WB Election 21: নন্দীগ্রামে মুখ্যমন্ত্রীর আহত হওয়ার ঘটনায় অভিযোগ-পাল্টা অভিযোগে সরগরম রাজনীতি

সিপিআই(এম) পলিটব্যুরো সদস্য মহম্মদ সেলিম এই ঘটনাকে 'নাটক' বলে অভিহিত করেছেন। কংগ্রেসের অধীর চৌধুরী এই ঘটনাকে 'সহানুভূতি আদায়ের পথ' বলেছেন। আবদুল মান্নানও একে মুখ্যমন্ত্রীর 'নাটক' বলেছেন।
WB Election 21: নন্দীগ্রামে মুখ্যমন্ত্রীর আহত হওয়ার ঘটনায় অভিযোগ-পাল্টা অভিযোগে সরগরম রাজনীতি
পায়ে চোট পাওয়ার মুখ্যমন্ত্রীছবি সংগৃহীত

সকালে নন্দীগ্রামে মনোনয়ন পেশ করে মন্দিরে মন্দিরে পুজো দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এর মধ্যেই ঘটে গেল অঘটন, আচমকাই পড়ে গিয়ে গুরুতর চোট পান তিনি। আর এর পিছনে বিরোধী ষড়যন্ত্রের অভিযোগে ইতিমধ্যেই রাজনৈতিক পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে। যদিও বিরোধীদের মতে, সবটাই মুখ্যমন্ত্রীর 'নাটক' ছাড়া আর কিছু নয়। বর্তমানে এসএসকেএম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন তিনি।

রাজ্য সভার সাংসদ তথা দলীয় মুখপাত্র সুখেন্দুশেখর রায় জানিয়েছেন, 'মঙ্গলবার নন্দীগ্রামে ব্লক-১-এর মানুষের বিপুল সাড়া পাওয়ার পর নন্দীগ্রাম ব্লক ২-তে নিজের মনোনয়ন পেশ করেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি এক মন্দির থেকে অন্য মন্দিরে পুজো দিয়েছেন। সব জায়গায় মানুষের বিপুল সাড়া পেয়েছেন। ৬.১৫ মিনিট নাগাদ বিরুলিয়া অঞ্চলে পুজো দিয়ে বেরনোর সময় বেশ কিছু অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তি তাঁকে ধাক্কা মেরে গাড়ির মধ্যে ফেলে দিয়ে জোর করে দরজা বন্ধ করে দেন। এর ফলে তাঁর বাঁ পায়ে ও কোমরে চোট লেগেছে।'

এরপর মুখ্যমন্ত্রীকে কলকাতায় নিয়ে আসা হয়, যেখানে তৃণমূল সমর্থকরা আগে থেকেই উপস্থিত ছিলেন। তাঁদের অভিযোগ, যখন মুখ্যমন্ত্রীকে ধাক্কা মারা হয়, তখন সেখানে কোনও পুলিশ ছিল না। তৃণমূলের মুখপাত্র দেবাংশু ভট্টাচার্য অভিযোগ করেছেন, নির্বাচন কমিশন আগের দিনই রাজ্যের ডিজিপি পরিবর্তন করার পরই মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন উঠল। দলীয় তরফে টুইটারে বিবৃতি দিতে গিয়েও 'চক্রান্তের' অভিযোগ করা হয়।

এদিকে, হাসপাতালে মুখ্যমন্ত্রীকে দেখতে এলে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়কে 'গো ব্যাক' স্লোগানের মুখে পড়তে হয়। রাজ্যপালের গাড়ি লক্ষ্য করে জুতোও ছুড়েমারা হয় বলে অভিযোগ।

সিপিআই(এম) পলিটব্যুরো সদস্য মহম্মদ সেলিম এই ঘটনাকে 'নাটক' বলে অভিহিত করেছেন। কংগ্রেসের অধীর চৌধুরী এই ঘটনাকে 'সহানুভূতি আদায়ের পথ' বলেছেন। আবদুল মান্নানও একে মুখ্যমন্ত্রীর 'নাটক' বলেছেন। বিজেপি নেতা অর্জুন সিং মুখ্যমন্ত্রীর 'নাটক' বলেছেন, অন্যদিকে কৈলাস বিজয়বর্গীয় জানিয়েছেন, কারওর এত সাহস নেই যে মুখ্যমন্ত্রীকে ধাক্কা মারবেন। রাজ্যসভার সাংসদ স্বপন দাশগুপ্ত নিজের টুইটারে লিখেছেন, 'মুখ্যমন্ত্রীর দ্রুত আরোগ্য কামনা করি। যদি তিনি অতিরিক্ত নিরাপত্তা চান, তাহলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক তার ব্যবস্থা করবে।'

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in