেস ও আইএসএফ মহাজোটের প্রার্থী হতে পারেন আইএসএফের কেউ। কিন্তু দুই হেভিওয়েট প্রার্থীকে চাপে রাখতে আইএসএফ নয়, প্রার্থী দিতে চলেছেন সিপিআইএম।

গত ১৯৫২ সাল থেকে এই আসনে প্রার্থী দিয়ে আসছে সিপিআই। গত ২০০৯ সালে এই কেন্দ্রে উপনির্বাচনে প্রথমবার জেতে তৃণমূল। সেই নির্বাচনের আগে সিপিআই বিধায়ক মহম্মদ ইলিয়াস এক স্টিং অপারেশান কাণ্ডে জড়িয়ে পড়েন। যদিও পরবর্তী সময়ে সেই স্টিং অপারেশান ভুয়ো বলে প্রমাণিত হয়। যে সাংবাদিক সেই স্টিং অপারেশন করেছিলেন তিনি পরবর্তী সময়ে তৃণমূলে যোগ দিলেও পরবর্তী সময়ে দল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন।

বামফ্রন্টের চেয়ারম্যান বিমান বসু এই আসন সম্পর্কে জানান, নন্দীগ্রাম হেভিওয়েট কেন্দ্র। এখান থেকে দাঁড়াচ্ছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বিজেপি দাঁড় করিয়েছে শুভেন্দু অধিকারীর মতো প্রার্থীকে। তাই আমরাও এখানে হেভিওয়েট প্রার্থী দেব। যদিও চূড়ান্ত কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি বলে তিনি জানান।

এখানে আরও একটি রাজনৈতিক অঙ্ক কাজ করছে। প্রথমত আইএসএফ প্রথমবার নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। দ্বিতীয়ত আইএসএফ কোনও সংখ্যালঘু প্রার্থীকে যদি টিকিট দেয়, সেক্ষেত্রে রাজ্যবাসীর কাছে এই বার্তা যাবে যে জোটের পক্ষ থেকে বিজেপিকে সুবিধা করে দেওয়ার একটা চেষ্টা চলছে। কিন্তু বামেরা চায় না সেই প্রশ্ন তুলে দিয়ে কোনও রকম ভাবে নিজেদের জায়গাটাকে নড়বড়ে করে দিতে।

বিজেপি তৃণমূল দু'পক্ষকেই চাপের মুখে ফেলতে পারে ভেবে সিপিএম ঠিক করেছে নন্দীগ্রামে ভূমিপুত্র মহাদেব ভূঁইয়াকে। ভাবা হচ্ছে ডিওয়াইএফআইয়ের জেলা সম্পাদক পরিতোষ পট্টনায়কের নামও। অথবা দাঁড় করানো হতে পারে রাজ্যস্তরে ভালো পরিচিতি আছে এমন কোনও প্রার্থীকেও।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in